ঢাকা ১০:০৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

চিলমারীতে জমাজমি সংক্রান্ত জেরে সেচ পাম্প ভাঙচুর

চিলমারী( কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৬:১৯:৫১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৪৩৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলায় জমাজমি সংক্রান্ত পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শ্রী বিষ্ণুজিত বর্মনের মালিকানাধীন সেচের পানির পাম্পের ঘর ও সেচ মেশিন ভাঙচুর করে লুট করেছেন  প্রতিপক্ষরা। বৃহস্পতিবার (১৮এপ্রি ) থানাহাট ইউনিয়নের  বজরা তবকপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আমন ধানের চাষাবাদের জন্য বজরা তবকপুর  এলাকায় বিলে এ পাম্প নির্মাণ করা হয়।
এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ শ্রী বিষ্ণজিত বর্মন বাদী হয়ে ওই এলাকার শ্রী টুলু চন্দ্র বর্মন সহ চার জনের বিরুদ্ধে বিবাদী করে চিলমারী মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি দায়ের করেছেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে বিষ্ণজিত বর্মনের সাথে জায়গা-জমি নিয়া বিরোধ চলে আসছিল। বিবাদীরা তারই জের ধরে বাদীর উপর হামলা করে এবং তার চাষাবাদের মাধ্যম সেচ পাম্পের ঘর ভাঙ্গাচুর সহ মটর চুরির অভিযোগ উঠেছে।
স্থানীয় কৃষক আব্দুল জলিল বলেন, আমার আবাদি ৫৮ শতাংশ জমি সহ অনন্য গ্রাহক মিলে প্রায় ১০ একর আবাদি জমিতে পানি সেচের পাম্প ভেঙ্গে দেওয়ায় তারা এখন হতাশায় ভুগছেন। পানির অভাবে জমিতে ধান ক্ষেত শুকিয়ে যাচ্ছে।
১৮ এপ্রিল রাতের অন্ধকারে টুলু বর্মন নেতৃত্বে তার সন্ত্রাসী দলবল নিয়ে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বিলের মধ্যে থাকা পানি সেচের মোটরটি ভাঙচুর করে পালিয়ে যায়। এতে তার ২ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।
এ ব্যাপারে শ্রী বিষ্ণজিত বর্মন বলেন, টুলু সাথে দীর্ঘদিন ধরে জায়গা-জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। টুটু চন্দ্র সন্ত্রাসী দলবল নিয়ে রাতের অন্ধকারে আমার পানি সেচের মোটরটি ভাঙচুর করে চুরি করে নিয়ে যায়।
তিনি আরো বলেন, টুলু চন্দ্র এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। তার সাথে কেউ কোন প্রকার বিরোধ করতে চায় না। তিনি সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু বিচারের জোর দাবী জানান।
চিলমারী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোজাম্মেল হক জানান, শ্রী বিষ্ণজিত বর্মন নামে একজন সাধারণ ডায়েরি করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

চিলমারীতে জমাজমি সংক্রান্ত জেরে সেচ পাম্প ভাঙচুর

আপডেট সময় : ০৬:১৯:৫১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪
কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলায় জমাজমি সংক্রান্ত পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শ্রী বিষ্ণুজিত বর্মনের মালিকানাধীন সেচের পানির পাম্পের ঘর ও সেচ মেশিন ভাঙচুর করে লুট করেছেন  প্রতিপক্ষরা। বৃহস্পতিবার (১৮এপ্রি ) থানাহাট ইউনিয়নের  বজরা তবকপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আমন ধানের চাষাবাদের জন্য বজরা তবকপুর  এলাকায় বিলে এ পাম্প নির্মাণ করা হয়।
এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ শ্রী বিষ্ণজিত বর্মন বাদী হয়ে ওই এলাকার শ্রী টুলু চন্দ্র বর্মন সহ চার জনের বিরুদ্ধে বিবাদী করে চিলমারী মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি দায়ের করেছেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে বিষ্ণজিত বর্মনের সাথে জায়গা-জমি নিয়া বিরোধ চলে আসছিল। বিবাদীরা তারই জের ধরে বাদীর উপর হামলা করে এবং তার চাষাবাদের মাধ্যম সেচ পাম্পের ঘর ভাঙ্গাচুর সহ মটর চুরির অভিযোগ উঠেছে।
স্থানীয় কৃষক আব্দুল জলিল বলেন, আমার আবাদি ৫৮ শতাংশ জমি সহ অনন্য গ্রাহক মিলে প্রায় ১০ একর আবাদি জমিতে পানি সেচের পাম্প ভেঙ্গে দেওয়ায় তারা এখন হতাশায় ভুগছেন। পানির অভাবে জমিতে ধান ক্ষেত শুকিয়ে যাচ্ছে।
১৮ এপ্রিল রাতের অন্ধকারে টুলু বর্মন নেতৃত্বে তার সন্ত্রাসী দলবল নিয়ে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বিলের মধ্যে থাকা পানি সেচের মোটরটি ভাঙচুর করে পালিয়ে যায়। এতে তার ২ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।
এ ব্যাপারে শ্রী বিষ্ণজিত বর্মন বলেন, টুলু সাথে দীর্ঘদিন ধরে জায়গা-জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। টুটু চন্দ্র সন্ত্রাসী দলবল নিয়ে রাতের অন্ধকারে আমার পানি সেচের মোটরটি ভাঙচুর করে চুরি করে নিয়ে যায়।
তিনি আরো বলেন, টুলু চন্দ্র এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। তার সাথে কেউ কোন প্রকার বিরোধ করতে চায় না। তিনি সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু বিচারের জোর দাবী জানান।
চিলমারী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোজাম্মেল হক জানান, শ্রী বিষ্ণজিত বর্মন নামে একজন সাধারণ ডায়েরি করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
বাখ//আর