ঢাকা ০২:৪৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ঈশ্বরদীতে মাদক ব্যবসা বন্ধ করতে গিয়ে যুবলীগের ২ কর্মী ছুরিকাহত : গ্রেফতার-১

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:১১:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ মার্চ ২০২৩
  • / ৪৭৪ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি :
ঈশ্বরদীতে মাদক ব্যবসা বন্ধ করতে গিয়ে মোঃ পল্লব হোসেন (৪০) ও সেলিম হোসেন ওরফে ল্যাংড়া সেলিম (৩৫) নামের যুুবলীগের দুই কর্মী ছুরিকাঘাতে আহত করেছে সংঘবদ্ধ মাদক ব্যবসায়ীরা।
গত শনিবার সন্ধ্যায় শহরের ফতে মোহাম্মদপুর রেলওয়ে হাসপাতাল মোড়ে এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। আহত মোঃ পল্লব হোসেন (৪০) শহরের পূর্ব টেংরী আমবাগান এলাকার মৃত মজনু মিয়ার ছেলে ও সেলিম একই এলাকার মৃত আব্দুর রশিদের ছেলে।
এই ঘটনায় অভিযান চালিয়ে ঈশ্বরদীর কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী আবুল কাশেম লোলোকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঈশ্বরদী আমবাগান পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আব্দুর রউফ।
প্রত্যক্ষদশরী ও থানা সুত্র মতে, শনিবার বিকেলে ঈশ্বরদী শহরের ফতেমোহাম্মাদপুর ও আমবাগান এলাকার মাদক ব্যবসায়ী মোঃ জসিমকে (৩২) কয়েক বোতল ফেন্সিডিলসহ যুবলীগকর্মী পল্লব, সেলিমসহ কয়েকজন আটক করে। এই নিয়ে জসিমের সঙ্গে তাদের বিবাদ সৃষ্টি হয়। পরে পল্লব ও সেলিমসহ কয়েকজন সন্ধ্যার দিকে ফতোমোহাম্মাদপুর হাসপাতাল মোড়ে যায়। এই সময় মাদক ব্যবসায়ী জসিম তার সহযোগি অপর মাদক ব্যবসায়ী আবুল কাশেম লোলো, জুয়েল, আব্দুলসহ কয়েকজন তাদের কপালে পিস্তল ঠেকিয়ে জিম্মি করে। আর জসিম ধারালো ছুরি পল্লবের পেটে আঘাত করে। এতে পল্লবের ভুরি বের হয়ে যায়। এরপর জুয়েল ও লোলো পিঠে ছুরিকাঘাত করে। সঙ্গে থাকা সেলিম বাঁধা দিলে মাদক ব্যবসায়ীরা তাকেও ছুরিকাঘাতে আহত করে।   অবস্থার বেগতিক দেখে মোড়ের লোকজন ছুটে আসলে হামলাকারী মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। আহতদের উদ্ধার উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে পল্লবের অবস্থার অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল (রামেক) প্রেরণ করে।
আহত পল্লবের ভাই বিপ্লব হোসেন জানান, তার ভাই পল্লব ঈশ্বরদী বাজারের একজন চশমা ব্যবসায়ী। রাজনৈতিকভাবে যুবলীগকর্মী। ঈশ্বরদীর চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ীদের মাদক ব্যবসা বন্ধ করতে গিয়ে মাদক ব্যবসায়ীদের ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত করে। বর্তমানে পল্লব রামেক আইসিইউতে অচেতন অবস্থায় রয়েছে। এ ব্যপারে মাদক ব্যবসায়ী জসিম, লোলো, জুয়েল, আব্দুলসহ কয়েকজনের নামে থানা মামলা দায়ের করা হয়েছে।
ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) অরবিন্দ সরকার জানান, মাদক ব্যবসায়ীদের ছুরিকাঘাতে পল্লব ও সেলিম নামে দুইজন আহত হয়েছে। এই ঘটনায় আহত পল্লবের ভাই বিপ্লব বাদী হয়ে কয়েকজনের নাম উল্লেখ্য করে হত্যা চেষ্টার মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে মাদক ব্যবসায়ী আবুল কাশেম লোলোকে গ্রেফতার করেছে। অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
বা/খ : এসআর।

