ঢাকা ০২:২৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত বেড়ে ৩৩৫৪৫

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১২:৪৭:০২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৪২৯ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

গাজায় আবারও হামলার তীব্রতা বাড়িয়েছে ইসরাইল। গত ২৪ ঘণ্টায় দখলদারদের হামলায় অন্তত ৬৩ ফিলিস্তিনির মৃত্যু হয়েছে। এসময় আহত হয়েছেন ৪৫ জন। এ নিয়ে কমপক্ষে ৩৩ হাজার ৫৪৫ জন নিহত হয়েছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, গত বছরের ৭ অক্টোবর হামাসের যোদ্ধারা ইসরায়েলে হামলা চালালে নতুন করে শুরু হওয়া এ যুদ্ধে গাজা উপত্যকায় ৭৬ হাজার ৯৪ জন আহত হয়েছেন।

এদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, গাজার দক্ষিণের খান ইউনিস থেকে সেনা প্রত্যাহার করলেও অঞ্চলটির ধ্বংসযজ্ঞ এবং চিকিৎসা খাতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এই পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে ফিলিস্তিনিদের আরো অনেকটা সময় লাগবে। ইউ.এস.এইড প্রধান সামান্থা পাওয়ার বলছেন, বিশ্বাস করতে কষ্ট হলেও এটিই সত্য যে, উত্তর গাজায় এরইমধ্যে দুর্ভিক্ষ শুরু হয়ে গেছে।

জাতিসংঘ আগেই সতর্ক করে বলেছিল, অঞ্চলটিতে আশ্রয় নেয়া প্রায় ৭০ শতাংশ ফিলিস্তিনি মার্চ থেকে মে মাসের মাঝামাঝি সময়ে দুর্ভিক্ষের সম্মুখিন হতে পারে। অন্যদিকে, হামাসের হাতে বন্দী ইসরাইলি জিম্মিদের মুক্তির জন্য তেল আবিবে বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। আন্দোলনকারীদের দাবি, জিম্মিদের মুক্তির পাশাপাশি নেতানিয়াহু সরকারকে ক্ষমতা ছাড়তে হবে।

গত ৭ অক্টোবর হামাস প্রায় এক হাজার ১৭০ ইসরায়েলিকে হত্যা এবং ২৫০ জনকে জিম্মি করে। এখনও তাদের হাতে ১৫০ জিম্মি আটক রয়েছে। ইসরায়েল গাজায় প্রতিশোধমূলক পাল্টা হামলা শুরু করে, যা এখনও চলছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত বেড়ে ৩৩৫৪৫

আপডেট সময় : ১২:৪৭:০২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪

গাজায় আবারও হামলার তীব্রতা বাড়িয়েছে ইসরাইল। গত ২৪ ঘণ্টায় দখলদারদের হামলায় অন্তত ৬৩ ফিলিস্তিনির মৃত্যু হয়েছে। এসময় আহত হয়েছেন ৪৫ জন। এ নিয়ে কমপক্ষে ৩৩ হাজার ৫৪৫ জন নিহত হয়েছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, গত বছরের ৭ অক্টোবর হামাসের যোদ্ধারা ইসরায়েলে হামলা চালালে নতুন করে শুরু হওয়া এ যুদ্ধে গাজা উপত্যকায় ৭৬ হাজার ৯৪ জন আহত হয়েছেন।

এদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, গাজার দক্ষিণের খান ইউনিস থেকে সেনা প্রত্যাহার করলেও অঞ্চলটির ধ্বংসযজ্ঞ এবং চিকিৎসা খাতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এই পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে ফিলিস্তিনিদের আরো অনেকটা সময় লাগবে। ইউ.এস.এইড প্রধান সামান্থা পাওয়ার বলছেন, বিশ্বাস করতে কষ্ট হলেও এটিই সত্য যে, উত্তর গাজায় এরইমধ্যে দুর্ভিক্ষ শুরু হয়ে গেছে।

জাতিসংঘ আগেই সতর্ক করে বলেছিল, অঞ্চলটিতে আশ্রয় নেয়া প্রায় ৭০ শতাংশ ফিলিস্তিনি মার্চ থেকে মে মাসের মাঝামাঝি সময়ে দুর্ভিক্ষের সম্মুখিন হতে পারে। অন্যদিকে, হামাসের হাতে বন্দী ইসরাইলি জিম্মিদের মুক্তির জন্য তেল আবিবে বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। আন্দোলনকারীদের দাবি, জিম্মিদের মুক্তির পাশাপাশি নেতানিয়াহু সরকারকে ক্ষমতা ছাড়তে হবে।

গত ৭ অক্টোবর হামাস প্রায় এক হাজার ১৭০ ইসরায়েলিকে হত্যা এবং ২৫০ জনকে জিম্মি করে। এখনও তাদের হাতে ১৫০ জিম্মি আটক রয়েছে। ইসরায়েল গাজায় প্রতিশোধমূলক পাল্টা হামলা শুরু করে, যা এখনও চলছে।