ঢাকা ০১:০৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

চ্যাম্পিয়নস লিগের আগে আবারও ধাক্কা খেল পিএসজি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৫৯:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • / ৪২৯ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

স্পোর্টস ডেস্ক : 

সময়টা একেবারেই ভালো কাটছে না প্যারি সেইন্ট জার্মেইর। দুঃসময় যেন পিছু ছাড়ছে না পিএসজির। কিছুদিন পরই চ্যাম্পিয়নস লিগে বায়ার্ন মিউনিখের মুখোমুখি হবে তারা।

দলের অন্যতম সেরা দুই তারকা কিলিয়ান এমবাপে এবং লিওনেল মেসি চোটে পড়ে মাঠের বাইরে। আর এমন সময়েই টানা দ্বিতীয় ম্যাচে হারের মুখ দেখল পিএসজি। অলিম্পিক মার্সেইর কাছে হেরে ফ্রেঞ্চ কাপ থেকে বিদায় নেওয়ার পরের ম্যাচে লিগ ওয়ানে এএস মোনাকোর কাছে ৩-১ গোলের ব্যবধানে হেরেছে পিএসজি। মোনাকোর হয়ে জোড়া গোল করনে বেন ইয়াডের আর একটি গোল করেন গোলোভিন। পিএসজির হয়ে একটি গোল শোধক রেন যাইরে এমরে।

ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে মৌসুমের প্রথমার্ধ ধরাছোঁয়ার বাইরেই ছিল পিএসজি। তবে মৌসুমের দ্বিতীয়ার্ধে এসে বারবার হোঁচট খেতে হচ্ছে মেসি-নেইমার-এমবাপেদের। বিশ্বকাপের বিরতির আগে লিগ ওয়ানে যেখানে অপরাজিত ছিল পিএসজি। সেখানে জানুয়ারি থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত খেলা ৭ ম্যাচের তিনটিতে হেরেছে পিএসজি আর ড্র করেছে একটিতে। হারের শেষটি এসেছে এএস মোনাকোর বিপক্ষে।

লিগ ওয়ানে পিএসজির তৃতীয় হার এসেছে লিগে দ্বিতীয় স্থানে থাকা মোনাকর বিপক্ষে। চলতি মৌসুমে ২৩ ম্যাচে ১৭ জয় আর তিনটি করে ড্র এবং হারে ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে যথারীতি শীর্ষে অবস্থান করছে পিএসজি। সমান ম্যাচে ১৪ জয় ৫ ড্র আর ৪ হারে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে পিএসজির ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে মোনাকো। এক ম্যাচ কম খেলে ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে মার্সেই।

চোটে পড়া এমবাপে আর লিওনেল মেসির অনুপস্থিতিতে নিজের ছায়া হয়ে ছিলেন নেইমার। আর তারই সুযোগ নিয়ে পিএসজিকে উড়িয়ে দিল মোনাকো। ম্যাচের চার মিনিটের মাথায় ডি বক্সে জটলার মধ্যে থেকে শটে গোলটি করেন রাশিয়ার মিডফিল্ডার আলেক্সান্ডার গোলোভিন। চতুর্দশ মিনিটে বিপদ হতে পারত আবার। কাছ থেকে কাইয়ো হেনরিকের ডাইভিং হেড ক্ষিপ্রতায় ফিরিয়ে দেন ডন্নারুম্মা।

তবে ব্যবধান দ্বিগুন করতে বেশি সময় অপেক্ষা করতে হয়নি মোনাকোকে। চার মিনিট পরই ব্যবধান দ্বিগুণ করে ফেলে স্বাগতিকরা। পিএসজির ডিফেন্ডার চাদিয়েল বাতশিয়াবুকে বক্সের বাইরে ট্যাকল করে বল কেড়ে নেন ক্রেপিন দিয়াতা আর কোনাকুনি শটে জালে পাঠান উইসাম বেন ইয়াডের। দুই গোলে এগিয়ে গিয়েও তৃতীয় গোলের জন্য মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে মোনাকো। তবে উল্টো ৩৯ মিনিটে ব্যবধান কমায় পিএসজি। কার্লোস সলার ডি বক্সের বা-দিকে পাস দেন হুয়ান বের্নাটকে। তার পাস অন্য পাশে ফাঁকায় পেয়ে জালে পাঠান মিডফিল্ডার এমেরি।

