ঢাকা ০১:৪২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ঈশ্বরদীতে রেলওয়ের তেল চুরির ঘটনা সাজানো দাবী করে অভিযুক্তদের সংবাদ সম্মেলন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:৫৯:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ মে ২০২৩
  • / ৫০৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

// ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি //

পাবনার ঈশ্বরদীতে রেলওয়ের ইঞ্জিন থেকে তেল চুরির ঘটনায় ট্রেনের দুই চালককে সাময়িক বরখাস্ত করার ঘটনা সম্পূর্ণ মিথ্যা এবং সাজানো বলে অভিযোগ করেছেন দুই চালক মো. তারেক আজাদ ও শাহীন রেজা। সোমবার দুপুরে ঈশ্বরদী প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এমন দাবী করেন।

অভিযোগে লিখিত বক্তব্যে মো. তারিক আজাদ বলেন, ঘটনার দিন গত ২০ মে আমি এবং আমার এ এল এম মো. শাহীন রেজা আরিফ কে সাথে নিয়ে এসবিআইডি ৩০ ডাউন নিয়ে দর্শনায় যায়। সেখানে চার্জ বুঝিয়ে দিয়ে পরবর্তীতে ৬৫৩২ নং লোকো চার্জ নিয়ে ২১.৪৫ (রাত ৯.৪৫ মি.) দর্শণা থেকে ঈশ্বরদী অভিমুখে ছেড়ে আসি। ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন ষ্টেশনে প্রবেশের সময় সিগন্যাল লাল থাকায় আউটাওে দাঁড়ায়। পরবর্তীতে সিংগন্যাল ক্লিয়ার হলে রাত ১২.২৫ মিনিটে ইঞ্জিন নিয়ে ঈশ্বরদী ষ্টেশনে প্রবেশ করি এবং ২.৫০ মিনিটে চার্জ হস্তান্তর করি। সে সময় এল এম আক্তারুজ্জামান ও তার সহকারী আমাদের থেকে চার্জ বুঝে নেন। রাতে বাসায় এসে সকালে জানতে পারি ঈশ্বরদী শহরের উমিরপুর এলাকায় ট্রেনের ইঞ্জিন থেকে তেল চুরির দায়ে দুই চোর আটক এবং সেই ঘটনায় সন্দেহভাজনভাবে আমাদের দু’জনকে অভিযুক্ত করে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। অথচ এ সম্পর্কে আমরা কিছুই জানিনা। কোন কুচক্রী মহল তাদের হীন স্বার্থেও জন্য আমাদেও বিরুদ্ধে এ ধরনের মিথ্যা অপবাদ দিচ্ছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত শনিবার রাত সাড়ে ১২ টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খুলনা-ঈশ্বরদী রেলরুটের ঈশ্বরদী পাতিবিল তিনকোণা পুকুর এলাকা থেকে ঈশ্বরদী রেলওয়ে গোয়েন্দা নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা তেলসহ তাদের আটক করে।

সাময়িক বহিস্কার হওয়া ট্রেনের দুই চালক হলেন মো. তারেক আজাদ ও শাহীন রেজা। তেলসহ আটক দুই চোর হলেন পাবনার ঈশ্বরদী পৌর এলাকার উমিরপুর গ্রামের মৃত আকতার আলীর ছেলে আমিনুল ইসলাম (৩৫), একই এলাকার ছামিউল আলমের ছেলে আলিফ মিয়া (১৮) তেল চোরের সহকারী ।

ঈশ্বরদী রেলওয়ে নিরাপত্তার গোয়েন্দা শাখার ইনচার্জ (এএসআই) মোঃ সিদ্দিকুর রহমান জানান, গত শনিবার রাত আনুমানিক সাড়ে ১২ টার চুয়াডাঙ্গার দর্শনা থেকে বগি ছাড়া ট্রেনের একটি লাইটিং ইঞ্জিন (৬৫৩২ নং ইঞ্জিন) ঈশ্বরদী লোকোমোটিভ অভিমুখে আসছিল। রেলওয়ে ইঞ্জিনটি ঈশ্বরদী স্টেশন সংলগ্ন তিনকোণা পুকুর এলাকায় থামিয়ে ইঞ্জিন থেকে তেল বের করেন ইঞ্জিনের দুই চালক ও চোরেরা। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঈশ্বরদী রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী (গোয়েন্দা) সদস্যরা অভিযান চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে তাদের হাতেনাতে আটক করে। এ সময় তাদের নিকট থেকে চটের বস্তার ভেতর রাখা ৫০ লিটার ডিজেল তেল জব্দ করা হয়।

