ঢাকা ১২:১৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

কলাপাড়ায় বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি নির্বাচনে অস্বচ্ছতার অভিযোগ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:২৭:০৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মার্চ ২০২৩
  • / ৪৫৭ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
কলাপাড়া (পটুয়াখালী)  প্রতিনিধি : 
পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় কোন জটিলতা ছাড়াই লালুয়া জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি নির্বাচন প্রক্রিয়া স্থগিত করার অভিযোগ উঠেছে। সভাপতি হিসাবে একক প্রার্থী থাকলেও রাজনৈতিক বিবেচনায় অন্য একজনকে সভাপতি নির্বাচিত করার অভিযোগ ভোটারদের। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে বিদ্যালয়ের অবিভাবক সদস্য, দাতা সদস্যসহ অবিভাবক ও এলাকাবাসী।
সূত্র জানায়, লালুয়া জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের ৬ জন নির্বাচিত অবিভাবক সদস্য, ১ জন মহিলা অবিভাবক সদস্য এবং ২ জন দাতা সদস্যের ভোটে নতুন সভাপতি নির্বাচিত হবে। এই নির্বাচন প্রক্রিয়া সুষ্ঠভাবে সম্পন্নের জন্য নির্বাচন কমিশনার হিসাবে দ্বায়িত্ব দেয়া হয় কলাপাড়া উপজেলা ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচী কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান খানকে। শুক্রবার (২৪ মার্চ) এ নির্বাচন সম্পন্নের জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়। এদিন ভোটার সদস্য স্বপন তালুকদার সভাপতি হিসাবে শওকত গোসেন তপন বিশ্বাসের নাম প্রস্তাব করেন। অপর ২ সদস্য ভোটার সিরাজুল ইসলাম ও আলাউদ্দিন ফরাজী এতে সমর্থন প্রদান করেন। এসময় অন্য কোন প্রার্থীর নাম প্রস্তাব হয়নি। নির্বাচন প্রক্রিয়ায় সকল ধাপ শেষ হলেও নতুন সভাপতির নাম ঘোষণা না করায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন সংশ্লিষ্টরা।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ভোটার সদস্যদের অভিযোগ, পরিচালনা পর্ষদের ৯ ভোটার সদস্য প্রস্তাবিত প্রার্থীর পক্ষে তাদের মতামত প্রদান করেছেন। প্রস্তাবিত সভাপতি প্রার্থীর সাথে আলোচনা না করায়, আলোচনার সুযোগ দিয়ে নির্বাচন প্রক্রিয়া স্থগিত করা হয়। রাজনৈতিক বিবেচনায় অন্য একজনকে সভাপতি নির্বাচিত করার জন্য অদৃশ্য শক্তির প্রভাবে সভাপতির নাম ঘোষণা করা হয়নি।
এ বিষয়ে জানার জন্য বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অবনী রায় জানান, নির্বাচন কমিশনার বিদ্যালয়ে আসার পরই তাকে রেজুলেশন বই বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। আজ তার সভাপতিত্বেই সভা হয়েছে। আমার ওখানে থাকার এখতিয়ারও ছিলোনা। তারপরও সবার অনুরোধে সভায় ছিলাম। বিভিন্ন সমস্যার কারনে সভাপতি নির্বাচিত করা যায়নি। এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনারই ভালো বলতে পারবেন।
নির্বাচন কমিশনার কলাপাড়া উপজেলা ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচী কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান খান বলেন, এখানে একজন সভাপতির নামই প্রস্তাবিত হয়েছে। অন্য কারো নাম কেউ প্রস্তাব করেনি। এ সভাপতি নির্বাচন নিয়ে কেউ কোন প্রভাব বিস্তার করেনি। আগামীকাল আবারো সদস্যদের সঙ্গে বসে নতুন সভাপতির নাম ঘোষণা করা হবে।
বা/খ: জই

নিউজটি শেয়ার করুন

কলাপাড়ায় বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি নির্বাচনে অস্বচ্ছতার অভিযোগ

আপডেট সময় : ০৮:২৭:০৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মার্চ ২০২৩
কলাপাড়া (পটুয়াখালী)  প্রতিনিধি : 
পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় কোন জটিলতা ছাড়াই লালুয়া জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি নির্বাচন প্রক্রিয়া স্থগিত করার অভিযোগ উঠেছে। সভাপতি হিসাবে একক প্রার্থী থাকলেও রাজনৈতিক বিবেচনায় অন্য একজনকে সভাপতি নির্বাচিত করার অভিযোগ ভোটারদের। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে বিদ্যালয়ের অবিভাবক সদস্য, দাতা সদস্যসহ অবিভাবক ও এলাকাবাসী।
সূত্র জানায়, লালুয়া জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের ৬ জন নির্বাচিত অবিভাবক সদস্য, ১ জন মহিলা অবিভাবক সদস্য এবং ২ জন দাতা সদস্যের ভোটে নতুন সভাপতি নির্বাচিত হবে। এই নির্বাচন প্রক্রিয়া সুষ্ঠভাবে সম্পন্নের জন্য নির্বাচন কমিশনার হিসাবে দ্বায়িত্ব দেয়া হয় কলাপাড়া উপজেলা ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচী কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান খানকে। শুক্রবার (২৪ মার্চ) এ নির্বাচন সম্পন্নের জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়। এদিন ভোটার সদস্য স্বপন তালুকদার সভাপতি হিসাবে শওকত গোসেন তপন বিশ্বাসের নাম প্রস্তাব করেন। অপর ২ সদস্য ভোটার সিরাজুল ইসলাম ও আলাউদ্দিন ফরাজী এতে সমর্থন প্রদান করেন। এসময় অন্য কোন প্রার্থীর নাম প্রস্তাব হয়নি। নির্বাচন প্রক্রিয়ায় সকল ধাপ শেষ হলেও নতুন সভাপতির নাম ঘোষণা না করায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন সংশ্লিষ্টরা।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ভোটার সদস্যদের অভিযোগ, পরিচালনা পর্ষদের ৯ ভোটার সদস্য প্রস্তাবিত প্রার্থীর পক্ষে তাদের মতামত প্রদান করেছেন। প্রস্তাবিত সভাপতি প্রার্থীর সাথে আলোচনা না করায়, আলোচনার সুযোগ দিয়ে নির্বাচন প্রক্রিয়া স্থগিত করা হয়। রাজনৈতিক বিবেচনায় অন্য একজনকে সভাপতি নির্বাচিত করার জন্য অদৃশ্য শক্তির প্রভাবে সভাপতির নাম ঘোষণা করা হয়নি।
এ বিষয়ে জানার জন্য বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অবনী রায় জানান, নির্বাচন কমিশনার বিদ্যালয়ে আসার পরই তাকে রেজুলেশন বই বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। আজ তার সভাপতিত্বেই সভা হয়েছে। আমার ওখানে থাকার এখতিয়ারও ছিলোনা। তারপরও সবার অনুরোধে সভায় ছিলাম। বিভিন্ন সমস্যার কারনে সভাপতি নির্বাচিত করা যায়নি। এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনারই ভালো বলতে পারবেন।
নির্বাচন কমিশনার কলাপাড়া উপজেলা ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচী কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান খান বলেন, এখানে একজন সভাপতির নামই প্রস্তাবিত হয়েছে। অন্য কারো নাম কেউ প্রস্তাব করেনি। এ সভাপতি নির্বাচন নিয়ে কেউ কোন প্রভাব বিস্তার করেনি। আগামীকাল আবারো সদস্যদের সঙ্গে বসে নতুন সভাপতির নাম ঘোষণা করা হবে।
বা/খ: জই