ঢাকা ০৩:২০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনায় ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ১০:৪৭:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ অক্টোবর ২০২৩
  • / ৫২৪ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে সরকার প্রধানের বক্তব্যকে অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ বলে দাবি করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এর তীব্র নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ব্যক্তিগত, রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক বক্তব্য রেখেছেন। প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বে থেকে এমন বক্তব্য কল্পনাও করা যায় না। এ দেশে প্রধানমন্ত্রীর বাইরে কেউ নেই। তিনি আইনাঙ্গন নিয়ন্ত্রণ করেন তাঁর বক্তব্যে থেকে তা প্রমাণিত হলো।’

সোমবার (৩ অক্টোবর) রাজধানীর গুলশান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এসব কথা বলেন।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, খালেদা জিয়ার লিভারের পর এখন কিডনির জটিলতা তৈরি হয়েছে। মেডিকেল বোর্ড বিদেশে আধুনিক বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসার পরামর্শ দিচ্ছেন, পরিবারকে চাপ দিচ্ছেন। বিএনপি সরকারের কাছে বারবার আবেদন করলেও সরকার সায় দিচ্ছে না। সরকার খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে দু’টি মামলায় সাজা দিয়ে কারাগারে পাঠিয়েছে।

মির্জা ফখরুল অভিযোগ করে বলেন, ‘আইনমন্ত্রী ৪০১ ধারার কথা বলে বিদেশে যেতে না দেয়ার কথা বলছেন। অথচ এক সময় আইনমন্ত্রী বলেছিলেন সাজা স্থগিত করে মুক্তি দেয়ার সুযোগ নেই। পরে আবার সেই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। অথচ দেশের আইনজ্ঞরা বলছেন সরকার চাইলে খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠাতে পারেন। আইনের কোনো ব্যাত্যয় হবে না। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর অনেক দৃষ্টান্ত বিশ্বে রয়েছে।’

বিএনপির মহাসচিব আরও বলেন, ‘আইনের দোহাই দিয়ে সরকার খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত রেখে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তাঁর চিকিৎসায় বাধা দেয়া অন্যায়, অমানবিক, অসাংবিধানিক। এখনই বিদেশে উন্নত চিকিৎসার সুযোগ করে দেয়া হোক, অন্যথায় নিষ্ঠুর আচরণের জন্য যেকোনো পরিস্থিতির দায় সরকারকে বহন করতে হবে।’

এসময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘কোনো শর্ত সাপেক্ষে খালেদা জিয়া বাইরে যাবেন না, এটা তার পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। শুধু খালেদা জিয়াকে অসুস্থ রেখে নয়, শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় রেখে বিএনপি কোনো নির্বাচনে যাবে না বলে জানান তিনি।’

নিউজটি শেয়ার করুন

খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনায় ফখরুল

আপডেট সময় : ১০:৪৭:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ অক্টোবর ২০২৩

খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে সরকার প্রধানের বক্তব্যকে অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ বলে দাবি করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এর তীব্র নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ব্যক্তিগত, রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক বক্তব্য রেখেছেন। প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বে থেকে এমন বক্তব্য কল্পনাও করা যায় না। এ দেশে প্রধানমন্ত্রীর বাইরে কেউ নেই। তিনি আইনাঙ্গন নিয়ন্ত্রণ করেন তাঁর বক্তব্যে থেকে তা প্রমাণিত হলো।’

সোমবার (৩ অক্টোবর) রাজধানীর গুলশান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এসব কথা বলেন।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, খালেদা জিয়ার লিভারের পর এখন কিডনির জটিলতা তৈরি হয়েছে। মেডিকেল বোর্ড বিদেশে আধুনিক বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসার পরামর্শ দিচ্ছেন, পরিবারকে চাপ দিচ্ছেন। বিএনপি সরকারের কাছে বারবার আবেদন করলেও সরকার সায় দিচ্ছে না। সরকার খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে দু’টি মামলায় সাজা দিয়ে কারাগারে পাঠিয়েছে।

মির্জা ফখরুল অভিযোগ করে বলেন, ‘আইনমন্ত্রী ৪০১ ধারার কথা বলে বিদেশে যেতে না দেয়ার কথা বলছেন। অথচ এক সময় আইনমন্ত্রী বলেছিলেন সাজা স্থগিত করে মুক্তি দেয়ার সুযোগ নেই। পরে আবার সেই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। অথচ দেশের আইনজ্ঞরা বলছেন সরকার চাইলে খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠাতে পারেন। আইনের কোনো ব্যাত্যয় হবে না। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর অনেক দৃষ্টান্ত বিশ্বে রয়েছে।’

বিএনপির মহাসচিব আরও বলেন, ‘আইনের দোহাই দিয়ে সরকার খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত রেখে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তাঁর চিকিৎসায় বাধা দেয়া অন্যায়, অমানবিক, অসাংবিধানিক। এখনই বিদেশে উন্নত চিকিৎসার সুযোগ করে দেয়া হোক, অন্যথায় নিষ্ঠুর আচরণের জন্য যেকোনো পরিস্থিতির দায় সরকারকে বহন করতে হবে।’

এসময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘কোনো শর্ত সাপেক্ষে খালেদা জিয়া বাইরে যাবেন না, এটা তার পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। শুধু খালেদা জিয়াকে অসুস্থ রেখে নয়, শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় রেখে বিএনপি কোনো নির্বাচনে যাবে না বলে জানান তিনি।’