ঢাকা ০৩:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

চূড়ান্ত আন্দোলনে বিজয় হবে, ইনশাআল্লাহ : মির্জা ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ১১:৩৬:৫৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ মার্চ ২০২৪
  • / ৪৬৭ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আন্দোলন-সংগ্রামে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সকল গণতান্ত্রিক শক্তিকে সঙ্গে নিয়ে একদফার আন্দোলন আমাদের চূড়ান্ত আন্দোলনের দিকে ধাবিত হবে। সেই চূড়ান্ত আন্দোলনে বিজয় হবে, ইনশাআল্লাহ।

আজ বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) রাজধানীর লেডিস ক্লাবের এক ইফতার মাহফিলে সভাপতির বক্তব্যে মির্জা ফখরুল ইসলাম এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দর সম্মানে এ ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে বিএনপি। ইফতার মাহফিল রাজনৈতিক মিলনমেলায় পরিণত হয়।

মির্জা ফখরুল বলেন, দেশের মানুষ ও গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক শক্তি দেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য সংগ্রাম করে আসছে। সরকার রাষ্ট্রীয়যন্ত্র ব্যবহার করে, দমন-পীড়ন করে ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করে রেখেছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা একটা কঠিন সময় অতিক্রম করছি। একটা দুঃসময় অতিক্রম করছি। ফ্যাসিবাদী শক্তি সমস্ত জাতির ওপর চেপে ধরে বসে আছে। আমাদের সকল আশা আকাঙ্ক্ষাগুলো ব্যর্থ করে দিয়ে এক দলীয় শাসন ব্যবস্থা চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চলছে। এ অবস্থার প্রেক্ষিতে আমরা আন্দোলন-সংগ্রাম শুরু করেছি।

ইফতার মাহফিলে জামায়াতে ইসলামীর আমির ডা. শফিকুর রহমান, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান, সেলিমা রহমান, বিএফইউজের একাংশের সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসানুল হুদা, এবি পার্টির আহ্বায়ক এ এফ এম সোলায়মান চৌধুরী, এলডিপির মহাসচিব শাহাদাত সেলিম, জাগপার একাংশের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার লুৎফর রহমান, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না প্রমুখ বক্তব্য দেন।

এতে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আলতাফ হোসেন চৌধুরী, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা খলিলুর রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন ভূইয়া, জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) মহাসচিব আহসান হাবীব লিংকন, গণঅধিকার পরিষদের আহ্বায়ক কর্নেল ড. মশিউজ্জামান, জাগপার সিনিয়র সহ সভাপতি রাশেদ প্রধান, কল্যাণ পার্টির মহাসচিব মুহাম্মদ আবু হানিফ, গণঅধিকার পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রাশেদ খান, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন, অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন, অ্যাডভোকেট আহমেদ আযম খান, যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম, নির্বাহী কমিটির সদস্য ফজলুর রহমান খোকন, মৎস্যজীবী দলের সদস্য সচিব আব্দুর রহিম, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন নাছির, সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া মো. গোলাম পরওয়ার, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা আব্দুল হালিম, নায়েবে আমির ড. সৈয়দ আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের, এনডিএম এর চেয়ারম্যান ববি হাজ্জাজ প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

চূড়ান্ত আন্দোলনে বিজয় হবে, ইনশাআল্লাহ : মির্জা ফখরুল

আপডেট সময় : ১১:৩৬:৫৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ মার্চ ২০২৪

আন্দোলন-সংগ্রামে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সকল গণতান্ত্রিক শক্তিকে সঙ্গে নিয়ে একদফার আন্দোলন আমাদের চূড়ান্ত আন্দোলনের দিকে ধাবিত হবে। সেই চূড়ান্ত আন্দোলনে বিজয় হবে, ইনশাআল্লাহ।

আজ বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) রাজধানীর লেডিস ক্লাবের এক ইফতার মাহফিলে সভাপতির বক্তব্যে মির্জা ফখরুল ইসলাম এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দর সম্মানে এ ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে বিএনপি। ইফতার মাহফিল রাজনৈতিক মিলনমেলায় পরিণত হয়।

মির্জা ফখরুল বলেন, দেশের মানুষ ও গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক শক্তি দেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য সংগ্রাম করে আসছে। সরকার রাষ্ট্রীয়যন্ত্র ব্যবহার করে, দমন-পীড়ন করে ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করে রেখেছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা একটা কঠিন সময় অতিক্রম করছি। একটা দুঃসময় অতিক্রম করছি। ফ্যাসিবাদী শক্তি সমস্ত জাতির ওপর চেপে ধরে বসে আছে। আমাদের সকল আশা আকাঙ্ক্ষাগুলো ব্যর্থ করে দিয়ে এক দলীয় শাসন ব্যবস্থা চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চলছে। এ অবস্থার প্রেক্ষিতে আমরা আন্দোলন-সংগ্রাম শুরু করেছি।

ইফতার মাহফিলে জামায়াতে ইসলামীর আমির ডা. শফিকুর রহমান, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান, সেলিমা রহমান, বিএফইউজের একাংশের সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসানুল হুদা, এবি পার্টির আহ্বায়ক এ এফ এম সোলায়মান চৌধুরী, এলডিপির মহাসচিব শাহাদাত সেলিম, জাগপার একাংশের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার লুৎফর রহমান, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না প্রমুখ বক্তব্য দেন।

এতে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আলতাফ হোসেন চৌধুরী, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা খলিলুর রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন ভূইয়া, জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) মহাসচিব আহসান হাবীব লিংকন, গণঅধিকার পরিষদের আহ্বায়ক কর্নেল ড. মশিউজ্জামান, জাগপার সিনিয়র সহ সভাপতি রাশেদ প্রধান, কল্যাণ পার্টির মহাসচিব মুহাম্মদ আবু হানিফ, গণঅধিকার পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রাশেদ খান, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন, অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন, অ্যাডভোকেট আহমেদ আযম খান, যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম, নির্বাহী কমিটির সদস্য ফজলুর রহমান খোকন, মৎস্যজীবী দলের সদস্য সচিব আব্দুর রহিম, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন নাছির, সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া মো. গোলাম পরওয়ার, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা আব্দুল হালিম, নায়েবে আমির ড. সৈয়দ আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের, এনডিএম এর চেয়ারম্যান ববি হাজ্জাজ প্রমুখ।