ঢাকা ০৮:৪৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

জয়পুরহাটে জামায়াতের ককটেল নিক্ষেপ: ৩ পুলিশ আহত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:০০:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০২২
  • / ৪৪৬ বার পড়া হয়েছে

জয়পুরহাটে জামায়াতের ককটেল নিক্ষেপ: ৩ পুলিশ আহত

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মোঃ জিহাদ মন্ডল, পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি:

কেন্দ্রীয় ১০ দফা দাবীর কর্মসূচির অংশ হিসেবে জয়পুরহাটের বামনপুর সগুনা এলাকায় জামায়াতের মিছিল করার সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীরা ককটেল নিক্ষেপ করে। তাদের নিক্ষেপকৃত ককটেল বিস্ফোরণে ৩ পুলিশ আহত হয়। আহত ৩ পুলিশ সদস্যরা হলেন, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এস আই আমিরুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম ও এএস আই মাহমুদ। তাদেরকে আধুনিক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে।

পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে জয়পুরহাট জেলা ছাত্র শিবিরের সভাপতি আসাদুল ইসলাম আসাদ ও সাধারন সম্পাদক মামুনুর রশীদসহ জামায়াত-শিবিরের ১২ নেতা কর্মীকে আটক করে।
পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৬টি ককটেল, রড, লাঠি সহ ৬টি মোটর সাইকেল, ৬টি সাইকেল ও কর্মসূচির ব্যানার উদ্ধার করে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, সদর উপজেলা জামায়াতের আমীর শাহ আলম দেওয়ান (৪৫), জামায়াত নেতা নাহিদুল ইসলাম (৩০), জামায়াত কর্মী শহিদুল ইসলাম, আমিনুল ইসলাম, জেলা ছাত্র শিবিরের সভাপতি আসাদুল ইসলাম আসাদ, সাধারন সম্পাদক মামুনুর রশিদ, শিবির কর্মী মারুফ মেহেদী হাসান, মেশকাত শরীফ, সোহরাব আলী ও মেসি ড্রাইভার শিপন নুর নবী।
এ ঘটনার পর জেলা জামায়াতের আমীর ফজলুর রহমান সাঈদ ও পাঁচবিবি উপজেলা উপজেলা জামায়াতের আমিরসহ অজ্ঞাত ৬০/৭০ জন নেতাকর্মী পলাতক রয়েছে।

জয়পুরহাট পুলিশ সুপার মোহাম্মদ নূরে আলম জানান, ‘শনিবার ভোরে জামায়াত-শিবিরের শতাধিক নেতাকর্মীরা মিছিল করছিল। এ সময় পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌছলে পুলিশকে লক্ষ্য করে তারা ককটেল নিক্ষেপ করলে ৩ পুলিশ সদস্য আহত হয়। এসময় জামায়াত-শিবিরের ১২ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’

নিউজটি শেয়ার করুন

জয়পুরহাটে জামায়াতের ককটেল নিক্ষেপ: ৩ পুলিশ আহত

আপডেট সময় : ০৪:০০:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০২২

মোঃ জিহাদ মন্ডল, পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি:

কেন্দ্রীয় ১০ দফা দাবীর কর্মসূচির অংশ হিসেবে জয়পুরহাটের বামনপুর সগুনা এলাকায় জামায়াতের মিছিল করার সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীরা ককটেল নিক্ষেপ করে। তাদের নিক্ষেপকৃত ককটেল বিস্ফোরণে ৩ পুলিশ আহত হয়। আহত ৩ পুলিশ সদস্যরা হলেন, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এস আই আমিরুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম ও এএস আই মাহমুদ। তাদেরকে আধুনিক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে।

পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে জয়পুরহাট জেলা ছাত্র শিবিরের সভাপতি আসাদুল ইসলাম আসাদ ও সাধারন সম্পাদক মামুনুর রশীদসহ জামায়াত-শিবিরের ১২ নেতা কর্মীকে আটক করে।
পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৬টি ককটেল, রড, লাঠি সহ ৬টি মোটর সাইকেল, ৬টি সাইকেল ও কর্মসূচির ব্যানার উদ্ধার করে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, সদর উপজেলা জামায়াতের আমীর শাহ আলম দেওয়ান (৪৫), জামায়াত নেতা নাহিদুল ইসলাম (৩০), জামায়াত কর্মী শহিদুল ইসলাম, আমিনুল ইসলাম, জেলা ছাত্র শিবিরের সভাপতি আসাদুল ইসলাম আসাদ, সাধারন সম্পাদক মামুনুর রশিদ, শিবির কর্মী মারুফ মেহেদী হাসান, মেশকাত শরীফ, সোহরাব আলী ও মেসি ড্রাইভার শিপন নুর নবী।
এ ঘটনার পর জেলা জামায়াতের আমীর ফজলুর রহমান সাঈদ ও পাঁচবিবি উপজেলা উপজেলা জামায়াতের আমিরসহ অজ্ঞাত ৬০/৭০ জন নেতাকর্মী পলাতক রয়েছে।

জয়পুরহাট পুলিশ সুপার মোহাম্মদ নূরে আলম জানান, ‘শনিবার ভোরে জামায়াত-শিবিরের শতাধিক নেতাকর্মীরা মিছিল করছিল। এ সময় পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌছলে পুলিশকে লক্ষ্য করে তারা ককটেল নিক্ষেপ করলে ৩ পুলিশ সদস্য আহত হয়। এসময় জামায়াত-শিবিরের ১২ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’