ঢাকা ০৫:১৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

কলাপারায় রাস্তা সংস্কারের নামে চেয়ারম্যানের নির্দেশে কেটে ফেলা হলো অসংখ্য তাল ও খেজুর গাছ

এ এম মিজানুর রহমান বুলেট, কলাপাড়া প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৩:৫৮:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই ২০২৪
  • / ৪২৫ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় রাস্তা সংস্কারের নামে কেটে ফেলা হয়েছে অন্তত ৩০ থেকে ৩৫ টি তালগাছ সহ খেজুর গাছ।উপজেলার চাকামাইয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মজিবর ফকিরের নির্দেশে ওই ইউনিয়নের মৌলভীতবক গ্রামের সড়কের পাশে থাকা গাছগুলো কেটে ফেলে স্থানীয়রা।
সরজমিনে জানাযায়, প্রায় ২০ দিন আগে কাবিটা প্রকল্পের আওতায় ওই গ্রামের ২ কিলোমিটার সড়কে মাটি ফেলার কাজ করে চেয়ারম্যান। এর আগে তার নির্দেশে বাড়ীর সামনে সরকারী সড়কের উপরে থাকা গাছগুলো স্থানীয়রা নির্বিচারে কেটে ফেলে।
এছাড়া সড়কে মাটি ফেলার সময় ভেকু দিয়ে অনেক গাছ অপসারন করে খালে ফেলে দেয়া হয়। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষাকারী ও বজ্রপাত প্রতিরোধক এসব গাছ না কেটেও সড়কে মাটি ফেলার কাজ করা যেতো বলে দাবি স্থানীয়দের।
সাবেক চেয়ারম্যান মো : কেরমত মিয়া জানান, তালগাছ বজ্রপাত রক্ষায় সরকার লাগায়,সে রক্ষক হয়ে রাস্তা সংস্কারের নামে তালগাছ সহ আরো বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ৬০ টির মতো গাছ কেটে ফেলে।এতে পরিবেসের ভারসম্য নষ্ট হয়েছে।
চেয়ারম্যান মেঃ মুজিবর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,  তার বিরেদ্ধে আনিত অভিযোগ মিথ্যে, তিনি গাছকাটা সম্পর্কে কিছুই জানেননা।
কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রবিউল ইসলাম বলেন, তদন্ত কমিটি করে বিষয়টি  ক্ষতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

কলাপারায় রাস্তা সংস্কারের নামে চেয়ারম্যানের নির্দেশে কেটে ফেলা হলো অসংখ্য তাল ও খেজুর গাছ

আপডেট সময় : ০৩:৫৮:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই ২০২৪
পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় রাস্তা সংস্কারের নামে কেটে ফেলা হয়েছে অন্তত ৩০ থেকে ৩৫ টি তালগাছ সহ খেজুর গাছ।উপজেলার চাকামাইয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মজিবর ফকিরের নির্দেশে ওই ইউনিয়নের মৌলভীতবক গ্রামের সড়কের পাশে থাকা গাছগুলো কেটে ফেলে স্থানীয়রা।
সরজমিনে জানাযায়, প্রায় ২০ দিন আগে কাবিটা প্রকল্পের আওতায় ওই গ্রামের ২ কিলোমিটার সড়কে মাটি ফেলার কাজ করে চেয়ারম্যান। এর আগে তার নির্দেশে বাড়ীর সামনে সরকারী সড়কের উপরে থাকা গাছগুলো স্থানীয়রা নির্বিচারে কেটে ফেলে।
এছাড়া সড়কে মাটি ফেলার সময় ভেকু দিয়ে অনেক গাছ অপসারন করে খালে ফেলে দেয়া হয়। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষাকারী ও বজ্রপাত প্রতিরোধক এসব গাছ না কেটেও সড়কে মাটি ফেলার কাজ করা যেতো বলে দাবি স্থানীয়দের।
সাবেক চেয়ারম্যান মো : কেরমত মিয়া জানান, তালগাছ বজ্রপাত রক্ষায় সরকার লাগায়,সে রক্ষক হয়ে রাস্তা সংস্কারের নামে তালগাছ সহ আরো বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ৬০ টির মতো গাছ কেটে ফেলে।এতে পরিবেসের ভারসম্য নষ্ট হয়েছে।
চেয়ারম্যান মেঃ মুজিবর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,  তার বিরেদ্ধে আনিত অভিযোগ মিথ্যে, তিনি গাছকাটা সম্পর্কে কিছুই জানেননা।
কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রবিউল ইসলাম বলেন, তদন্ত কমিটি করে বিষয়টি  ক্ষতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।