ঢাকা ১১:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

কলমাকান্দায় নিরাপদ খাদ্য মেলা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৩৪:১০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ মে ২০২৩
  • / ৪৭২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

// নাজমুল হক, কলমাকান্দা (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি //

নেত্রকোণা জেলার কলমাকান্দা উপজেলার রংছাতি ইউনিয়নের সন্যাসী পাড়া গ্রামে গত শনি ও রবিবার অদম্য বাংলাদেশ, নেত্রকোণা সম্মিলিত যুব সমাজ, সন্যাসীপাড়া গ্রামবাসি ও বেসরকারী গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিকের যৌথ উদ্যোগে ‘সকল প্রাণের জন্য চাই নিরাপদ খাদ্য’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ‘খাদ্যবৈচিত্র্য ও বীজবৈচিত্র্য মেলা’ শিশুদের নিয়ে আদিবাসি খাবার, বিলুপ্তি ও প্রয়োজনীতা শীর্ষক আলোচনা, খাদ্যবৈচিত্র্য নিয়ে কুইজ ও নারীদের নিয়ে চীনাবাদাম খাওয়া প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

মেলায় নারীরা আদিবাসি খাবার, অ-চাষকৃত নিরাপদ খাবার, পাহাড় ও সমতলের বিষমুক্ত নিরাপদ ফল, সবজী, ধান, ডাল, তেলজাতীয় বীজ প্রদর্শন করেন। নারীরা পাহাড়ী কচু, বাঁশের কেরুল, কলার থুরা, স্বর্ণআলু, ঢেঁকিশাক, বথুয়াশাক, গিমা শাক, ওলকচু, শামুক, কুইচ্ছা, কাসাবা ৩১ জাতের নিরাপদ খাবার, বিন্নিধান, লাফা, জাগলি ধান, মসুর, খেসারী, করলা, সিম, তুকমা, ঝিঙ্গাসহ ৩৫ জাতের বীজ প্রদর্শন করেন।

আলোচনায় গ্রামের প্রবীণ কৃষক ও আদিবাসি নেতা মার্শেল মানকিন বলেন, “নারীরাই নিরাপদ খাদ্য উৎপাদন ও বীজ রক্ষার কারিগর। এখনো নারীরা নিজ হাতে নিরাপদ খাদ্য উৎপাদন করেন ও তার সন্তানের মুখে তুলে দেন। গ্রামের প্রায় ১৭০ জন নারী পুরুষ, শিশু এই আয়োজনে অংশ গ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা জনাব মো. আল আমিন, কলমাকান্দা প্রেস ক্লাব সম্পাদক ফখরুল আলম খসরু খান ও রিপন মিয়া, সাবানা মারাক।

মেলায় আদিবাসি নারী মিথালী ডিব্রা শিশুদেরকে মেলার স্টলের খাদ্যর সাথে পরিচয় করিয়ে দেন এবং নিরাপদ খাদ্য উৎপাদনের জন্য নিজ বাড়ীর আঙ্গিণাকে ব্যবহার করার পরামর্শ দেন।

মেলায় শিশু ও নারীরা যেসব প্লেকার্ড ও ফেস্টুন ব্যবহার করেন। “নিরাপদ খাদ্য, নিরাপদ জীবন” “সকল প্রাণের জন্য চাই নিরাপদ খাবার”, “আমরা বিষমুক্ত শৈশব চাই”,“নিরাপদ খাদ্য আমাদের অধিকার”,“আমার খাবার টেবিলের খাদ্যে বিষ কেন?”, “খাদ্য দূষণ থামাও”, “আমিখাটো হয়ে যাচ্ছি, জিংক সমৃদ্ধ খাবার চাই”, “প্রতিদিন ভেজালমুক্ত খাবার দিয়ে সকালটা শুরু করুন”, “খাদ্যের নামে শিশুর মুখে ভেজাল খাবার তুলে দিবেন না”,“নিরাপদ বীজ, নিরাপদ খাবার” সহ নানা সচেতনতামূক প্লেকার্ড প্রদর্শন করেন। অনুষ্ঠান শেষে অংশগ্রহণকারীদের কৃষি উপকরণ এর মাধ্যমে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