এর মিনিট দুই পরে অবশ্য আবারও ব্যবধান বাড়ান বেন ইয়াডের। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে বেন ইয়াডের দ্বিতীয় গোলে লিড আবার দুই গোলে নিয়ে যায় মোনাকো। সতীর্থের থ্রু বল বক্সে পেয়ে ডান পায়ের শটে লক্ষ্যভেদ করেন অভিজ্ঞ ফ্রেঞ্চ স্ট্রাইকার।

দ্বিতীয়ার্ধে ফিরেও আক্রমণের ধার ধরে রাখে মোনাকো। বেশ কয়েকটি সুযোগও তৈরি করে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর ব্যবধান বাড়াতে পারেনি মোনাকো। আর পিএসজিও পারেনি গোল শোধ করে ম্যাচে ফিরতে। এতেই ৩-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে মোনাকো।

ম্যাচের পরিসংখ্যান দেখলেই মোনাকো নিজেদের কতটা দাপট দেখিয়েছে তার চিত্র মেলে। ১৯টি শটের মধ্যে ৯টিই ছিল গোল অভিমুখে। অন্যদিকে ৭ শটের মধ্যে মাত্র দুটি লক্ষ্যে ছিল পিএসজির।

এ নিয়ে ২৩ ম্যাচের তৃতীয় হারের স্বাদ পেল গ্যালতিয়ের দল। তবে এখনো লিগের পয়েন্ট টেবিলে ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে ক্লাবটি। সমান ম্যাচ খেলে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে মোনাকো এবং মার্সেই উঠে এসেছে তিনে।

নিউজটি শেয়ার করুন

চ্যাম্পিয়নস লিগের আগে আবারও ধাক্কা খেল পিএসজি

আপডেট সময় : ১২:৫৯:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

স্পোর্টস ডেস্ক : 

সময়টা একেবারেই ভালো কাটছে না প্যারি সেইন্ট জার্মেইর। দুঃসময় যেন পিছু ছাড়ছে না পিএসজির। কিছুদিন পরই চ্যাম্পিয়নস লিগে বায়ার্ন মিউনিখের মুখোমুখি হবে তারা।

দলের অন্যতম সেরা দুই তারকা কিলিয়ান এমবাপে এবং লিওনেল মেসি চোটে পড়ে মাঠের বাইরে। আর এমন সময়েই টানা দ্বিতীয় ম্যাচে হারের মুখ দেখল পিএসজি। অলিম্পিক মার্সেইর কাছে হেরে ফ্রেঞ্চ কাপ থেকে বিদায় নেওয়ার পরের ম্যাচে লিগ ওয়ানে এএস মোনাকোর কাছে ৩-১ গোলের ব্যবধানে হেরেছে পিএসজি। মোনাকোর হয়ে জোড়া গোল করনে বেন ইয়াডের আর একটি গোল করেন গোলোভিন। পিএসজির হয়ে একটি গোল শোধক রেন যাইরে এমরে।

ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে মৌসুমের প্রথমার্ধ ধরাছোঁয়ার বাইরেই ছিল পিএসজি। তবে মৌসুমের দ্বিতীয়ার্ধে এসে বারবার হোঁচট খেতে হচ্ছে মেসি-নেইমার-এমবাপেদের। বিশ্বকাপের বিরতির আগে লিগ ওয়ানে যেখানে অপরাজিত ছিল পিএসজি। সেখানে জানুয়ারি থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত খেলা ৭ ম্যাচের তিনটিতে হেরেছে পিএসজি আর ড্র করেছে একটিতে। হারের শেষটি এসেছে এএস মোনাকোর বিপক্ষে।

