ঢাকা ১০:৩৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

গাজায় হত্যাযজ্ঞ দিয়ে নতুন বছরকে স্বাগত ইসরায়েলের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০১:১১:০৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ৪৫১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিরস্ত্র ফিলিস্তিনিদের হত্যা জারি রেখে পুরানো বছর বিদায় দিয়ে ইংরেজি নতুন বছরকে স্বাগত জানিয়েছে দখলদার ইসরায়েলি বাহিনী। এদিকে, ইসরায়েলের সমর্থনে লোহিত সাগরে মার্কিন বাহিনীর হামলার ইয়মেনের হুতি বাহিনীর নৌযান ধ্বংস হয়ে নিহত হয়েছে অন্তত ১০ জন।

গাজায় স্থল ও বিমান বাহিনীর গোলাবর্ষণে ফিলিস্তিনিদের হত্যাযজ্ঞ রোববার রাতেও অব্যাহত রাখে ইসরায়েলি সেনারা। পশ্চিম তীরেও চলছে হামলা, হত্যা ও আটক অভিযান। রকেট ছুঁড়ে পাল্টা জবাব দিচ্ছে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী হামাস যোদ্ধারা।

ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ৮৫ দিনের আগ্রাসনে নিহত হয়েছে ২১ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি। আর ২৮ হাজার ৮২২ জন নিখোঁজ। গাজার খান ইউনিসে দখলদার স্থল বাহিনীর বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিরোধ গড়েছে হামাস যোদ্ধারা। এমন অবস্থায় গাজা থেকে স্থল বাহিনীর পাঁচটি ব্রিগেড প্রত্যাহার করছে ইসরায়েল।

একে দীর্ঘস্থায়ী যুদ্ধের জন্য বিশ্রামের সুযোগ বলেছে দেশটির সেনা সদর। আর ইংরেজি নতুন বছরে কারাগার থেকে ইসরায়েলের কয়েকজন রিজার্ভ সেনাকে মুক্তি দেয়ারও ঘোষণা এসেছে। গাজা যুদ্ধে যেতে না চাওয়ার শাস্তি হিসেবে কারাবন্দি করা হয়েছিলো তাদের।

যুদ্ধবিরোধী প্রতিবাদ কর্মসূচি অব্যাহত আছে তেল আবিবে। রবিবার গোয়েন্দা সংস্থা-মোসাদ প্রধানের গাড়ি বহর আবরোধ করে হামাসের হাত থেকে জিম্মিদের উদ্ধারের দাবি জানান বিক্ষুব্ধরা।

এদিকে, লোহিত সাগরে মার্কিন বাহিনীর হামলায় ক্ষয়ক্ষতি ও প্রাণহানির তথ্য স্বীকার করেছে ইয়েমেনের হুতি বাহিনী। শনিবার মার্কিন নৌ সেনাদের হামলায় হুতি বাহিনীর তিনটি নৌযান ধ্বংস হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

গাজায় হত্যাযজ্ঞ দিয়ে নতুন বছরকে স্বাগত ইসরায়েলের

আপডেট সময় : ০১:১১:০৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ জানুয়ারী ২০২৪

নিরস্ত্র ফিলিস্তিনিদের হত্যা জারি রেখে পুরানো বছর বিদায় দিয়ে ইংরেজি নতুন বছরকে স্বাগত জানিয়েছে দখলদার ইসরায়েলি বাহিনী। এদিকে, ইসরায়েলের সমর্থনে লোহিত সাগরে মার্কিন বাহিনীর হামলার ইয়মেনের হুতি বাহিনীর নৌযান ধ্বংস হয়ে নিহত হয়েছে অন্তত ১০ জন।

গাজায় স্থল ও বিমান বাহিনীর গোলাবর্ষণে ফিলিস্তিনিদের হত্যাযজ্ঞ রোববার রাতেও অব্যাহত রাখে ইসরায়েলি সেনারা। পশ্চিম তীরেও চলছে হামলা, হত্যা ও আটক অভিযান। রকেট ছুঁড়ে পাল্টা জবাব দিচ্ছে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী হামাস যোদ্ধারা।

ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ৮৫ দিনের আগ্রাসনে নিহত হয়েছে ২১ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি। আর ২৮ হাজার ৮২২ জন নিখোঁজ। গাজার খান ইউনিসে দখলদার স্থল বাহিনীর বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিরোধ গড়েছে হামাস যোদ্ধারা। এমন অবস্থায় গাজা থেকে স্থল বাহিনীর পাঁচটি ব্রিগেড প্রত্যাহার করছে ইসরায়েল।

একে দীর্ঘস্থায়ী যুদ্ধের জন্য বিশ্রামের সুযোগ বলেছে দেশটির সেনা সদর। আর ইংরেজি নতুন বছরে কারাগার থেকে ইসরায়েলের কয়েকজন রিজার্ভ সেনাকে মুক্তি দেয়ারও ঘোষণা এসেছে। গাজা যুদ্ধে যেতে না চাওয়ার শাস্তি হিসেবে কারাবন্দি করা হয়েছিলো তাদের।

যুদ্ধবিরোধী প্রতিবাদ কর্মসূচি অব্যাহত আছে তেল আবিবে। রবিবার গোয়েন্দা সংস্থা-মোসাদ প্রধানের গাড়ি বহর আবরোধ করে হামাসের হাত থেকে জিম্মিদের উদ্ধারের দাবি জানান বিক্ষুব্ধরা।

এদিকে, লোহিত সাগরে মার্কিন বাহিনীর হামলায় ক্ষয়ক্ষতি ও প্রাণহানির তথ্য স্বীকার করেছে ইয়েমেনের হুতি বাহিনী। শনিবার মার্কিন নৌ সেনাদের হামলায় হুতি বাহিনীর তিনটি নৌযান ধ্বংস হয়।