ঢাকা ০৯:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য

এক পা বিশিষ্ট নবজাতকের জন্ম!  

মোঃ খাদেমুল ইসলাম, দিনাজপুর
  • আপডেট সময় : ১১:০৫:৩৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ মার্চ ২০২৪
  • / ৫০৫ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

বুধবার বিকেল ৩টার দিকে শহরের একটি ক্লিনিকে তাসলিমা আক্তার নামে এক প্রসূতি দুটি জমজ সন্তান প্রসব করেন। নবজাতক দু’টির একটি স্বাভাবিক আকৃতির হলেও অপরটি এক পা বিশিষ্ট শিশু !

ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। শিশুটিকে একনজর দেখতে দূর-দূরান্ত থেকে আসতে শুরু করে উৎসুক জনতা।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গেল ২০১৪ সালে নবাবগঞ্জ উপজেলার শালখরিয়া গ্রামের আমিরুল ইসলামের ছেলে মাহাফুজুল ইসলামের সঙ্গে একই এলাকার তোকছেদ আলীর মেয়ে তাসলিমার বিয়ে হয়। এরপর তাদের সংসার আলো করে এক ছেলে ও এক মেয়ে সন্তানের আগমন ঘটে। সম্প্রতি আবারো গর্ভবতী হন তসলিমা। পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে গর্ভে জমজ সন্তানের বিষয়টি নিশ্চিত হলে পারিবারিকভাবে সিজারের মাধ্যমে সন্তান প্রসবের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বুধবার সকালের দিকে প্রসব বেদনা উঠলে তাসলিমাকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে ভর্তি করানো হয়। বিকেল ৩ টার দিকে তার সিজার সম্পন্ন হয়। তবে প্রথমটি মেয়ে সন্তান হলেও দ্বিতীয় সন্তান প্রসবের সময় ঘটে ব্যতিক্রমী ঘটনা। জন্ম হয় এক পা বিশিষ্ট সন্তানের। প্রাথমিকভাবে ওই শিশু সন্তানের লিঙ্গ নির্ধারণ করতে পারেনি চিকিৎসক। এ ঘটনার পর প্রসূতি মাসহ সদ্য ভূমিষ্ট হওয়া দুই শিশুই সুস্থ রয়েছে।

বর্তমানের শিশুদুটি সুস্থ আছেন বলে নিশ্চিত করে চিকিৎসক।

নিউজটি শেয়ার করুন

এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য

এক পা বিশিষ্ট নবজাতকের জন্ম!  

আপডেট সময় : ১১:০৫:৩৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ মার্চ ২০২৪

বুধবার বিকেল ৩টার দিকে শহরের একটি ক্লিনিকে তাসলিমা আক্তার নামে এক প্রসূতি দুটি জমজ সন্তান প্রসব করেন। নবজাতক দু’টির একটি স্বাভাবিক আকৃতির হলেও অপরটি এক পা বিশিষ্ট শিশু !

ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। শিশুটিকে একনজর দেখতে দূর-দূরান্ত থেকে আসতে শুরু করে উৎসুক জনতা।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গেল ২০১৪ সালে নবাবগঞ্জ উপজেলার শালখরিয়া গ্রামের আমিরুল ইসলামের ছেলে মাহাফুজুল ইসলামের সঙ্গে একই এলাকার তোকছেদ আলীর মেয়ে তাসলিমার বিয়ে হয়। এরপর তাদের সংসার আলো করে এক ছেলে ও এক মেয়ে সন্তানের আগমন ঘটে। সম্প্রতি আবারো গর্ভবতী হন তসলিমা। পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে গর্ভে জমজ সন্তানের বিষয়টি নিশ্চিত হলে পারিবারিকভাবে সিজারের মাধ্যমে সন্তান প্রসবের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বুধবার সকালের দিকে প্রসব বেদনা উঠলে তাসলিমাকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে ভর্তি করানো হয়। বিকেল ৩ টার দিকে তার সিজার সম্পন্ন হয়। তবে প্রথমটি মেয়ে সন্তান হলেও দ্বিতীয় সন্তান প্রসবের সময় ঘটে ব্যতিক্রমী ঘটনা। জন্ম হয় এক পা বিশিষ্ট সন্তানের। প্রাথমিকভাবে ওই শিশু সন্তানের লিঙ্গ নির্ধারণ করতে পারেনি চিকিৎসক। এ ঘটনার পর প্রসূতি মাসহ সদ্য ভূমিষ্ট হওয়া দুই শিশুই সুস্থ রয়েছে।

বর্তমানের শিশুদুটি সুস্থ আছেন বলে নিশ্চিত করে চিকিৎসক।