ঢাকা ০৬:১৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ক্যান্সার আক্রান্ত কলেজ ছাত্র মাসুদ বাঁচতে চান

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০১:০৯:৩০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ জুন ২০২৪
  • / ৪৭৪ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

টাকার অভাবে চিকিৎসা বন্ধ। তীব্র ব্যাথা আর অসহনীয় যন্ত্রনায় দিনে-রাতে ঘুমাতে পারছিনা। মৃত্যু যন্ত্রনায় ছটফট করছি। একটা বছর ধরে আমি এইভাবে বাইচ্ছা আছি। বন্ধু-বান্ধব আর আত্মীয়-স্বজন মিলে এতদিন আমার চিকিৎসার খরচ চালিয়েছে। এখন টাকার অভাবে ছয়মাস ধরে চিকিৎসা বন্ধ। যতই দিন যাচ্ছে ততই আমার শরীরের অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছে। আমাকে সবাই আরেকটু সাহায্য করুন। আমি বেঁচে থাকতে চাই। পৃথিবীতে মা ছাড়া আমার কেউ নেই। আপনারা আমার পাশে দাঁড়ান।

এমন আকুতি জানিয়ে কথাগুলো বলছিলেন এক বছর ধরে গলার ডান পাশে মরনব্যাধি ক্যান্সার নিয়ে বসবাস করা হতদরিদ্র কলেজ ছাত্র মাসুদ রানা। মাসুদ রানার বাড়ি কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার চরফরাদী গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের মৃত চাঁন মিয়ার ছেলে। তিনি পাকুন্দিয়া সরকারি কলেজের ডিগ্রী দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

মাসুদ ও তাঁর পরিবার থেকে জানা যায়, গত বছরের জুন মাসের দিকে তাঁর গলার ডান পাশে একটি ছোট গোটার মতো হয়। এতে স্থানীয়ভাবে বিভিন্ন চিকিৎসা করান। কিন্তু তাতে কাজ হয়নি। ছোট গোটাটি ধীরে ধীরে তা বড় হয়ে টিউমারে রুপ নেয়। এতে দিশেহারা হয়ে পড়ে তাঁর পরিবার। কিন্তু কী করবেন হতদরিদ্র পরিবার। ভেবে ওঠতে পারছিলেন না। এমন সময় এগিয়ে আসেন মাসুদ রানার সহপাঠী, বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়-স্বজন। তাঁদের সহযোগীতায় ঢাকার মহাখালী সরকারি ক্যান্সার হাসপাতালে নিয়ে ডাক্তার দেখান। সেখানে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর মাসুদ রানার গলায় ক্যান্সার শনাক্ত হয়। এরপর চিকিৎসার জন্য ওই হাসপাতালেই ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে মাসুদ রানা। ডাক্তার বলেছেন মাসুদ রানার সুস্থ্য হতে ছয় সাইকেল হাই পাওয়ারের কেমো থেরাপি লাগবে। এতে তাঁর প্রায় ছয় লাখ টাকার দরকার। কিন্তু কোথায় থেকে এত টাকা জোগাড় করবে তাঁর পরিবার। বর্তমানে পরিবারের পক্ষে তাঁর চিকিৎসার ব্যায় বহন করা সম্ভব হচ্ছে না। এ অবস্থায় তাঁর পরিবার কলেজ ছাত্র মাসুদ রানাকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবান ব্যাক্তিদের প্রতি মানবিক সহায়তার আবেদন জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে পাকুন্দিয়া উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আ ত ম রুকনুজ্জামান (অ.দা.) বলেন, তার পরিবারের পক্ষ থেকে আমাদের কাছে আবেদন করলে আমাদের দপ্তর থেকে তার চিকিৎসার জন্য ৫০ হাজার টাকা দেওয়া যাবে। এ টাকা পেতে আমাদের পক্ষ থেকে যা যা করার সবই করা করা হবে।

সহায়তা পাঠানোর মাধ্যম্যে মাসুদ রানার ব্যাক্তিগত বিকাশ নম্বর- ০১৭২৭১৫৯১৪৭, নগদ- ০১৪০৪৫৫৩৪৯১, ব্যাংক হিসাব- ৩৪১৭৩০১০২৩০২৩ (সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, পাকুন্দিয়া শাখা, কিশোরগঞ্জ)।

