ঢাকা ০৯:০৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

জাতীয় পার্টির ২৪ দফার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০২:০০:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ ডিসেম্বর ২০২৩
  • / ৪৮৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

‘শান্তির জন্য পরিবর্তন, পরিবর্তনের জন্য জাতীয় পার্টি ‘ এই শ্লোগান সামনে রেখে ২৪ দফার জাতীয় পার্টির নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা কর হচ্ছে। আজ বৃহস্পতিবার (২১ ডিসেম্বর) পার্টির চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয় মিলনায়তনে দুপুর সোয়া ১২টার দিকে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন পার্টির মহাসচিব মো. মুজিবুল হক চুন্নু।

এবার জাতীয় পার্টির নির্বাচনী ইশতেহারে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে দুর্নীতি বন্ধের বিষয়টি। এছাড়াও কর্মমুখী শিক্ষা ও কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির প্রতিশ্রুতি ইশতেহার প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে উপজেলায় স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উন্নয়নের পাশাপাশি ক্ষমতায় গেলে নির্বাচন ব্যবস্থার পরিবর্তন করতে চায় দলটি। সেই সঙ্গে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলা ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি খাতে গুরুত্ব থাকছে। পাশাপাশি স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মাণের রূপরেখা দেওয়া হচ্ছে এবারের ইশতেহারে। ইশতারে চুন্নু বলেন, সকল নির্যাতনমূলক কালাকানুন বাতিল করা হবে, সকলের জন্য স্বাস্থ্যসেবা নীতি প্রনয়ণ করা হবে।

জাপার ২৪ দফা নির্বাচনী ইশতেহারে রয়েছে- প্রাদেশিক সরকার ব্যবস্থা চালু, ঢাকা থেকে ৫০ শতাংশ সদরদপ্তর স্থানান্তর, নির্বাচন পদ্ধতি সংস্কার, দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) সরকারি প্রভাবমুক্ত রাখা এবং বিশেষ ক্ষমতা আইন বাতিল করা। দলটির ইশতেহারে আছে প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন, কুরআন ও সুন্নাহ বিরোধী আইন পাস না করা, ইসলামিক কমিশন গঠন, বিশ্ব ইজতেমার জন্য স্থায়ী জায়গার ব্যবস্থা, নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে প্রয়োজনে মৃত্যুদণ্ডের আইন করা এবং সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারও সঙ্গে বৈরিতা নয়-হবে দেশের পররাষ্ট্র নীতি।

এছাড়া বিচার বিভাগ, দুদক ও ইসিকে সরকারের নিয়ন্ত্রণ মুক্ত রাখা, গণমাধ্যম ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিত করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে এই ইশতেহারে। এবারের ইশতেহারে কালাকানুন, বিশেষ ক্ষমতা আইন বাতিল করা, বেকার সমস্যা সমাধান, জনস্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা, বাজেটে শিক্ষাখাতে ব্যয় বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছে জাতীয় পার্টি।

গত ১৭ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে এসে জাতীয় পার্টি নির্বাচনে অংশগ্রহণের চূড়ান্ত ঘোষণা দেয়। এবার দলটি এককভাবে ২৮৭টি আসনে প্রার্থী দিলেও ২৬টি আসনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সঙ্গে তাদের সমঝোতা হয়েছে।

নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণায় পার্টির মহাসচিব মো. মুজিবুল হক চুন্নু ছাড়াও কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এবারের নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ জাতীয় পার্টিকে ২৬টি আসন ছেড়েছে। দলটির মহাসচিব মুজিবুল হক জানান, নির্বাচনে ২৮৩ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা। তবে কিছু জ্যেষ্ঠ নেতাদের আসনে আওয়ামী লীগের সঙ্গে সমঝোতা হয়েছে।

গত ১৫ নভেম্বর দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। তফসিল অনুযায়ী ভোট হবে আগামী ৭ জানুয়ারি।

