ঢাকা ০১:০৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

চিনি রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা বাড়াল ভারত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:০৩:৩৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৫১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 
ভারত বিশ্বের বৃহত্তম চিনি উৎপাদনকারী এবং দ্বিতীয় বৃহত্তম চিনি রফতানিকারক দেশ। বিশ্বের বৃহত্তম চিনি উৎপাদনকারী দেশ ভারত তাদের চিনি রফতানিতে বিধিনিষেধের মেয়াদ আরো এক বছরের জন্য বাড়িয়েছে। অর্থাৎ ২০২৩ সালের অক্টোবর পর্যন্ত চিনি রফতানিতে বিধিনিষেধ বলবৎ রাখবে দেশটি।

শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) ভারত সরকার বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়ানোর এ ঘোষণা দিয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স।

দেশে চিনির মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতে চলতি বছরের মে মাসে চিনি রফতানিতে বিধিনিষেধ জারি করে ভারত সরকার। তখন বলা হয়েছিল এ বছরের অক্টোবর পর্যন্ত বড়জোর এক কোটি টন চিনি রফতানি করা হবে এবং রফতানির আগে ব্যবসায়ীদের সরকারের কাছে থেকে অনুমতি নিতে হবে। ওই ঘোষণার সাথে সাথেই আন্তর্জাতিক বাজারে চিনির দাম এক শতাংশ বেড়ে যায়।

চলতি মাসেই ভারত সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল এ বছর দেশটিতে রেকর্ড পরিমাণ চিনি উৎপাদিত হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ভারত বিশ্বের বৃহত্তম চিনি উৎপাদনকারী দেশ এবং দ্বিতীয় বৃহত্তম চিনি রফতানিকারক দেশ। ভারতের চেয়ে বেশি চিনি রফতানি করা একমাত্র দেশ ব্রাজিল।

ইউক্রেন যুদ্ধের জেরে বিশ্বের খাদ্যের বাজারে সঙ্কট চলছে বেশ কিছু দিন ধরে। তারই মধ্যে খাদ্য রপ্তানিতে এমন ঘোষণা এসেছে।

শুধু ভারতই নয়, যুদ্ধ শুরুর পর নিজের অভ্যন্তরীণ বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখার চিন্তায় আরো অনেক দেশই বেশ কিছু পণ্য রফতানিতে বিধিনিষেধ আরোপ করে; যার প্রভাব পড়ে বিশ্ববাজারে। যেমন ভারত চিনি ছাড়াও গম রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করে, মালয়েশিয়া মুরগি এং মুরগির মাংসের রফতানি কমিয়ে দেওয়ার ঘোষণা দেয়, ইন্দোনেশিয়া পাম অয়েল রফতানি বন্ধ করে দেয়।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

চিনি রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা বাড়াল ভারত

আপডেট সময় : ০৩:০৩:৩৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 
ভারত বিশ্বের বৃহত্তম চিনি উৎপাদনকারী এবং দ্বিতীয় বৃহত্তম চিনি রফতানিকারক দেশ। বিশ্বের বৃহত্তম চিনি উৎপাদনকারী দেশ ভারত তাদের চিনি রফতানিতে বিধিনিষেধের মেয়াদ আরো এক বছরের জন্য বাড়িয়েছে। অর্থাৎ ২০২৩ সালের অক্টোবর পর্যন্ত চিনি রফতানিতে বিধিনিষেধ বলবৎ রাখবে দেশটি।

শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) ভারত সরকার বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়ানোর এ ঘোষণা দিয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স।

দেশে চিনির মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতে চলতি বছরের মে মাসে চিনি রফতানিতে বিধিনিষেধ জারি করে ভারত সরকার। তখন বলা হয়েছিল এ বছরের অক্টোবর পর্যন্ত বড়জোর এক কোটি টন চিনি রফতানি করা হবে এবং রফতানির আগে ব্যবসায়ীদের সরকারের কাছে থেকে অনুমতি নিতে হবে। ওই ঘোষণার সাথে সাথেই আন্তর্জাতিক বাজারে চিনির দাম এক শতাংশ বেড়ে যায়।

চলতি মাসেই ভারত সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল এ বছর দেশটিতে রেকর্ড পরিমাণ চিনি উৎপাদিত হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ভারত বিশ্বের বৃহত্তম চিনি উৎপাদনকারী দেশ এবং দ্বিতীয় বৃহত্তম চিনি রফতানিকারক দেশ। ভারতের চেয়ে বেশি চিনি রফতানি করা একমাত্র দেশ ব্রাজিল।

ইউক্রেন যুদ্ধের জেরে বিশ্বের খাদ্যের বাজারে সঙ্কট চলছে বেশ কিছু দিন ধরে। তারই মধ্যে খাদ্য রপ্তানিতে এমন ঘোষণা এসেছে।

শুধু ভারতই নয়, যুদ্ধ শুরুর পর নিজের অভ্যন্তরীণ বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখার চিন্তায় আরো অনেক দেশই বেশ কিছু পণ্য রফতানিতে বিধিনিষেধ আরোপ করে; যার প্রভাব পড়ে বিশ্ববাজারে। যেমন ভারত চিনি ছাড়াও গম রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করে, মালয়েশিয়া মুরগি এং মুরগির মাংসের রফতানি কমিয়ে দেওয়ার ঘোষণা দেয়, ইন্দোনেশিয়া পাম অয়েল রফতানি বন্ধ করে দেয়।