ঢাকা ০৪:২৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

কয়রায় ট্রলির আঘাতে শিক্ষকসহ ২ স্কুল ছাত্র আহত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:৩৯:৩৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ মে ২০২৩
  • / ৪৮৫ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

// কয়রা (খুলনা) প্রতিনিধি //

কয়রায় বেপরোয়া ট্রলির আঘাতে ১ শিক্ষকসহ তার স্কুল পড়ুয়া ২ পুত্র মারাত্মক আহত হয়েছে। তাদেরকে ঘটনাস্থলে থেকে উদ্ধার করে প্রথমে কয়রা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে তাদের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে খুলনা থেকে তাদেরকে ঢাকায় চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা গেছে, কয়রা উপজেলার কালনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আঃ সাত্তার গতকাল ৯ টার দিকে তার ২ পুত্র স্কুল ছাত্র তাফরিড আল আবির (১০) ও তাসিমুল আরাব (৬) নিয়ে নিজ বাড়ি দেয়াড়া হতে রওনা হয়ে কালনা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে এসে মোটরসাইকেলটি সাইট করে রাখে। এমতাবস্থায় বেপরোয়া এক ইট বহন করা ১ টি ট্রলি তার মোটরসাইকেলে আঘাত করে। এতে করে শিক্ষক আঃ ছাত্তারসহ তার ২ পুত্র ট্রলির আঘাতে চাপা পড়ে। তাৎক্ষণিক স্থানীয় এলাকাবাসি ট্রলির নিচ থেকে মারাত্মক আহত অবস্থায় জখম ও হাতপা ভাঙ্গা স্কুল ছাত্র দুটিকে উদ্ধার করে কয়রা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখান থেকে তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

তবে আহত শিক্ষকের চাচাতো ভাই মহারাজপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সদর উদ্দিন আহমেদ বলেন, তাদের অবস্থা খুবই খারাপ হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনগণ ট্রলি চালককে আটক করে কয়রা থানা পুলিশকে খবর দেয়।

কয়রা থানার অফিসার ইনচার্জ এবিএম এস দোহা (বিপিএম) বলেন, খবর পাওয়ার সাথে সাথে ট্রলি চালক পাইকগাছা উপজেলার বাদশাকে থানা হেফাজাতে নিয়ে আসা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় কেউ অভিযোগ দায়ের করেনি। অভিযোগ করলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

কয়রায় ট্রলির আঘাতে শিক্ষকসহ ২ স্কুল ছাত্র আহত

আপডেট সময় : ০৮:৩৯:৩৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ মে ২০২৩

// কয়রা (খুলনা) প্রতিনিধি //

কয়রায় বেপরোয়া ট্রলির আঘাতে ১ শিক্ষকসহ তার স্কুল পড়ুয়া ২ পুত্র মারাত্মক আহত হয়েছে। তাদেরকে ঘটনাস্থলে থেকে উদ্ধার করে প্রথমে কয়রা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে তাদের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে খুলনা থেকে তাদেরকে ঢাকায় চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা গেছে, কয়রা উপজেলার কালনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আঃ সাত্তার গতকাল ৯ টার দিকে তার ২ পুত্র স্কুল ছাত্র তাফরিড আল আবির (১০) ও তাসিমুল আরাব (৬) নিয়ে নিজ বাড়ি দেয়াড়া হতে রওনা হয়ে কালনা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে এসে মোটরসাইকেলটি সাইট করে রাখে। এমতাবস্থায় বেপরোয়া এক ইট বহন করা ১ টি ট্রলি তার মোটরসাইকেলে আঘাত করে। এতে করে শিক্ষক আঃ ছাত্তারসহ তার ২ পুত্র ট্রলির আঘাতে চাপা পড়ে। তাৎক্ষণিক স্থানীয় এলাকাবাসি ট্রলির নিচ থেকে মারাত্মক আহত অবস্থায় জখম ও হাতপা ভাঙ্গা স্কুল ছাত্র দুটিকে উদ্ধার করে কয়রা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখান থেকে তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

তবে আহত শিক্ষকের চাচাতো ভাই মহারাজপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সদর উদ্দিন আহমেদ বলেন, তাদের অবস্থা খুবই খারাপ হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনগণ ট্রলি চালককে আটক করে কয়রা থানা পুলিশকে খবর দেয়।

কয়রা থানার অফিসার ইনচার্জ এবিএম এস দোহা (বিপিএম) বলেন, খবর পাওয়ার সাথে সাথে ট্রলি চালক পাইকগাছা উপজেলার বাদশাকে থানা হেফাজাতে নিয়ে আসা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় কেউ অভিযোগ দায়ের করেনি। অভিযোগ করলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।