ঢাকা ০৬:৪৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে শুরু হলো ‘আল্পনায় বৈশাখ ১৪৩১’

হাওড়াঞ্চল প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০২:১৯:৫৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৫৬১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কিশোরগঞ্জের হাওর উপজেলা মিঠামইনে গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ডে নাম লেখানোর প্রত্যয়ে শুরু হলো আলপনায় বৈশাখ-১৪৩১ উৎসব।

এশিয়াটিক এক্সপেরিয়েনশিয়াল মর্কেটং লিমিটেড, বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশনস লিমিটেড ও বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেডের যৌথ উদ্যোগে কিশোরগঞ্জের মিঠামইন জিরোপয়েন্ট থেকে অষ্টগ্রাম জিরোপয়েন্ট পর্যন্ত ১৪ কিলোমিটার সড়কে (১২ এপ্রিল) শুক্রবার বিকাল ৪ টায় আলপনা অঙ্কনের মধ্য দিয়ে শুরু হলো দেশের সবচেয়ে বড় আলপনা উৎসব আলপনায় বৈশাখ ১৪৩১’।

কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে উৎসবের প্রথম দিনের আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক, এশিয়াটিক -সিক্সটি’র চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান নূর এমপি, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) প্রধান হারুন-অর-রশিদ, কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ, জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাসেল শেখ, বরেণ্য শিল্পী মো. মনিরুজ্জামান, বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেডের চিফ অপারেটিং অফিসার ও ডিরেক্টর মো. মহসিন হাবিব চৌধুরী ও বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশনস লিমিটেডের চিফ হিউম্যান রিসোর্স অ্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অফিসার মনজুলা মোরশেদ, মিঠামইন উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সমীর কুমার বৈষ্ণব, মিঠামইন সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শরিফ কামাল ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

আলপনায় বৈশাখ-১৪৩১ সমাপনী অনুষ্ঠানে আগামী ১৪ এপ্রিল, পহেলা বৈশাখে উপস্থিত থাকবেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি, এশিয়াটিক থ্রি-সিক্সটি’র গ্রæপ ম্যানেজিং ডিরেক্টর ইরেশ যাকের ও বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশনস লিমিটেডের চিফ কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তাইমুর রহমান।

কিশোরগঞ্জের মিঠামইন এলাকায় আলপনা অঙ্কনের মাধ্যমে শুরু হওয়া এই আয়োজনটি আগামীকাল (১৩ এপ্রিল) খুলনার শিব বাড়ি মোড় ও ঢাকার মানিক মিয়া এভিনিউতেও একযোগে শুরু হবে। কিশোরগঞ্জ, খুলনা ও ঢাকা, দেশের তিনটি ঐতিহ্যবাহী জেলায় শিল্পীর তুলিতে বৈশাখের মুগ্ধতা ছড়িয়ে দেয়া এবং একইসাথে বিশ্বরেকর্ড গড়ার অনবদ্য প্রত্যয় নিয়ে শুরু হলো এই উৎসব।

বাঙালির আবহমান ও সমৃদ্ধশালী সংস্কৃতিকে বিশ্বমঞ্চে তুলে ধরার লক্ষ্যে এবার অষ্টমবারের মতো আয়োজিত হচ্ছে ‘আয়নায় বৈশাখ ১৪৩১’ উৎসব।

নিউজটি শেয়ার করুন

কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে শুরু হলো ‘আল্পনায় বৈশাখ ১৪৩১’

আপডেট সময় : ০২:১৯:৫৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

কিশোরগঞ্জের হাওর উপজেলা মিঠামইনে গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ডে নাম লেখানোর প্রত্যয়ে শুরু হলো আলপনায় বৈশাখ-১৪৩১ উৎসব।

এশিয়াটিক এক্সপেরিয়েনশিয়াল মর্কেটং লিমিটেড, বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশনস লিমিটেড ও বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেডের যৌথ উদ্যোগে কিশোরগঞ্জের মিঠামইন জিরোপয়েন্ট থেকে অষ্টগ্রাম জিরোপয়েন্ট পর্যন্ত ১৪ কিলোমিটার সড়কে (১২ এপ্রিল) শুক্রবার বিকাল ৪ টায় আলপনা অঙ্কনের মধ্য দিয়ে শুরু হলো দেশের সবচেয়ে বড় আলপনা উৎসব আলপনায় বৈশাখ ১৪৩১’।

কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে উৎসবের প্রথম দিনের আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক, এশিয়াটিক -সিক্সটি’র চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান নূর এমপি, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) প্রধান হারুন-অর-রশিদ, কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ, জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাসেল শেখ, বরেণ্য শিল্পী মো. মনিরুজ্জামান, বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেডের চিফ অপারেটিং অফিসার ও ডিরেক্টর মো. মহসিন হাবিব চৌধুরী ও বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশনস লিমিটেডের চিফ হিউম্যান রিসোর্স অ্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অফিসার মনজুলা মোরশেদ, মিঠামইন উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সমীর কুমার বৈষ্ণব, মিঠামইন সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শরিফ কামাল ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

আলপনায় বৈশাখ-১৪৩১ সমাপনী অনুষ্ঠানে আগামী ১৪ এপ্রিল, পহেলা বৈশাখে উপস্থিত থাকবেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি, এশিয়াটিক থ্রি-সিক্সটি’র গ্রæপ ম্যানেজিং ডিরেক্টর ইরেশ যাকের ও বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশনস লিমিটেডের চিফ কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তাইমুর রহমান।

কিশোরগঞ্জের মিঠামইন এলাকায় আলপনা অঙ্কনের মাধ্যমে শুরু হওয়া এই আয়োজনটি আগামীকাল (১৩ এপ্রিল) খুলনার শিব বাড়ি মোড় ও ঢাকার মানিক মিয়া এভিনিউতেও একযোগে শুরু হবে। কিশোরগঞ্জ, খুলনা ও ঢাকা, দেশের তিনটি ঐতিহ্যবাহী জেলায় শিল্পীর তুলিতে বৈশাখের মুগ্ধতা ছড়িয়ে দেয়া এবং একইসাথে বিশ্বরেকর্ড গড়ার অনবদ্য প্রত্যয় নিয়ে শুরু হলো এই উৎসব।

বাঙালির আবহমান ও সমৃদ্ধশালী সংস্কৃতিকে বিশ্বমঞ্চে তুলে ধরার লক্ষ্যে এবার অষ্টমবারের মতো আয়োজিত হচ্ছে ‘আয়নায় বৈশাখ ১৪৩১’ উৎসব।