তিনি আরো জানান, রেলওয়ের ট্রেনের ইঞ্জিন থেকে তেল চুরির সঙ্গে কিছু অসাধু লোকোমাস্টার, সহকারী লোকোমাস্টার জড়িত রয়েছেন। তেল চুরির সঙ্গে ঈশ্বরদীর প্রভাবশালী চক্র জড়িত রয়েছে। তারা পরস্পর যোগসাজসে দীর্ঘদিন ধরে ইঞ্জিন থেকে তেল বের করে পাচার করছে।

পাকশী বিভাগীয় যান্ত্রিক প্রকৌশলী (লোকো) আশীষ কুমার মন্ডল জানান, তেল চুরির ঘটনায় ইঞ্জিনের চালক ও সহকারী চালককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ঘটনায় পাকশী বিভাগীয় যন্ত্র প্রকৌশলী (ফুয়েল) গোলাম মুস্তফাকে আহবায়ক করে তিন সদস্য কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ঈশ্বরদী রেলওয়ে জিআরপি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিহির রঞ্জন দেব  জানান, তেল চুরির ঘটনায় দুই জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ঈশ্বরদী রেলওয়ে জিআরপি থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। আদালতের মাধ্যমে পাবনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে পাকশী বিভাগীয় ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) শাহ সুফী নূর মোহাম্মদ  জানান, দুই চালকের সাময়িক বরখাস্ত আদেশ কার্যকর করা হয়েছে। আগামী তিন কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।  তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ঈশ্বরদীতে রেলওয়ের তেল চুরির ঘটনা সাজানো দাবী করে অভিযুক্তদের সংবাদ সম্মেলন

আপডেট সময় : ০৮:৫৯:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ মে ২০২৩

// ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি //

পাবনার ঈশ্বরদীতে রেলওয়ের ইঞ্জিন থেকে তেল চুরির ঘটনায় ট্রেনের দুই চালককে সাময়িক বরখাস্ত করার ঘটনা সম্পূর্ণ মিথ্যা এবং সাজানো বলে অভিযোগ করেছেন দুই চালক মো. তারেক আজাদ ও শাহীন রেজা। সোমবার দুপুরে ঈশ্বরদী প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এমন দাবী করেন।

অভিযোগে লিখিত বক্তব্যে মো. তারিক আজাদ বলেন, ঘটনার দিন গত ২০ মে আমি এবং আমার এ এল এম মো. শাহীন রেজা আরিফ কে সাথে নিয়ে এসবিআইডি ৩০ ডাউন নিয়ে দর্শনায় যায়। সেখানে চার্জ বুঝিয়ে দিয়ে পরবর্তীতে ৬৫৩২ নং লোকো চার্জ নিয়ে ২১.৪৫ (রাত ৯.৪৫ মি.) দর্শণা থেকে ঈশ্বরদী অভিমুখে ছেড়ে আসি। ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন ষ্টেশনে প্রবেশের সময় সিগন্যাল লাল থাকায় আউটাওে দাঁড়ায়। পরবর্তীতে সিংগন্যাল ক্লিয়ার হলে রাত ১২.২৫ মিনিটে ইঞ্জিন নিয়ে ঈশ্বরদী ষ্টেশনে প্রবেশ করি এবং ২.৫০ মিনিটে চার্জ হস্তান্তর করি। সে সময় এল এম আক্তারুজ্জামান ও তার সহকারী আমাদের থেকে চার্জ বুঝে নেন। রাতে বাসায় এসে সকালে জানতে পারি ঈশ্বরদী শহরের উমিরপুর এলাকায় ট্রেনের ইঞ্জিন থেকে তেল চুরির দায়ে দুই চোর আটক এবং সেই ঘটনায় সন্দেহভাজনভাবে আমাদের দু’জনকে অভিযুক্ত করে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। অথচ এ সম্পর্কে আমরা কিছুই জানিনা। কোন কুচক্রী মহল তাদের হীন স্বার্থেও জন্য আমাদেও বিরুদ্ধে এ ধরনের মিথ্যা অপবাদ দিচ্ছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত শনিবার রাত সাড়ে ১২ টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খুলনা-ঈশ্বরদী রেলরুটের ঈশ্বরদী পাতিবিল তিনকোণা পুকুর এলাকা থেকে ঈশ্বরদী রেলওয়ে গোয়েন্দা নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা তেলসহ তাদের আটক করে।

