ঢাকা ০৩:২১ অপরাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ফানুস উৎসব, ঘোড় দৌড় ও সাদামাটা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে

 কুয়াকাটায় শেষ হলো বাংলাদেশ ফেস্টিভাল কুয়াকাটা

এ এম মিজানুর রহমান বুলেট, কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৯:০৭:০৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২৩
  • / ৫২৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় ফানুস উৎসব, ঘোড় দৌড় ও সাদামাটা সাংস্কৃতিক উৎসবের মধ্য দিয়ে শেষ হলো বাংলাদেশ ফেস্টিভাল কুয়াকাটা। শনিবার সন্ধ্যার পরে কুয়াকাটার আকাশে কয়েকটি  ফানুস উড়ানো হয়। এর আগে সৈকতে ঘোড় দৌড়, বীচ ভলিবল ও নামমাত্র  সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া সৈকতে ৬০ টি স্টলের মাধ্যমে বরিশালের আঞ্চলিক পন্য ও কিছু খবার প্রদর্শন করা হয়। এ উৎসব উপভোগের সময় আগত পর্যটকরা হতাস। পর্যটনের সাথে জড়িত সকল ব্যাবসায়ীরা অবাক।পর্যটন শিল্পকে বিকশিত করতে দুইদিন ব্যাপী এ উৎসবের আয়োজন করে ট্যুরিজম বোর্ড এবং বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়।
এদিকে অনুষ্ঠানকে ঘিরে স্থানীয়ভাবে যেভাবে প্রচার প্রচারণা চালানো হয়েছে সে অনুযায়ী পর্যটক দর্শনার্থীদের মনজয় করতে পারেনি আয়োজকরা। সন্ধ্যার পরে ছিল না কোন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। আগত পর্যটক দর্শনার্থীরা হতাশ হয়ে ফিরে গেছেন  তারা। দ্বিতীয় দিন শুধু মাত্র একটি সেমিনারের মধ্যদিয়ে শেষ হয় কুয়াকাটা উৎসব। সাদামাটা আয়োজনে হতাশ আগতরা।
কুয়াকাটা শিল্পী গোষ্ঠীর পরিচালক সাংবাদিক হোসাইন আমির জানান, কুয়াকাটা শিল্পী গোষ্ঠীর শিল্পীরা মঞ্চ প্রোগ্রাম, সরকারি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশের মাধ্যমে পর্যটকসহ স্থানীয়দের বিনোদন দিয়ে আসছে। গত বিচ কার্নিভাল অনুষ্ঠানে স্থানীয় শিল্পীদের প্রধান্য দিয়েছেন। এবার কুয়াকাটা উৎসবে তাদের ডাকা হয়নি। স্থানীয় আয়োজকের ব্যক্তিগত দন্দের জেরে তাদের এ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে বলে তার দাবী।
কুয়াকাটা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক পৌর মেয়র আ: বারেক মোল্লা জানান, ট্যুরিজম বোর্ডের অনুষ্ঠানের বিষয়ে তারা কিছুই জানেন না। অনুষ্ঠানে স্থানীয়ভাবে যারা দ্বায়িত্ব পালন করেছে তাদের অনেকেই সরকার বিরোধী আন্দোলনের সাথে সরাসরি জড়িত। তারা বেছে বেছে চিঠি দিয়েছে। এনিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র আনোয়ার হাওলাদারও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি জানান তাকে এবং তার পৌর পরিষদকে অবমূল্যায়ন করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ফানুস উৎসব, ঘোড় দৌড় ও সাদামাটা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে

 কুয়াকাটায় শেষ হলো বাংলাদেশ ফেস্টিভাল কুয়াকাটা

আপডেট সময় : ০৯:০৭:০৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২৩
পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় ফানুস উৎসব, ঘোড় দৌড় ও সাদামাটা সাংস্কৃতিক উৎসবের মধ্য দিয়ে শেষ হলো বাংলাদেশ ফেস্টিভাল কুয়াকাটা। শনিবার সন্ধ্যার পরে কুয়াকাটার আকাশে কয়েকটি  ফানুস উড়ানো হয়। এর আগে সৈকতে ঘোড় দৌড়, বীচ ভলিবল ও নামমাত্র  সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া সৈকতে ৬০ টি স্টলের মাধ্যমে বরিশালের আঞ্চলিক পন্য ও কিছু খবার প্রদর্শন করা হয়। এ উৎসব উপভোগের সময় আগত পর্যটকরা হতাস। পর্যটনের সাথে জড়িত সকল ব্যাবসায়ীরা অবাক।পর্যটন শিল্পকে বিকশিত করতে দুইদিন ব্যাপী এ উৎসবের আয়োজন করে ট্যুরিজম বোর্ড এবং বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়।
এদিকে অনুষ্ঠানকে ঘিরে স্থানীয়ভাবে যেভাবে প্রচার প্রচারণা চালানো হয়েছে সে অনুযায়ী পর্যটক দর্শনার্থীদের মনজয় করতে পারেনি আয়োজকরা। সন্ধ্যার পরে ছিল না কোন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। আগত পর্যটক দর্শনার্থীরা হতাশ হয়ে ফিরে গেছেন  তারা। দ্বিতীয় দিন শুধু মাত্র একটি সেমিনারের মধ্যদিয়ে শেষ হয় কুয়াকাটা উৎসব। সাদামাটা আয়োজনে হতাশ আগতরা।
কুয়াকাটা শিল্পী গোষ্ঠীর পরিচালক সাংবাদিক হোসাইন আমির জানান, কুয়াকাটা শিল্পী গোষ্ঠীর শিল্পীরা মঞ্চ প্রোগ্রাম, সরকারি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশের মাধ্যমে পর্যটকসহ স্থানীয়দের বিনোদন দিয়ে আসছে। গত বিচ কার্নিভাল অনুষ্ঠানে স্থানীয় শিল্পীদের প্রধান্য দিয়েছেন। এবার কুয়াকাটা উৎসবে তাদের ডাকা হয়নি। স্থানীয় আয়োজকের ব্যক্তিগত দন্দের জেরে তাদের এ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে বলে তার দাবী।
কুয়াকাটা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক পৌর মেয়র আ: বারেক মোল্লা জানান, ট্যুরিজম বোর্ডের অনুষ্ঠানের বিষয়ে তারা কিছুই জানেন না। অনুষ্ঠানে স্থানীয়ভাবে যারা দ্বায়িত্ব পালন করেছে তাদের অনেকেই সরকার বিরোধী আন্দোলনের সাথে সরাসরি জড়িত। তারা বেছে বেছে চিঠি দিয়েছে। এনিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র আনোয়ার হাওলাদারও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি জানান তাকে এবং তার পৌর পরিষদকে অবমূল্যায়ন করা হয়েছে।