ঢাকা ০৪:০০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

জামালপুরে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ধ্বংস করা হলো উদ্ধার করা মর্টার শেল

লিয়াকত হোসাইন লায়ন, জামালপুর
  • আপডেট সময় : ১১:১৬:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ৫৪১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
জামালপুরে উদ্ধার করা একটি তাজা মর্টার শেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ধ্বংস করেছে ঘাটাইল সেনানিবাসের ১৯ পদাতিক ডিভিশনের বোম্ব ডিস্পোজাল ইউনিট। মঙ্গলবার  জামালপুর সদরের কোজগড় এলাকায় এটি ধ্বংস করা হয়।
 জানা গেছে, গতকাল সোমবার জামালপুর সদর উপজেলার কেন্দুয়া ইউনিয়নের কোজগড় এলাকায় জামালপুর-টাঙ্গাইল মহাসড়কের পাশের একটি পরিত্যক্ত স্থানে জাহাঙ্গীর নামে স্থানীয় এক ওয়েল্ডিং মিস্ত্রি প্রথমে ওই মর্টার শেলটি দেখতে পান। পরে ইউপি সদস্য কামরুজ্জামান বাবুলকে অবহিত করলে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ ও র‍্যাবের সদস্যরা ঘটনাস্থলটি ঘিরে রাখেন। গতকাল রাতেই প্রশাসন ও পুলিশের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। বিষয়টি প্রশাসনের মাধ্যমে ঘাটাইল সেনানিবাসে জানানো হয়।
পরিত্যক্ত অবস্থায় মর্টার শেলটি উদ্ধার করে ঘাটাইল সেনানিবাসের ১৯ পদাতিক ডিভিশনের বোম্ব ডিস্পোজাল ইউনিট। পরে ৫০ মিটার নিরাপদ দূরত্বে নিয়ে শেলটির বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ধ্বংস করা হয়।
ঘাটাইল সেনানিবাসের ১৯ পদাতিক ডিভিশনের ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আশরাফুল কাদেরের নেতৃত্বে  অভিযানে ধ্বংস করতে কাজ করেন ক্যাপ্টেন মোহতাসিম।
জামালপুর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মেহনাজ ফেরদৌস জানান, ধ্বংস করা মর্টার শেলটি ট্যাংক ধ্বংসকারী। যা ব্রিটিশ সরকারের তৈরি। এটি ১৯৭১ সালে ব্যবহৃত হতো। তবে এই মর্টার শেলটি কীভাবে এখানে এল তা তদন্ত করছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একাধিক টিম।
এ সময় জামালপুর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোহরাব হোসাইন, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ মহব্বত কবীরসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

জামালপুরে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ধ্বংস করা হলো উদ্ধার করা মর্টার শেল

আপডেট সময় : ১১:১৬:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জানুয়ারী ২০২৪
জামালপুরে উদ্ধার করা একটি তাজা মর্টার শেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ধ্বংস করেছে ঘাটাইল সেনানিবাসের ১৯ পদাতিক ডিভিশনের বোম্ব ডিস্পোজাল ইউনিট। মঙ্গলবার  জামালপুর সদরের কোজগড় এলাকায় এটি ধ্বংস করা হয়।
 জানা গেছে, গতকাল সোমবার জামালপুর সদর উপজেলার কেন্দুয়া ইউনিয়নের কোজগড় এলাকায় জামালপুর-টাঙ্গাইল মহাসড়কের পাশের একটি পরিত্যক্ত স্থানে জাহাঙ্গীর নামে স্থানীয় এক ওয়েল্ডিং মিস্ত্রি প্রথমে ওই মর্টার শেলটি দেখতে পান। পরে ইউপি সদস্য কামরুজ্জামান বাবুলকে অবহিত করলে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ ও র‍্যাবের সদস্যরা ঘটনাস্থলটি ঘিরে রাখেন। গতকাল রাতেই প্রশাসন ও পুলিশের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। বিষয়টি প্রশাসনের মাধ্যমে ঘাটাইল সেনানিবাসে জানানো হয়।
পরিত্যক্ত অবস্থায় মর্টার শেলটি উদ্ধার করে ঘাটাইল সেনানিবাসের ১৯ পদাতিক ডিভিশনের বোম্ব ডিস্পোজাল ইউনিট। পরে ৫০ মিটার নিরাপদ দূরত্বে নিয়ে শেলটির বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ধ্বংস করা হয়।
ঘাটাইল সেনানিবাসের ১৯ পদাতিক ডিভিশনের ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আশরাফুল কাদেরের নেতৃত্বে  অভিযানে ধ্বংস করতে কাজ করেন ক্যাপ্টেন মোহতাসিম।
জামালপুর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মেহনাজ ফেরদৌস জানান, ধ্বংস করা মর্টার শেলটি ট্যাংক ধ্বংসকারী। যা ব্রিটিশ সরকারের তৈরি। এটি ১৯৭১ সালে ব্যবহৃত হতো। তবে এই মর্টার শেলটি কীভাবে এখানে এল তা তদন্ত করছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একাধিক টিম।
এ সময় জামালপুর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোহরাব হোসাইন, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ মহব্বত কবীরসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।