ঢাকা ০৬:২৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

কুমার নদে নৌকাবাইচ দেখে মুগ্ধ হাজারো দর্শক

// মাদারীপুর সংবাদদাতা //
  • আপডেট সময় : ০১:০০:৫৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ৮ অক্টোবর ২০২৩
  • / ৬২০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মাদারীপুর জেলার কুমার নদে আজ নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পঙ্খিরাজ, রকেট, বাঘা, টাইটানিক এমন বাহারী নামের ১৩টি নৌকার অংশগ্রহনে মাদারীপুরে এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। যা দেখতে কুমার নদের দুইপাড়ে ভীড় জমান হাজার হাজার দর্শক। পড়ন্ত বিকেলে শিশু-কিশোরসহ নানান বয়সের মানুষের যেন মিলনমেলায় পরিণত হয় নদীর দুই পাড়। নিয়মিত এমন আয়োজনের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

জানা গেছে, মাঝিমাল্লার হাতে থাকা বৈঠা চলছে সমানতালে সাথে হৈহুল্লুড় আওয়াজ। কাঁসার ঘন্টার টুংটাং শব্দ। শনিবার পড়ন্ত বিকেলে কুমার নদের পাড়ে শিশু-কিশোরসহ নানান বয়সের মানুষ। কেউবা আবার ট্রলারে করে উপভোগ করে এই নৌকাবাইচ। সংস্কৃতি আর গ্রাম বাংলার হারিয়ে যাওয়া ঐহিত্য ধরে রাখতে মাদারীপুরের কুমার নদে আয়োজন করা হয় নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা। ঘটমাঝির উকিলবাড়ি থেকে পেয়ারপুরের নয়াচর এই দুই কিলোমিটার এলাকাজুড়ে চলে বাইচ। যা দেখে আনন্দে মেঠে ওঠেন দর্শকরা। অংশ নেয়া ১৩টি নৌকার মধ্যে বাজিতপুরের প্রশান্ত ওঝার নৌকা প্রথম, আমগ্রামের গৌতম বৈদ্যের নৌকা দ্বিতীয় ও পিড়ারবাড়ির বিমল শিকদারের নৌকা তৃতীয় হয়। এমন আয়োজনে অংশ নিতে পেরে খুশি মাঝিমাল্লারা।

তারা বলেন, ইতিহাস আর ঐহিত্যকে ধরে রাখতে নৌকাবাইচের বিকল্প নেই। নৌকাবাইচকে ঘিরে নদের দুইপাড়ে বসে হরেক রকমের দোকান। খাবার ও খেলনাসহ বিভিন্ন দোকানে ক্রেতা-বিক্রেতাদের সরগরম। গাছবাড়িয়া প্রভাতী সংঘের উদ্যোগে এই নৌকাবাইচের আয়োজনে অংশগ্রহনকারী প্রত্যেককে দেয়া হয় ফ্রিজ ও টিভিসহ নানান পুরস্কার। প্রায় ১০ বছর পর কুমার নদে আয়োজন করা হয় এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা। যা দেখতে নদের দুইপাড়ে ভীড় জমান হাজার হাজার দর্শক। নেয়া হয় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

কুমার নদে নৌকাবাইচ দেখে মুগ্ধ হাজারো দর্শক

আপডেট সময় : ০১:০০:৫৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ৮ অক্টোবর ২০২৩

মাদারীপুর জেলার কুমার নদে আজ নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পঙ্খিরাজ, রকেট, বাঘা, টাইটানিক এমন বাহারী নামের ১৩টি নৌকার অংশগ্রহনে মাদারীপুরে এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। যা দেখতে কুমার নদের দুইপাড়ে ভীড় জমান হাজার হাজার দর্শক। পড়ন্ত বিকেলে শিশু-কিশোরসহ নানান বয়সের মানুষের যেন মিলনমেলায় পরিণত হয় নদীর দুই পাড়। নিয়মিত এমন আয়োজনের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

জানা গেছে, মাঝিমাল্লার হাতে থাকা বৈঠা চলছে সমানতালে সাথে হৈহুল্লুড় আওয়াজ। কাঁসার ঘন্টার টুংটাং শব্দ। শনিবার পড়ন্ত বিকেলে কুমার নদের পাড়ে শিশু-কিশোরসহ নানান বয়সের মানুষ। কেউবা আবার ট্রলারে করে উপভোগ করে এই নৌকাবাইচ। সংস্কৃতি আর গ্রাম বাংলার হারিয়ে যাওয়া ঐহিত্য ধরে রাখতে মাদারীপুরের কুমার নদে আয়োজন করা হয় নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা। ঘটমাঝির উকিলবাড়ি থেকে পেয়ারপুরের নয়াচর এই দুই কিলোমিটার এলাকাজুড়ে চলে বাইচ। যা দেখে আনন্দে মেঠে ওঠেন দর্শকরা। অংশ নেয়া ১৩টি নৌকার মধ্যে বাজিতপুরের প্রশান্ত ওঝার নৌকা প্রথম, আমগ্রামের গৌতম বৈদ্যের নৌকা দ্বিতীয় ও পিড়ারবাড়ির বিমল শিকদারের নৌকা তৃতীয় হয়। এমন আয়োজনে অংশ নিতে পেরে খুশি মাঝিমাল্লারা।

তারা বলেন, ইতিহাস আর ঐহিত্যকে ধরে রাখতে নৌকাবাইচের বিকল্প নেই। নৌকাবাইচকে ঘিরে নদের দুইপাড়ে বসে হরেক রকমের দোকান। খাবার ও খেলনাসহ বিভিন্ন দোকানে ক্রেতা-বিক্রেতাদের সরগরম। গাছবাড়িয়া প্রভাতী সংঘের উদ্যোগে এই নৌকাবাইচের আয়োজনে অংশগ্রহনকারী প্রত্যেককে দেয়া হয় ফ্রিজ ও টিভিসহ নানান পুরস্কার। প্রায় ১০ বছর পর কুমার নদে আয়োজন করা হয় এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা। যা দেখতে নদের দুইপাড়ে ভীড় জমান হাজার হাজার দর্শক। নেয়া হয় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা।