ঢাকা ১২:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

টাকা না দেয়ায় বাবাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:২৯:৩৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২২
  • / ৫২৪ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলায় টাকা না দেয়ায় মগুল হোসেন (৫৫) নামে এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাতে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার ছেলের বিরুদ্ধে।

আজ রোববার (২৩ অক্টোবর) সকালে উপজেলার শাহজাদাপুর ইউনিয়নের দেওড়া পশ্চিমপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মগুল মিয়া ওই এলাকার মৃত নবী হোসেনের ছেলে। তিনি সৌদিপ্রবাসী ছিলেন। এ ঘটনার পরপরই নিহতের ছেলে মনির হোসেন (৩১) ও তার স্ত্রী বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন।

সরাইল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আসলাম হোসেন জানান, দীর্ঘদিন সৌদি আরব থাকা মগুল হোসেন এক মাস আগে দেশে ফেরেন। মগুলের দুই ছেলে ও তিন মেয়ের মধ্যে মনির সবার বড়। তিন সন্তানের জনক মনির ছিল অনেকটা ভবঘুরে প্রকৃতির। তার বিরুদ্ধে রয়েছে মাদকসেবন ও একাধিক বিয়ের অভিযোগ।

ছেলে মনির বিভিন্ন দোকানে ও মানুষের কাছে অনেক দেনা করেছে। ওই দেনা পরিশোধের জন্য বাবাকে চাপ দিত সে।

আসলাম হোসেন আরো জানান, রোববার ফজরের নামাজ পড়ে মসজিদ থেকে বাড়িতে ফেরেন মগুল মিয়া। কিছুক্ষণ পর বাবার কাছে টাকা চায় মনির। এতে অস্বীকৃতি জানালে মনির উচ্চৈঃস্বরে চেঁচামেচি শুরু করে। একপর্যায়ে বাবার বুকে ছুরি বসিয়ে দেয়। এ সময় আহত মগুলকে হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। তবে এ ঘটনায় দুপুর পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

টাকা না দেয়ায় বাবাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

আপডেট সময় : ০৯:২৯:৩৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২২

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলায় টাকা না দেয়ায় মগুল হোসেন (৫৫) নামে এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাতে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার ছেলের বিরুদ্ধে।

আজ রোববার (২৩ অক্টোবর) সকালে উপজেলার শাহজাদাপুর ইউনিয়নের দেওড়া পশ্চিমপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মগুল মিয়া ওই এলাকার মৃত নবী হোসেনের ছেলে। তিনি সৌদিপ্রবাসী ছিলেন। এ ঘটনার পরপরই নিহতের ছেলে মনির হোসেন (৩১) ও তার স্ত্রী বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন।

সরাইল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আসলাম হোসেন জানান, দীর্ঘদিন সৌদি আরব থাকা মগুল হোসেন এক মাস আগে দেশে ফেরেন। মগুলের দুই ছেলে ও তিন মেয়ের মধ্যে মনির সবার বড়। তিন সন্তানের জনক মনির ছিল অনেকটা ভবঘুরে প্রকৃতির। তার বিরুদ্ধে রয়েছে মাদকসেবন ও একাধিক বিয়ের অভিযোগ।

ছেলে মনির বিভিন্ন দোকানে ও মানুষের কাছে অনেক দেনা করেছে। ওই দেনা পরিশোধের জন্য বাবাকে চাপ দিত সে।

আসলাম হোসেন আরো জানান, রোববার ফজরের নামাজ পড়ে মসজিদ থেকে বাড়িতে ফেরেন মগুল মিয়া। কিছুক্ষণ পর বাবার কাছে টাকা চায় মনির। এতে অস্বীকৃতি জানালে মনির উচ্চৈঃস্বরে চেঁচামেচি শুরু করে। একপর্যায়ে বাবার বুকে ছুরি বসিয়ে দেয়। এ সময় আহত মগুলকে হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। তবে এ ঘটনায় দুপুর পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি।