ঢাকা ০৬:৩১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ঈশ্বরদীতে স্বামীকে তালাক দিয়ে স্ত্রীর আত্মহত্যা 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৩১:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২১ অগাস্ট ২০২৩
  • / ৫৫৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
// ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি //
ঈশ্বরদীতে স্বামীকে তালাক দিয়ে আত্মহত্যা করেছে এক গৃহবধু।  ঈশ্বরদীর সলিমপুর ইউনিয়নের জয়নগর পশ্চিম পাড়া জহুরুল ইসলামের কন্যা জুতি খাতুন (১৮)।  সোমবার (২১শে আগস্ট) সকালে ঘরের ডাবের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।
প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা যায়, গত ৭ বছর পূর্বে পাবনা জেলার দুবলিয়ায় উৎস নামে যুবকের  সাথে  জহুরুল ইসলাম তার মেয়েকে বিয়ে দেন। বিয়ের পর থেকেই স্বামী-স্ত্রী সুখে শান্তিতে বসবাস করছিল কিন্তু কিছুদিন না পেরুতেই শ্বাশুড়ির সাথে কারণে অকারণে ঝগড়া লেগেই থাকতো । এরই সূত্র ধরে গত শুক্রবার ও শনিবার আবার বিবাদে লিপ্ত হয়। খবর পেয়ে জহুরুল ইসলাম দুপুরে গিয়ে  এবং উপায়ান্ত না দেখে জহরুল ইসলাম তার মেয়েকে দিয়ে জামাইকে ডিভোর্স করিয়ে মেয়েকে গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় জয়নগরে নিয়ে আসেন। গতরাতে মা মেয়ে একই রুমে ছিল। সকালে মা বিছানা ছেড়ে আসলেও মেয়ে শুয়ে থাকে। এরাই ফাঁকে সোমবার সকাল ৮ টার সময় মেয়ে ঘরের মধ্যে দরজায় খিল দিয়ে ঘরের ডাবের সাথে ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। বাহির থেকে তার মা বুঝতে পেরে জানালা দিয়ে তাকিয়ে দেখে তার মেয়ে ঘরের ডাবের সঙ্গে ঝুলছে। সঙ্গে সঙ্গে বাড়ির লোকজন ঘরের দরজা ভেঙে জুথি উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার জুথিকে মৃত ঘোষণা করেন।
ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ অরবিন্দ সরকার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে আত্মহত্যার বিষয়টি আমরা জানতে পেরেছি। মৃতদেহটি এখনো হাসপাতালেই আছে। বিষয়টি তদন্তের জন্য আমরা কাজ করছি।
এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত লাশ ঈশ্বরদী থানায় পুলিশ হেফাজতে  রয়েছে।।

নিউজটি শেয়ার করুন

ঈশ্বরদীতে স্বামীকে তালাক দিয়ে স্ত্রীর আত্মহত্যা 

আপডেট সময় : ০৪:৩১:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২১ অগাস্ট ২০২৩
// ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি //
ঈশ্বরদীতে স্বামীকে তালাক দিয়ে আত্মহত্যা করেছে এক গৃহবধু।  ঈশ্বরদীর সলিমপুর ইউনিয়নের জয়নগর পশ্চিম পাড়া জহুরুল ইসলামের কন্যা জুতি খাতুন (১৮)।  সোমবার (২১শে আগস্ট) সকালে ঘরের ডাবের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।
প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা যায়, গত ৭ বছর পূর্বে পাবনা জেলার দুবলিয়ায় উৎস নামে যুবকের  সাথে  জহুরুল ইসলাম তার মেয়েকে বিয়ে দেন। বিয়ের পর থেকেই স্বামী-স্ত্রী সুখে শান্তিতে বসবাস করছিল কিন্তু কিছুদিন না পেরুতেই শ্বাশুড়ির সাথে কারণে অকারণে ঝগড়া লেগেই থাকতো । এরই সূত্র ধরে গত শুক্রবার ও শনিবার আবার বিবাদে লিপ্ত হয়। খবর পেয়ে জহুরুল ইসলাম দুপুরে গিয়ে  এবং উপায়ান্ত না দেখে জহরুল ইসলাম তার মেয়েকে দিয়ে জামাইকে ডিভোর্স করিয়ে মেয়েকে গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় জয়নগরে নিয়ে আসেন। গতরাতে মা মেয়ে একই রুমে ছিল। সকালে মা বিছানা ছেড়ে আসলেও মেয়ে শুয়ে থাকে। এরাই ফাঁকে সোমবার সকাল ৮ টার সময় মেয়ে ঘরের মধ্যে দরজায় খিল দিয়ে ঘরের ডাবের সাথে ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। বাহির থেকে তার মা বুঝতে পেরে জানালা দিয়ে তাকিয়ে দেখে তার মেয়ে ঘরের ডাবের সঙ্গে ঝুলছে। সঙ্গে সঙ্গে বাড়ির লোকজন ঘরের দরজা ভেঙে জুথি উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার জুথিকে মৃত ঘোষণা করেন।
ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ অরবিন্দ সরকার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে আত্মহত্যার বিষয়টি আমরা জানতে পেরেছি। মৃতদেহটি এখনো হাসপাতালেই আছে। বিষয়টি তদন্তের জন্য আমরা কাজ করছি।
এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত লাশ ঈশ্বরদী থানায় পুলিশ হেফাজতে  রয়েছে।।