সাময়িক বহিস্কার হওয়া ট্রেনের দুই চালক হলেন মো. তারেক আজাদ ও শাহীন রেজা। তেলসহ আটক দুই চোর হলেন পাবনার ঈশ্বরদী পৌর এলাকার উমিরপুর গ্রামের মৃত আকতার আলীর ছেলে আমিনুল ইসলাম (৩৫), একই এলাকার ছামিউল আলমের ছেলে আলিফ মিয়া (১৮) তেল চোরের সহকারী ।

ঈশ্বরদী রেলওয়ে নিরাপত্তার গোয়েন্দা শাখার ইনচার্জ (এএসআই) মোঃ সিদ্দিকুর রহমান জানান, গত শনিবার রাত আনুমানিক সাড়ে ১২ টার চুয়াডাঙ্গার দর্শনা থেকে বগি ছাড়া ট্রেনের একটি লাইটিং ইঞ্জিন (৬৫৩২ নং ইঞ্জিন) ঈশ্বরদী লোকোমোটিভ অভিমুখে আসছিল। রেলওয়ে ইঞ্জিনটি ঈশ্বরদী স্টেশন সংলগ্ন তিনকোণা পুকুর এলাকায় থামিয়ে ইঞ্জিন থেকে তেল বের করেন ইঞ্জিনের দুই চালক ও চোরেরা। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঈশ্বরদী রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী (গোয়েন্দা) সদস্যরা অভিযান চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে তাদের হাতেনাতে আটক করে। এ সময় তাদের নিকট থেকে চটের বস্তার ভেতর রাখা ৫০ লিটার ডিজেল তেল জব্দ করা হয়।

তিনি আরো জানান, রেলওয়ের ট্রেনের ইঞ্জিন থেকে তেল চুরির সঙ্গে কিছু অসাধু লোকোমাস্টার, সহকারী লোকোমাস্টার জড়িত রয়েছেন। তেল চুরির সঙ্গে ঈশ্বরদীর প্রভাবশালী চক্র জড়িত রয়েছে। তারা পরস্পর যোগসাজসে দীর্ঘদিন ধরে ইঞ্জিন থেকে তেল বের করে পাচার করছে।

পাকশী বিভাগীয় যান্ত্রিক প্রকৌশলী (লোকো) আশীষ কুমার মন্ডল জানান, তেল চুরির ঘটনায় ইঞ্জিনের চালক ও সহকারী চালককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ঘটনায় পাকশী বিভাগীয় যন্ত্র প্রকৌশলী (ফুয়েল) গোলাম মুস্তফাকে আহবায়ক করে তিন সদস্য কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ঈশ্বরদী রেলওয়ে জিআরপি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিহির রঞ্জন দেব  জানান, তেল চুরির ঘটনায় দুই জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ঈশ্বরদী রেলওয়ে জিআরপি থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। আদালতের মাধ্যমে পাবনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে পাকশী বিভাগীয় ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) শাহ সুফী নূর মোহাম্মদ  জানান, দুই চালকের সাময়িক বরখাস্ত আদেশ কার্যকর করা হয়েছে। আগামী তিন কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।  তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।