ঢাকা ০৬:৫৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

জ্বালাও-পোড়াও বরদাশত করা হবে না: প্রধানমন্ত্রী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:৫১:১৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩১ জুলাই ২০২৩
  • / ৪৪৯ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমার কাছে প্রধানমন্ত্রীত্ব বড় কিছু নয়, বঙ্গবন্ধুর মতোই জনগণের সেবক হয়ে কাজ করে যেতে চাই। আন্দোলনের নামে কেউ জ্বালাও পোড়াও সহিংসতা করলে বরদাশত করা হবে না। এসময় তিনি প্রশাসনের লোকজনদের জনগণের সেবক হতে বলেছেন।

সোমবার (৩১ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ‘জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস’ উপলক্ষে আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক’ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে ১২টি ক্যাটাগরিতে ২৮ কর্মচারি ও দুই প্রতিষ্ঠানকে বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি আরও বলেন, আন্দোলন সংগ্রাম যাই করুক তাতে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। দেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে আর কাউকে ছিনিমিনি খেলতে দেব না।

শেখ হাসিনা বলেন, একটা কথা মনে রাখবেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে যারা আমাদের সমর্থন করেনি তাদের মনের বৈরিতা কিন্তু এখনো কেটে যাইনি। সেটা অতিক্রম করেই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি এবং বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে।

৫ দিনের সফরে কুয়েত গেলেন সেনাবাহিনী প্রধান

গ্রামের মানুষ ভালো আছে দাবি করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখন ঢাকায় জিনিসপত্র নিয়ে যে হাহাকার, সেটা গ্রামে নাই। কারণ তারা নিজেরাই উৎপাদন করছে। গ্রামের মানুষ ভালোই আছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ আজ উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছে। বাংলাদেশ আজ ২৭ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের সক্ষমতা অর্জন করেছে।

শেখ হাসিনা বলেন, অতীতে সংবিধান লঙ্ঘন করে বারবার ক্ষমতা দখল করায় দেশের অগ্রযাত্রা ব্যাহত হয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, এক সময় বাংলাদেশকে চিনতো দুর্যোগের, গরিব দেশ হিসাবে। আর আজকে বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃত।

অনুষ্ঠানে প্রশাসনের ২৮ কর্মকর্তা ও দুটি সরকারি প্রতিষ্ঠানের হাতে বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক তুলে দেন শেখ হাসিনা।

নিউজটি শেয়ার করুন

জ্বালাও-পোড়াও বরদাশত করা হবে না: প্রধানমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০২:৫১:১৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩১ জুলাই ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমার কাছে প্রধানমন্ত্রীত্ব বড় কিছু নয়, বঙ্গবন্ধুর মতোই জনগণের সেবক হয়ে কাজ করে যেতে চাই। আন্দোলনের নামে কেউ জ্বালাও পোড়াও সহিংসতা করলে বরদাশত করা হবে না। এসময় তিনি প্রশাসনের লোকজনদের জনগণের সেবক হতে বলেছেন।

সোমবার (৩১ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ‘জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস’ উপলক্ষে আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক’ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে ১২টি ক্যাটাগরিতে ২৮ কর্মচারি ও দুই প্রতিষ্ঠানকে বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি আরও বলেন, আন্দোলন সংগ্রাম যাই করুক তাতে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। দেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে আর কাউকে ছিনিমিনি খেলতে দেব না।

শেখ হাসিনা বলেন, একটা কথা মনে রাখবেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে যারা আমাদের সমর্থন করেনি তাদের মনের বৈরিতা কিন্তু এখনো কেটে যাইনি। সেটা অতিক্রম করেই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি এবং বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে।

৫ দিনের সফরে কুয়েত গেলেন সেনাবাহিনী প্রধান

গ্রামের মানুষ ভালো আছে দাবি করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখন ঢাকায় জিনিসপত্র নিয়ে যে হাহাকার, সেটা গ্রামে নাই। কারণ তারা নিজেরাই উৎপাদন করছে। গ্রামের মানুষ ভালোই আছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ আজ উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছে। বাংলাদেশ আজ ২৭ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের সক্ষমতা অর্জন করেছে।

শেখ হাসিনা বলেন, অতীতে সংবিধান লঙ্ঘন করে বারবার ক্ষমতা দখল করায় দেশের অগ্রযাত্রা ব্যাহত হয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, এক সময় বাংলাদেশকে চিনতো দুর্যোগের, গরিব দেশ হিসাবে। আর আজকে বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃত।

অনুষ্ঠানে প্রশাসনের ২৮ কর্মকর্তা ও দুটি সরকারি প্রতিষ্ঠানের হাতে বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক তুলে দেন শেখ হাসিনা।