ঢাকা ১১:৪১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

কলমাকান্দায় গৃহবধূর চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ

নাজমুল হক, কলমাকান্দা (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৭:৩৮:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪
  • / ৪২৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নেত্রকোণা জেলার কলমাকান্দা উপজেলায় শিখা আক্তার (৩৬) নামের এক গৃহবধূকে নির্যাতন করে মাথার চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার পোগলা ইউনিয়নের কুতিগাঁও গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। বর্তমানে তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিচ্ছেন। শিখা আক্তার ওই গ্রামের ফজলু মিয়ার স্ত্রী।

নির্যাতনের শিকার শিখা আক্তার বলেন, ননদী রেশমা আক্তার ও তার স্বামী নয়ন মিয়ার নেতৃত্বে কয়েকজন মিলে পরিকল্পিতভাবে ঘরে ঢুকে আমাকে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে। আমি চিত্কার করতে চাইলে তারা আমার মুখ বেঁধে ফেলে। মারধরের পর আমার মাথার চুল কেটে দেয় তারা। পরে খবর পেয়ে প্রতিবেশীরা আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

ভুক্তভোগীর স্বামী ফজলু মিয়া বলেন, ‘আমার বোন রেশমার সঙ্গে নয়নের বিয়ে হওয়ার বিষয়টি মেনে না নেওয়ার কারণে আমার স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতন করে চুল কেটে দিয়েছে তারা। এ ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় এনে সঠিক বিচারের দাবি জানাই।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. সৌরভ ঘোষ বলেন, ‘শিখা আক্তারের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

কলমাকান্দা থানার ওসি মোহাম্মদ লুত্ফুল হক বলেন, ‘এ ঘটনায় মঙ্গলবার নির্যাতনের শিকার শিখা আক্তারের স্বামী ফজলু মিয়া বাদী হয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

 

বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

কলমাকান্দায় গৃহবধূর চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ

আপডেট সময় : ০৭:৩৮:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

নেত্রকোণা জেলার কলমাকান্দা উপজেলায় শিখা আক্তার (৩৬) নামের এক গৃহবধূকে নির্যাতন করে মাথার চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার পোগলা ইউনিয়নের কুতিগাঁও গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। বর্তমানে তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিচ্ছেন। শিখা আক্তার ওই গ্রামের ফজলু মিয়ার স্ত্রী।

নির্যাতনের শিকার শিখা আক্তার বলেন, ননদী রেশমা আক্তার ও তার স্বামী নয়ন মিয়ার নেতৃত্বে কয়েকজন মিলে পরিকল্পিতভাবে ঘরে ঢুকে আমাকে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে। আমি চিত্কার করতে চাইলে তারা আমার মুখ বেঁধে ফেলে। মারধরের পর আমার মাথার চুল কেটে দেয় তারা। পরে খবর পেয়ে প্রতিবেশীরা আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

ভুক্তভোগীর স্বামী ফজলু মিয়া বলেন, ‘আমার বোন রেশমার সঙ্গে নয়নের বিয়ে হওয়ার বিষয়টি মেনে না নেওয়ার কারণে আমার স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতন করে চুল কেটে দিয়েছে তারা। এ ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় এনে সঠিক বিচারের দাবি জানাই।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. সৌরভ ঘোষ বলেন, ‘শিখা আক্তারের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

কলমাকান্দা থানার ওসি মোহাম্মদ লুত্ফুল হক বলেন, ‘এ ঘটনায় মঙ্গলবার নির্যাতনের শিকার শিখা আক্তারের স্বামী ফজলু মিয়া বাদী হয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

 

বাখ//আর