নিউজটি শেয়ার করুন

ক্যান্সার আক্রান্ত কলেজ ছাত্র মাসুদ বাঁচতে চান

আপডেট সময় : ০১:০৯:৩০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ জুন ২০২৪

টাকার অভাবে চিকিৎসা বন্ধ। তীব্র ব্যাথা আর অসহনীয় যন্ত্রনায় দিনে-রাতে ঘুমাতে পারছিনা। মৃত্যু যন্ত্রনায় ছটফট করছি। একটা বছর ধরে আমি এইভাবে বাইচ্ছা আছি। বন্ধু-বান্ধব আর আত্মীয়-স্বজন মিলে এতদিন আমার চিকিৎসার খরচ চালিয়েছে। এখন টাকার অভাবে ছয়মাস ধরে চিকিৎসা বন্ধ। যতই দিন যাচ্ছে ততই আমার শরীরের অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছে। আমাকে সবাই আরেকটু সাহায্য করুন। আমি বেঁচে থাকতে চাই। পৃথিবীতে মা ছাড়া আমার কেউ নেই। আপনারা আমার পাশে দাঁড়ান।

এমন আকুতি জানিয়ে কথাগুলো বলছিলেন এক বছর ধরে গলার ডান পাশে মরনব্যাধি ক্যান্সার নিয়ে বসবাস করা হতদরিদ্র কলেজ ছাত্র মাসুদ রানা। মাসুদ রানার বাড়ি কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার চরফরাদী গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের মৃত চাঁন মিয়ার ছেলে। তিনি পাকুন্দিয়া সরকারি কলেজের ডিগ্রী দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

মাসুদ ও তাঁর পরিবার থেকে জানা যায়, গত বছরের জুন মাসের দিকে তাঁর গলার ডান পাশে একটি ছোট গোটার মতো হয়। এতে স্থানীয়ভাবে বিভিন্ন চিকিৎসা করান। কিন্তু তাতে কাজ হয়নি। ছোট গোটাটি ধীরে ধীরে তা বড় হয়ে টিউমারে রুপ নেয়। এতে দিশেহারা হয়ে পড়ে তাঁর পরিবার। কিন্তু কী করবেন হতদরিদ্র পরিবার। ভেবে ওঠতে পারছিলেন না। এমন সময় এগিয়ে আসেন মাসুদ রানার সহপাঠী, বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়-স্বজন। তাঁদের সহযোগীতায় ঢাকার মহাখালী সরকারি ক্যান্সার হাসপাতালে নিয়ে ডাক্তার দেখান। সেখানে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর মাসুদ রানার গলায় ক্যান্সার শনাক্ত হয়। এরপর চিকিৎসার জন্য ওই হাসপাতালেই ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে মাসুদ রানা। ডাক্তার বলেছেন মাসুদ রানার সুস্থ্য হতে ছয় সাইকেল হাই পাওয়ারের কেমো থেরাপি লাগবে। এতে তাঁর প্রায় ছয় লাখ টাকার দরকার। কিন্তু কোথায় থেকে এত টাকা জোগাড় করবে তাঁর পরিবার। বর্তমানে পরিবারের পক্ষে তাঁর চিকিৎসার ব্যায় বহন করা সম্ভব হচ্ছে না। এ অবস্থায় তাঁর পরিবার কলেজ ছাত্র মাসুদ রানাকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবান ব্যাক্তিদের প্রতি মানবিক সহায়তার আবেদন জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে পাকুন্দিয়া উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আ ত ম রুকনুজ্জামান (অ.দা.) বলেন, তার পরিবারের পক্ষ থেকে আমাদের কাছে আবেদন করলে আমাদের দপ্তর থেকে তার চিকিৎসার জন্য ৫০ হাজার টাকা দেওয়া যাবে। এ টাকা পেতে আমাদের পক্ষ থেকে যা যা করার সবই করা করা হবে।

সহায়তা পাঠানোর মাধ্যম্যে মাসুদ রানার ব্যাক্তিগত বিকাশ নম্বর- ০১৭২৭১৫৯১৪৭, নগদ- ০১৪০৪৫৫৩৪৯১, ব্যাংক হিসাব- ৩৪১৭৩০১০২৩০২৩ (সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, পাকুন্দিয়া শাখা, কিশোরগঞ্জ)।