ঢাকা ১১:৪৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

কলাপাড়ায় তীব্র গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন, প্রতিনিয়ত বাড়ছে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা

এ এম মিজানুর রহমান বুলেট, কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৩:৫৯:৩৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৪৪৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় তীব্র গরমে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে উপকূলীয় জনজীবন। আজ বুধবার কলাপাড়া উপজেলায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৪০.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এতে সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়েছে নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া মানুষ।
একটু স্বস্থির আশায় অনেকেই আশ্রয় নিচ্ছেন গাছতলায়। প্রচন্ড খড়তাপে লোকসানে পড়েছেন বোরো ধান চাষী ও সবজি চাষীরা। এদিকে উপজেলার সকল হাসপাতালগুলোতে বেড়েছে ডায়রিয়া সহ গরম জনিত রোগীর সংখ্যা। গত ২৪ ঘন্টায় জেলার ৮ উপজেলায় ১১০ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। আর গত এক সপ্তাহে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৭৯ জন রোগী।  কলাপাড়া হাসপাতালে স্যালইনের  সংকট দেখা দিয়েছে ।
রাজ মিস্ত্রী আনোয়ার বলেন,আমার চল্লিশ বছর বয়সে এতো গরম পাইনি। তাপের চোটে কোন কাজই করতে পারিনা। পান দোকানদার আ: রহিম মিয়া জানান,অতি গরমে কোন ক্রেতা নেই, দোকানদারি করতে না পারলে সংসার চলবে কি করে।
ডা:জে এইচ খান লেলিন বলেন, অতি গরমের কারনে প্রতিদিনের চেয়ে ডায়রিয়া রুগি আজকে অনেক বেশী ভর্তি হচ্ছে।ওরসেলাইন চাহিদা অনুযায়ী অনেক কম, জেলায় অবগত করা হয়েছে।
বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

কলাপাড়ায় তীব্র গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন, প্রতিনিয়ত বাড়ছে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা

আপডেট সময় : ০৩:৫৯:৩৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪
পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় তীব্র গরমে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে উপকূলীয় জনজীবন। আজ বুধবার কলাপাড়া উপজেলায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৪০.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এতে সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়েছে নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া মানুষ।
একটু স্বস্থির আশায় অনেকেই আশ্রয় নিচ্ছেন গাছতলায়। প্রচন্ড খড়তাপে লোকসানে পড়েছেন বোরো ধান চাষী ও সবজি চাষীরা। এদিকে উপজেলার সকল হাসপাতালগুলোতে বেড়েছে ডায়রিয়া সহ গরম জনিত রোগীর সংখ্যা। গত ২৪ ঘন্টায় জেলার ৮ উপজেলায় ১১০ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। আর গত এক সপ্তাহে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৭৯ জন রোগী।  কলাপাড়া হাসপাতালে স্যালইনের  সংকট দেখা দিয়েছে ।
রাজ মিস্ত্রী আনোয়ার বলেন,আমার চল্লিশ বছর বয়সে এতো গরম পাইনি। তাপের চোটে কোন কাজই করতে পারিনা। পান দোকানদার আ: রহিম মিয়া জানান,অতি গরমে কোন ক্রেতা নেই, দোকানদারি করতে না পারলে সংসার চলবে কি করে।
ডা:জে এইচ খান লেলিন বলেন, অতি গরমের কারনে প্রতিদিনের চেয়ে ডায়রিয়া রুগি আজকে অনেক বেশী ভর্তি হচ্ছে।ওরসেলাইন চাহিদা অনুযায়ী অনেক কম, জেলায় অবগত করা হয়েছে।
বাখ//আর