নিউজটি শেয়ার করুন

জাতীয় পার্টির ২৪ দফার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা

আপডেট সময় : ০২:০০:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ ডিসেম্বর ২০২৩

‘শান্তির জন্য পরিবর্তন, পরিবর্তনের জন্য জাতীয় পার্টি ‘ এই শ্লোগান সামনে রেখে ২৪ দফার জাতীয় পার্টির নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা কর হচ্ছে। আজ বৃহস্পতিবার (২১ ডিসেম্বর) পার্টির চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয় মিলনায়তনে দুপুর সোয়া ১২টার দিকে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন পার্টির মহাসচিব মো. মুজিবুল হক চুন্নু।

এবার জাতীয় পার্টির নির্বাচনী ইশতেহারে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে দুর্নীতি বন্ধের বিষয়টি। এছাড়াও কর্মমুখী শিক্ষা ও কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির প্রতিশ্রুতি ইশতেহার প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে উপজেলায় স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উন্নয়নের পাশাপাশি ক্ষমতায় গেলে নির্বাচন ব্যবস্থার পরিবর্তন করতে চায় দলটি। সেই সঙ্গে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলা ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি খাতে গুরুত্ব থাকছে। পাশাপাশি স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মাণের রূপরেখা দেওয়া হচ্ছে এবারের ইশতেহারে। ইশতারে চুন্নু বলেন, সকল নির্যাতনমূলক কালাকানুন বাতিল করা হবে, সকলের জন্য স্বাস্থ্যসেবা নীতি প্রনয়ণ করা হবে।

জাপার ২৪ দফা নির্বাচনী ইশতেহারে রয়েছে- প্রাদেশিক সরকার ব্যবস্থা চালু, ঢাকা থেকে ৫০ শতাংশ সদরদপ্তর স্থানান্তর, নির্বাচন পদ্ধতি সংস্কার, দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) সরকারি প্রভাবমুক্ত রাখা এবং বিশেষ ক্ষমতা আইন বাতিল করা। দলটির ইশতেহারে আছে প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন, কুরআন ও সুন্নাহ বিরোধী আইন পাস না করা, ইসলামিক কমিশন গঠন, বিশ্ব ইজতেমার জন্য স্থায়ী জায়গার ব্যবস্থা, নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে প্রয়োজনে মৃত্যুদণ্ডের আইন করা এবং সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারও সঙ্গে বৈরিতা নয়-হবে দেশের পররাষ্ট্র নীতি।

এছাড়া বিচার বিভাগ, দুদক ও ইসিকে সরকারের নিয়ন্ত্রণ মুক্ত রাখা, গণমাধ্যম ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিত করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে এই ইশতেহারে। এবারের ইশতেহারে কালাকানুন, বিশেষ ক্ষমতা আইন বাতিল করা, বেকার সমস্যা সমাধান, জনস্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা, বাজেটে শিক্ষাখাতে ব্যয় বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছে জাতীয় পার্টি।

গত ১৭ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে এসে জাতীয় পার্টি নির্বাচনে অংশগ্রহণের চূড়ান্ত ঘোষণা দেয়। এবার দলটি এককভাবে ২৮৭টি আসনে প্রার্থী দিলেও ২৬টি আসনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সঙ্গে তাদের সমঝোতা হয়েছে।

নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণায় পার্টির মহাসচিব মো. মুজিবুল হক চুন্নু ছাড়াও কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এবারের নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ জাতীয় পার্টিকে ২৬টি আসন ছেড়েছে। দলটির মহাসচিব মুজিবুল হক জানান, নির্বাচনে ২৮৩ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা। তবে কিছু জ্যেষ্ঠ নেতাদের আসনে আওয়ামী লীগের সঙ্গে সমঝোতা হয়েছে।

গত ১৫ নভেম্বর দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। তফসিল অনুযায়ী ভোট হবে আগামী ৭ জানুয়ারি।