বা/খ: এসআর।

নিউজটি শেয়ার করুন

কলমাকান্দায় নিরাপদ খাদ্য মেলা

আপডেট সময় : ১০:৩৪:১০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ মে ২০২৩

// নাজমুল হক, কলমাকান্দা (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি //

নেত্রকোণা জেলার কলমাকান্দা উপজেলার রংছাতি ইউনিয়নের সন্যাসী পাড়া গ্রামে গত শনি ও রবিবার অদম্য বাংলাদেশ, নেত্রকোণা সম্মিলিত যুব সমাজ, সন্যাসীপাড়া গ্রামবাসি ও বেসরকারী গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিকের যৌথ উদ্যোগে ‘সকল প্রাণের জন্য চাই নিরাপদ খাদ্য’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ‘খাদ্যবৈচিত্র্য ও বীজবৈচিত্র্য মেলা’ শিশুদের নিয়ে আদিবাসি খাবার, বিলুপ্তি ও প্রয়োজনীতা শীর্ষক আলোচনা, খাদ্যবৈচিত্র্য নিয়ে কুইজ ও নারীদের নিয়ে চীনাবাদাম খাওয়া প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

মেলায় নারীরা আদিবাসি খাবার, অ-চাষকৃত নিরাপদ খাবার, পাহাড় ও সমতলের বিষমুক্ত নিরাপদ ফল, সবজী, ধান, ডাল, তেলজাতীয় বীজ প্রদর্শন করেন। নারীরা পাহাড়ী কচু, বাঁশের কেরুল, কলার থুরা, স্বর্ণআলু, ঢেঁকিশাক, বথুয়াশাক, গিমা শাক, ওলকচু, শামুক, কুইচ্ছা, কাসাবা ৩১ জাতের নিরাপদ খাবার, বিন্নিধান, লাফা, জাগলি ধান, মসুর, খেসারী, করলা, সিম, তুকমা, ঝিঙ্গাসহ ৩৫ জাতের বীজ প্রদর্শন করেন।

আলোচনায় গ্রামের প্রবীণ কৃষক ও আদিবাসি নেতা মার্শেল মানকিন বলেন, “নারীরাই নিরাপদ খাদ্য উৎপাদন ও বীজ রক্ষার কারিগর। এখনো নারীরা নিজ হাতে নিরাপদ খাদ্য উৎপাদন করেন ও তার সন্তানের মুখে তুলে দেন। গ্রামের প্রায় ১৭০ জন নারী পুরুষ, শিশু এই আয়োজনে অংশ গ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা জনাব মো. আল আমিন, কলমাকান্দা প্রেস ক্লাব সম্পাদক ফখরুল আলম খসরু খান ও রিপন মিয়া, সাবানা মারাক।

মেলায় আদিবাসি নারী মিথালী ডিব্রা শিশুদেরকে মেলার স্টলের খাদ্যর সাথে পরিচয় করিয়ে দেন এবং নিরাপদ খাদ্য উৎপাদনের জন্য নিজ বাড়ীর আঙ্গিণাকে ব্যবহার করার পরামর্শ দেন।

মেলায় শিশু ও নারীরা যেসব প্লেকার্ড ও ফেস্টুন ব্যবহার করেন। “নিরাপদ খাদ্য, নিরাপদ জীবন” “সকল প্রাণের জন্য চাই নিরাপদ খাবার”, “আমরা বিষমুক্ত শৈশব চাই”,“নিরাপদ খাদ্য আমাদের অধিকার”,“আমার খাবার টেবিলের খাদ্যে বিষ কেন?”, “খাদ্য দূষণ থামাও”, “আমিখাটো হয়ে যাচ্ছি, জিংক সমৃদ্ধ খাবার চাই”, “প্রতিদিন ভেজালমুক্ত খাবার দিয়ে সকালটা শুরু করুন”, “খাদ্যের নামে শিশুর মুখে ভেজাল খাবার তুলে দিবেন না”,“নিরাপদ বীজ, নিরাপদ খাবার” সহ নানা সচেতনতামূক প্লেকার্ড প্রদর্শন করেন। অনুষ্ঠান শেষে অংশগ্রহণকারীদের কৃষি উপকরণ এর মাধ্যমে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

বা/খ: এসআর।