লিগ ওয়ানে পিএসজির তৃতীয় হার এসেছে লিগে দ্বিতীয় স্থানে থাকা মোনাকর বিপক্ষে। চলতি মৌসুমে ২৩ ম্যাচে ১৭ জয় আর তিনটি করে ড্র এবং হারে ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে যথারীতি শীর্ষে অবস্থান করছে পিএসজি। সমান ম্যাচে ১৪ জয় ৫ ড্র আর ৪ হারে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে পিএসজির ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে মোনাকো। এক ম্যাচ কম খেলে ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে মার্সেই।

চোটে পড়া এমবাপে আর লিওনেল মেসির অনুপস্থিতিতে নিজের ছায়া হয়ে ছিলেন নেইমার। আর তারই সুযোগ নিয়ে পিএসজিকে উড়িয়ে দিল মোনাকো। ম্যাচের চার মিনিটের মাথায় ডি বক্সে জটলার মধ্যে থেকে শটে গোলটি করেন রাশিয়ার মিডফিল্ডার আলেক্সান্ডার গোলোভিন। চতুর্দশ মিনিটে বিপদ হতে পারত আবার। কাছ থেকে কাইয়ো হেনরিকের ডাইভিং হেড ক্ষিপ্রতায় ফিরিয়ে দেন ডন্নারুম্মা।

তবে ব্যবধান দ্বিগুন করতে বেশি সময় অপেক্ষা করতে হয়নি মোনাকোকে। চার মিনিট পরই ব্যবধান দ্বিগুণ করে ফেলে স্বাগতিকরা। পিএসজির ডিফেন্ডার চাদিয়েল বাতশিয়াবুকে বক্সের বাইরে ট্যাকল করে বল কেড়ে নেন ক্রেপিন দিয়াতা আর কোনাকুনি শটে জালে পাঠান উইসাম বেন ইয়াডের। দুই গোলে এগিয়ে গিয়েও তৃতীয় গোলের জন্য মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে মোনাকো। তবে উল্টো ৩৯ মিনিটে ব্যবধান কমায় পিএসজি। কার্লোস সলার ডি বক্সের বা-দিকে পাস দেন হুয়ান বের্নাটকে। তার পাস অন্য পাশে ফাঁকায় পেয়ে জালে পাঠান মিডফিল্ডার এমেরি।

এর মিনিট দুই পরে অবশ্য আবারও ব্যবধান বাড়ান বেন ইয়াডের। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে বেন ইয়াডের দ্বিতীয় গোলে লিড আবার দুই গোলে নিয়ে যায় মোনাকো। সতীর্থের থ্রু বল বক্সে পেয়ে ডান পায়ের শটে লক্ষ্যভেদ করেন অভিজ্ঞ ফ্রেঞ্চ স্ট্রাইকার।

দ্বিতীয়ার্ধে ফিরেও আক্রমণের ধার ধরে রাখে মোনাকো। বেশ কয়েকটি সুযোগও তৈরি করে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর ব্যবধান বাড়াতে পারেনি মোনাকো। আর পিএসজিও পারেনি গোল শোধ করে ম্যাচে ফিরতে। এতেই ৩-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে মোনাকো।

ম্যাচের পরিসংখ্যান দেখলেই মোনাকো নিজেদের কতটা দাপট দেখিয়েছে তার চিত্র মেলে। ১৯টি শটের মধ্যে ৯টিই ছিল গোল অভিমুখে। অন্যদিকে ৭ শটের মধ্যে মাত্র দুটি লক্ষ্যে ছিল পিএসজির।

এ নিয়ে ২৩ ম্যাচের তৃতীয় হারের স্বাদ পেল গ্যালতিয়ের দল। তবে এখনো লিগের পয়েন্ট টেবিলে ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে ক্লাবটি। সমান ম্যাচ খেলে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে মোনাকো এবং মার্সেই উঠে এসেছে তিনে।