ঢাকা ১০:৫৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

গাঁজার বাগান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে 

কাশিয়ানী (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১১:২১:৫০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪
  • / ৫০৫ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে দেখা মিলেছে গাঁজা গাছের বাগান। হাসপাতালের স্টাফ কোয়ার্টারের পথের পাশে সবজির বাগান ও হাসপাতালের মূল গেট দিয়ে জরুরি বিভাগে যাওয়ার পথে অসংখ্য গাঁজা গাছের দেখা মেলে। এসব গাছ থেকে গন্ধ ছড়াচ্ছিল। এছাড়া হাসপাতালের উত্তর পার্শ্বের বদ্ধ জায়গাও ছোট-বড় অসংখ্য নেশাজাতীয় গাছ দেখা যায়।

খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে র‌্যাব-৬ এর কাশিয়ানী উপজেলার ভাটিয়াপাড়া ক্যাম্পের সদস্যরা জায়গাগুলো পরিদর্শন করে গাছগুলো তুলে নিয়ে যায়।
এ বিষয়ে হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডা. আমিনুল ইসলাম জানান, এই গাছ আগে আরও বেশি ছিল। অনেক গাছ কেটে পরিষ্কার করা হয়েছে। শিকড় থেকে আবার হয়।
সকলের সামনেই এই গাছগুলো বেড়ে উঠেছে।  তবে এটা গাঁজার গাছ নাকি ইন্ডিয়ান ভাং গাছ, তা আমাদের জানা ছিল না।
র‌্যাবের কাশিয়ানী উপজেলার ভাটিয়াপাড়া ক্যাম্প কমান্ডার মো. রাসেল সাংবাদিকদের বলেন, আমরা ১২শ’ নেশাজাতীয় গাছ উদ্ধার করে কাশিয়ানী থানায় হস্তান্তর করেছি। পুলিশ আদালতের আদেশ মোতাবেক ব্যবস্থা নেবে। তবে এগুলো গাঁজা বা ভাং গাছ কিনা তা এখনই বলা যাচ্ছেনা।
গোপালগঞ্জ বন সংরক্ষক বিবেকানন্দ বিশ্বাস এই গাছগুলোকে প্রাথমিকভাবে ভাং গাছ (নেশাজাতীয় গাছ) হিসাবে উল্লেখ করেন। অন্যদিকে, গোপালগঞ্জ সরকারি বঙ্গবন্ধু কলেজের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান সুকলাল বিশ্বাস এই গাছগুলো গাঁজা গাছ হিসাবে চিহ্নিত করেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

গাঁজার বাগান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে 

আপডেট সময় : ১১:২১:৫০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে দেখা মিলেছে গাঁজা গাছের বাগান। হাসপাতালের স্টাফ কোয়ার্টারের পথের পাশে সবজির বাগান ও হাসপাতালের মূল গেট দিয়ে জরুরি বিভাগে যাওয়ার পথে অসংখ্য গাঁজা গাছের দেখা মেলে। এসব গাছ থেকে গন্ধ ছড়াচ্ছিল। এছাড়া হাসপাতালের উত্তর পার্শ্বের বদ্ধ জায়গাও ছোট-বড় অসংখ্য নেশাজাতীয় গাছ দেখা যায়।

খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে র‌্যাব-৬ এর কাশিয়ানী উপজেলার ভাটিয়াপাড়া ক্যাম্পের সদস্যরা জায়গাগুলো পরিদর্শন করে গাছগুলো তুলে নিয়ে যায়।
এ বিষয়ে হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডা. আমিনুল ইসলাম জানান, এই গাছ আগে আরও বেশি ছিল। অনেক গাছ কেটে পরিষ্কার করা হয়েছে। শিকড় থেকে আবার হয়।
সকলের সামনেই এই গাছগুলো বেড়ে উঠেছে।  তবে এটা গাঁজার গাছ নাকি ইন্ডিয়ান ভাং গাছ, তা আমাদের জানা ছিল না।
র‌্যাবের কাশিয়ানী উপজেলার ভাটিয়াপাড়া ক্যাম্প কমান্ডার মো. রাসেল সাংবাদিকদের বলেন, আমরা ১২শ’ নেশাজাতীয় গাছ উদ্ধার করে কাশিয়ানী থানায় হস্তান্তর করেছি। পুলিশ আদালতের আদেশ মোতাবেক ব্যবস্থা নেবে। তবে এগুলো গাঁজা বা ভাং গাছ কিনা তা এখনই বলা যাচ্ছেনা।
গোপালগঞ্জ বন সংরক্ষক বিবেকানন্দ বিশ্বাস এই গাছগুলোকে প্রাথমিকভাবে ভাং গাছ (নেশাজাতীয় গাছ) হিসাবে উল্লেখ করেন। অন্যদিকে, গোপালগঞ্জ সরকারি বঙ্গবন্ধু কলেজের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান সুকলাল বিশ্বাস এই গাছগুলো গাঁজা গাছ হিসাবে চিহ্নিত করেছেন।