ঢাকা ০৬:১৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে নয়াপল্টনে জড়ো হচ্ছেন নেতাকর্মীরা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:২৫:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২৩
  • / ৪৩৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

বিক্ষোভ সমাবেশে যোগ দিতে রাজধানীর নয়াপল্টনে খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে জড়ো হচ্ছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনসহ ১০ দফা দাবি আদায়ে বুধবার (২৫ জানুয়ারি) দেশব্যাপী বিক্ষোভ সমাবেশের অংশ হিসেবে ঢাকায় এ সমাবেশ শুরু হবে দুপুর ২টায়। বিএনপির মিত্র দলগুলোও ঢাকায় বিভিন্ন স্পটে এ কর্মসূচি পালন করবে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, দুপুর ১২টার পর থেকে নয়াপল্টন ও এর আশপাশের এলাকায় বিএনপি নেতাকর্মীদের ব্যাপক উপস্থিতি। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নয়াপল্টন সরগরম হয়ে উঠছে। দুপুর ২টায় অনুষ্ঠানিক কর্মসূচি শুরু হওয়ার কথা। দলীয় কার্যালয়ের সামনের সড়কে চারটি ট্রাকের ওপর অস্থায়ী মঞ্চ বানানো হয়েছে। সমাবেশ থেকে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে দুপুরের আগেই সরগরম হয়ে উঠেছে নয়াপল্টন এলাকা। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে আসা নেতাকর্মীদের অনেকের মাথায় শোভা পাচ্ছে লাল-সবুজ বা হলুদ রঙের টুপি। সমাবেশস্থল থেকে খালেদা জিয়াসহ দলের কারাবন্দি সব নেতাকর্মীর মুক্তির দাবিতে স্লোগান দেওয়া হচ্ছে।

এরই মধ্যে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে নেতাকর্মীরা সমাবেশস্থলে আসছেন। অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরাও পৃথক পৃথক ব্যানারে নয়াপল্টনের সামনের সড়কে মিছিল নিয়ে জড়ো হচ্ছেন।

সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ করে গণতন্ত্র মঞ্চ ও বাম গণতান্ত্রিক বাম ঐক্য। আরামবাগে পার্টি কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করবে মোস্তফা মোহসীন মন্টুর নেতৃত্বাধীন গণফোরাম ও বাংলাদেশ পিপলস পার্টি।

এদিকে বিএনপির সমাবেশ কর্মসূচি ঘিরে যে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নয়াপল্টন ও এর আশপাশের এলাকায় সকাল থেকে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। মোতায়েন করা হয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য। রয়েছে সাদা পোশাকধারী বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যরাও।

বাকশাল প্রতিষ্ঠার দিন ২৫ জানুয়ারি ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ আখ্যা দিয়ে ঢাকার বাইরে দেশের সব মহানগর ও জেলা সদরে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, দাবি আদায়ে ৪ ফেব্রুয়ারি সব মহানগর ও জেলায় নতুন বিক্ষোভ কর্মসূচির ঘোষণা আসতে পারে।
সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এছাড়া দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস ও সেলিমা রহমানসহ জ্যেষ্ঠ নেতারা উপস্থিত থাকবেন।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করবেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আবদুস সালাম। সঞ্চলনা করবেন ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সদস্য সচিব আমিনুল হক ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনু।

ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত রাজধানীর সমাবেশে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রধান অতিথি, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, ড. আবদুল মঈন খান ও সেলিমা রহমান বিশেষ অতিথি থাকবেন।

বিএনপির দপ্তর থেকে জানানো হয়, ঢাকার বাইরে মহানগর ও জেলার বিক্ষোভ কর্মসূচির প্রায় ১১টি স্থানে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত থাকবেন। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যদের মধ্যে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বরিশালে, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী চট্টগ্রামে, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু রাজশাহীতে, ভাইস চেয়ারম্যানদের মধ্যে বরকত উল্লাহ বুলু গাজীপুরে, মো. শাহজাহান কুমিল্লায়, অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন সিলেটে, শামসুজ্জামান দুদু ময়মনসিংহে, অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান রংপুরে, নিতাই রায় চৌধুরী খুলনায় এবং যুগ্ম মহাসচিবদের মধ্যে সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল নারায়ণগঞ্জে ও হাবিব উন নবী খান সোহেল ফরিদপুরে দলের বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

বিভাগীয় সাংগঠনিক ও সহসাংগঠনিক সম্পাদকরা কর্মসূচিগুলো সমন্বয় করবেন। তারা তাদের সুবিধা অনুযায়ী ইউনিটের কর্মসূচিতে উপস্থিত থাকবেন।

বিএনপির মিত্রর দলগুলোর মধ্যে ১২-দলীয় জোট রাজধানীর বিজয়গর পানির ট্যাংকির নিচে বেলা ৩টায়, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি) এফডিসি সংলগ্ন পার্টি অফিসের সামনে বেলা আড়াইটায়, জাতীয়তাবাদী সমমনা জোট জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বেলা ৩টায় বিক্ষোভ করার কথা জানিয়েছে তাদের পৃথক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।

