ঢাকা ১০:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ঈদের সময় এলো সাড়ে ৯ হাজার কো‌টি টাকার প্রবাসী আয়

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৯:৫৫:০৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৪৬৯ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ছবি

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

এপ্রিল মাসের প্রথম ১২ দিনে বৈধ বা ব্যাংকিং চ্যানেলে ৮৭ কোটি ৭১ লাখ মার্কিন ডলারের বেশি সমপরিমাণ অর্থ দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। দেশীয় মুদ্রায় (প্র‌তি ডলার ১১০ টাকা ধ‌রে) যার পরিমাণ ৯ হাজার ৬৪৮ কোটি টাকা। সেই হিসাবে ঈদের সময় রমজানের শেষদিকে দৈনিক রেমিট্যান্স এসেছে ৮০০ কোটি টাকার বেশি পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা। তবে দেশে কার্যরত ১০টি ব্যাংকে কোনো প্রবাসী আয় আসেনি। সোমবার (১৫ এপ্রিল) বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানা গেছে।

এতে বলা হয়, আলোচ্য সময়ে ১০টি ব্যাংকে কোনো রেমিট্যান্স আসেনি। এর মধ্যে ১টি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক, ১টি বিশেষায়িত ব্যাংক, ৪টি বেসরকারি ব্যাংক এবং ৪টি বিদেশি ব্যাংক রয়েছে।

চলমান এপ্রিলের প্রথম ১২ দিনে রাষ্ট্র মালিকানাধীন বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (বিডিবিএল), বিশেষায়িত খাতের রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক (রাকাব) এবং বেসরকারি খাতের কমিউনিটি ব্যাংক, সিটিজেন্স ব্যাংক, মেঘনা ব্যাংক ও আইসিবি ইসলামি ব্যাংকে কোনো প্রবাসী আয় আসেনি। এছাড়া বিদেশি খাতের হাবিব ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান, স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া এবং উরি ব্যাংকেও কোনো রেমিট্যান্স আসেনি।

আলোচিত সময়ে দেশে এসেছে ৮৭ কোটি ৭১ লাখ মার্কিন ডলার। এর মধ্যে রাষ্ট্রীয় ব্যাংকের মাধ্যমে ৭ কোটি ২০ লাখ ৮০ হাজার ডলার এবং বিশেষায়িত ব্যাংকের মাধ্যমে ৪ কোটি ৮৪ লাখ ২০ হাজার ডলার পৌঁছেছে। এছাড়া বেসরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে ৭৫ কোটি ৩৯ লাখ ৩০ হাজার ডলার এবং বিদেশি খাতের ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ২৬ লাখ ৭০ হাজার ডলার রেমিট্যান্স।

অর্থনীতি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মূলত ঈদকে কেন্দ্র করে রেমিট্যান্স প্রবাহ বেড়েছে। প্রবাসীরা পরিবার-পরিজনের কাছে অর্থ পাঠিয়েন। এই সুবাতাস কুরবানির ঈদ পর্যন্ত থাকতে পারে। রেমিট্যান্সের এই ধারা অব্যাহত থাকলে দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বাড়বে। ফলে ডলার সংকটও কাটবে।

গত মার্চে দেশে এসেছে ১৯৯ কোটি ৬৮ লাখ মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স। তাছাড়া ফেব্রুয়ারি এসেছিল ২১৬ কোটি ৬০ লাখ মার্কিন ডলার। চলতি অর্থবছরে যা সর্বোচ্চ।

নিউজটি শেয়ার করুন

ঈদের সময় এলো সাড়ে ৯ হাজার কো‌টি টাকার প্রবাসী আয়

আপডেট সময় : ০৯:৫৫:০৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

এপ্রিল মাসের প্রথম ১২ দিনে বৈধ বা ব্যাংকিং চ্যানেলে ৮৭ কোটি ৭১ লাখ মার্কিন ডলারের বেশি সমপরিমাণ অর্থ দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। দেশীয় মুদ্রায় (প্র‌তি ডলার ১১০ টাকা ধ‌রে) যার পরিমাণ ৯ হাজার ৬৪৮ কোটি টাকা। সেই হিসাবে ঈদের সময় রমজানের শেষদিকে দৈনিক রেমিট্যান্স এসেছে ৮০০ কোটি টাকার বেশি পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা। তবে দেশে কার্যরত ১০টি ব্যাংকে কোনো প্রবাসী আয় আসেনি। সোমবার (১৫ এপ্রিল) বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানা গেছে।

এতে বলা হয়, আলোচ্য সময়ে ১০টি ব্যাংকে কোনো রেমিট্যান্স আসেনি। এর মধ্যে ১টি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক, ১টি বিশেষায়িত ব্যাংক, ৪টি বেসরকারি ব্যাংক এবং ৪টি বিদেশি ব্যাংক রয়েছে।

চলমান এপ্রিলের প্রথম ১২ দিনে রাষ্ট্র মালিকানাধীন বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (বিডিবিএল), বিশেষায়িত খাতের রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক (রাকাব) এবং বেসরকারি খাতের কমিউনিটি ব্যাংক, সিটিজেন্স ব্যাংক, মেঘনা ব্যাংক ও আইসিবি ইসলামি ব্যাংকে কোনো প্রবাসী আয় আসেনি। এছাড়া বিদেশি খাতের হাবিব ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান, স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া এবং উরি ব্যাংকেও কোনো রেমিট্যান্স আসেনি।

আলোচিত সময়ে দেশে এসেছে ৮৭ কোটি ৭১ লাখ মার্কিন ডলার। এর মধ্যে রাষ্ট্রীয় ব্যাংকের মাধ্যমে ৭ কোটি ২০ লাখ ৮০ হাজার ডলার এবং বিশেষায়িত ব্যাংকের মাধ্যমে ৪ কোটি ৮৪ লাখ ২০ হাজার ডলার পৌঁছেছে। এছাড়া বেসরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে ৭৫ কোটি ৩৯ লাখ ৩০ হাজার ডলার এবং বিদেশি খাতের ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ২৬ লাখ ৭০ হাজার ডলার রেমিট্যান্স।

অর্থনীতি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মূলত ঈদকে কেন্দ্র করে রেমিট্যান্স প্রবাহ বেড়েছে। প্রবাসীরা পরিবার-পরিজনের কাছে অর্থ পাঠিয়েন। এই সুবাতাস কুরবানির ঈদ পর্যন্ত থাকতে পারে। রেমিট্যান্সের এই ধারা অব্যাহত থাকলে দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বাড়বে। ফলে ডলার সংকটও কাটবে।

গত মার্চে দেশে এসেছে ১৯৯ কোটি ৬৮ লাখ মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স। তাছাড়া ফেব্রুয়ারি এসেছিল ২১৬ কোটি ৬০ লাখ মার্কিন ডলার। চলতি অর্থবছরে যা সর্বোচ্চ।