নিউজটি শেয়ার করুন

ঈশ্বরদীতে মাদক ব্যবসা বন্ধ করতে গিয়ে যুবলীগের ২ কর্মী ছুরিকাহত : গ্রেফতার-১

আপডেট সময় : ১০:১১:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ মার্চ ২০২৩
ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি :
ঈশ্বরদীতে মাদক ব্যবসা বন্ধ করতে গিয়ে মোঃ পল্লব হোসেন (৪০) ও সেলিম হোসেন ওরফে ল্যাংড়া সেলিম (৩৫) নামের যুুবলীগের দুই কর্মী ছুরিকাঘাতে আহত করেছে সংঘবদ্ধ মাদক ব্যবসায়ীরা।
গত শনিবার সন্ধ্যায় শহরের ফতে মোহাম্মদপুর রেলওয়ে হাসপাতাল মোড়ে এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। আহত মোঃ পল্লব হোসেন (৪০) শহরের পূর্ব টেংরী আমবাগান এলাকার মৃত মজনু মিয়ার ছেলে ও সেলিম একই এলাকার মৃত আব্দুর রশিদের ছেলে।
এই ঘটনায় অভিযান চালিয়ে ঈশ্বরদীর কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী আবুল কাশেম লোলোকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঈশ্বরদী আমবাগান পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আব্দুর রউফ।
প্রত্যক্ষদশরী ও থানা সুত্র মতে, শনিবার বিকেলে ঈশ্বরদী শহরের ফতেমোহাম্মাদপুর ও আমবাগান এলাকার মাদক ব্যবসায়ী মোঃ জসিমকে (৩২) কয়েক বোতল ফেন্সিডিলসহ যুবলীগকর্মী পল্লব, সেলিমসহ কয়েকজন আটক করে। এই নিয়ে জসিমের সঙ্গে তাদের বিবাদ সৃষ্টি হয়। পরে পল্লব ও সেলিমসহ কয়েকজন সন্ধ্যার দিকে ফতোমোহাম্মাদপুর হাসপাতাল মোড়ে যায়। এই সময় মাদক ব্যবসায়ী জসিম তার সহযোগি অপর মাদক ব্যবসায়ী আবুল কাশেম লোলো, জুয়েল, আব্দুলসহ কয়েকজন তাদের কপালে পিস্তল ঠেকিয়ে জিম্মি করে। আর জসিম ধারালো ছুরি পল্লবের পেটে আঘাত করে। এতে পল্লবের ভুরি বের হয়ে যায়। এরপর জুয়েল ও লোলো পিঠে ছুরিকাঘাত করে। সঙ্গে থাকা সেলিম বাঁধা দিলে মাদক ব্যবসায়ীরা তাকেও ছুরিকাঘাতে আহত করে।   অবস্থার বেগতিক দেখে মোড়ের লোকজন ছুটে আসলে হামলাকারী মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। আহতদের উদ্ধার উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে পল্লবের অবস্থার অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল (রামেক) প্রেরণ করে।
আহত পল্লবের ভাই বিপ্লব হোসেন জানান, তার ভাই পল্লব ঈশ্বরদী বাজারের একজন চশমা ব্যবসায়ী। রাজনৈতিকভাবে যুবলীগকর্মী। ঈশ্বরদীর চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ীদের মাদক ব্যবসা বন্ধ করতে গিয়ে মাদক ব্যবসায়ীদের ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত করে। বর্তমানে পল্লব রামেক আইসিইউতে অচেতন অবস্থায় রয়েছে। এ ব্যপারে মাদক ব্যবসায়ী জসিম, লোলো, জুয়েল, আব্দুলসহ কয়েকজনের নামে থানা মামলা দায়ের করা হয়েছে।
ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) অরবিন্দ সরকার জানান, মাদক ব্যবসায়ীদের ছুরিকাঘাতে পল্লব ও সেলিম নামে দুইজন আহত হয়েছে। এই ঘটনায় আহত পল্লবের ভাই বিপ্লব বাদী হয়ে কয়েকজনের নাম উল্লেখ্য করে হত্যা চেষ্টার মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে মাদক ব্যবসায়ী আবুল কাশেম লোলোকে গ্রেফতার করেছে। অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
বা/খ : এসআর।