নিউজটি শেয়ার করুন

খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে নয়াপল্টনে জড়ো হচ্ছেন নেতাকর্মীরা

আপডেট সময় : ০২:২৫:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

বিক্ষোভ সমাবেশে যোগ দিতে রাজধানীর নয়াপল্টনে খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে জড়ো হচ্ছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনসহ ১০ দফা দাবি আদায়ে বুধবার (২৫ জানুয়ারি) দেশব্যাপী বিক্ষোভ সমাবেশের অংশ হিসেবে ঢাকায় এ সমাবেশ শুরু হবে দুপুর ২টায়। বিএনপির মিত্র দলগুলোও ঢাকায় বিভিন্ন স্পটে এ কর্মসূচি পালন করবে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, দুপুর ১২টার পর থেকে নয়াপল্টন ও এর আশপাশের এলাকায় বিএনপি নেতাকর্মীদের ব্যাপক উপস্থিতি। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নয়াপল্টন সরগরম হয়ে উঠছে। দুপুর ২টায় অনুষ্ঠানিক কর্মসূচি শুরু হওয়ার কথা। দলীয় কার্যালয়ের সামনের সড়কে চারটি ট্রাকের ওপর অস্থায়ী মঞ্চ বানানো হয়েছে। সমাবেশ থেকে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে দুপুরের আগেই সরগরম হয়ে উঠেছে নয়াপল্টন এলাকা। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে আসা নেতাকর্মীদের অনেকের মাথায় শোভা পাচ্ছে লাল-সবুজ বা হলুদ রঙের টুপি। সমাবেশস্থল থেকে খালেদা জিয়াসহ দলের কারাবন্দি সব নেতাকর্মীর মুক্তির দাবিতে স্লোগান দেওয়া হচ্ছে।

এরই মধ্যে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে নেতাকর্মীরা সমাবেশস্থলে আসছেন। অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরাও পৃথক পৃথক ব্যানারে নয়াপল্টনের সামনের সড়কে মিছিল নিয়ে জড়ো হচ্ছেন।

সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ করে গণতন্ত্র মঞ্চ ও বাম গণতান্ত্রিক বাম ঐক্য। আরামবাগে পার্টি কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করবে মোস্তফা মোহসীন মন্টুর নেতৃত্বাধীন গণফোরাম ও বাংলাদেশ পিপলস পার্টি।

এদিকে বিএনপির সমাবেশ কর্মসূচি ঘিরে যে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নয়াপল্টন ও এর আশপাশের এলাকায় সকাল থেকে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। মোতায়েন করা হয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য। রয়েছে সাদা পোশাকধারী বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যরাও।

বাকশাল প্রতিষ্ঠার দিন ২৫ জানুয়ারি ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ আখ্যা দিয়ে ঢাকার বাইরে দেশের সব মহানগর ও জেলা সদরে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, দাবি আদায়ে ৪ ফেব্রুয়ারি সব মহানগর ও জেলায় নতুন বিক্ষোভ কর্মসূচির ঘোষণা আসতে পারে।
সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এছাড়া দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস ও সেলিমা রহমানসহ জ্যেষ্ঠ নেতারা উপস্থিত থাকবেন।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করবেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আবদুস সালাম। সঞ্চলনা করবেন ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সদস্য সচিব আমিনুল হক ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনু।

ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত রাজধানীর সমাবেশে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রধান অতিথি, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, ড. আবদুল মঈন খান ও সেলিমা রহমান বিশেষ অতিথি থাকবেন।

বিএনপির দপ্তর থেকে জানানো হয়, ঢাকার বাইরে মহানগর ও জেলার বিক্ষোভ কর্মসূচির প্রায় ১১টি স্থানে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত থাকবেন। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যদের মধ্যে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বরিশালে, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী চট্টগ্রামে, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু রাজশাহীতে, ভাইস চেয়ারম্যানদের মধ্যে বরকত উল্লাহ বুলু গাজীপুরে, মো. শাহজাহান কুমিল্লায়, অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন সিলেটে, শামসুজ্জামান দুদু ময়মনসিংহে, অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান রংপুরে, নিতাই রায় চৌধুরী খুলনায় এবং যুগ্ম মহাসচিবদের মধ্যে সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল নারায়ণগঞ্জে ও হাবিব উন নবী খান সোহেল ফরিদপুরে দলের বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

বিভাগীয় সাংগঠনিক ও সহসাংগঠনিক সম্পাদকরা কর্মসূচিগুলো সমন্বয় করবেন। তারা তাদের সুবিধা অনুযায়ী ইউনিটের কর্মসূচিতে উপস্থিত থাকবেন।

বিএনপির মিত্রর দলগুলোর মধ্যে ১২-দলীয় জোট রাজধানীর বিজয়গর পানির ট্যাংকির নিচে বেলা ৩টায়, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি) এফডিসি সংলগ্ন পার্টি অফিসের সামনে বেলা আড়াইটায়, জাতীয়তাবাদী সমমনা জোট জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বেলা ৩টায় বিক্ষোভ করার কথা জানিয়েছে তাদের পৃথক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।