বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:৪৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
বৃহস্পতিবার থেকে রাজশাহী বিভাগে পরিবহন ধর্মঘট ১৬ বছর পর ডেনমার্ককে হারিয়ে শেষ ষোলো’তে অস্ট্রেলিয়া চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সকে হারিয়েও তিউনিসিয়ার কান্না রাউজানে ডাকাতির ঘটনায় র‌্যাবের হাতে আরো এক ডাকাত আটক রাউজানে স্কুল থেকে ফেরার পথে ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টায় যুবক কারাগারে রাউজানে ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার ‘আওয়ামী লীগ গরীব দুখী মেহনতি মানুষের কল্যানে রাজনীতি করে’ -কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে এমপি মুহিব ডিমলায় বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা রিজার্ভ কমে ৩৩ বিলিয়নে নেমেছে নিউজিল্যান্ডদের কাছে সিরিজ হারল ভারত তিন নারী রেফারি, ইতিহাস গড়তে যাচ্ছে কাতার বিশ্বকাপ কীর্তি সুরেশের বিয়ে প্রফেসর মযহারুল ইসলাম ॥ শ্রদ্ধাঞ্জলি সিটি করপোরেশনে মহামারি বিশেষজ্ঞ পদসৃষ্টির প্রস্তাব পেয়েছি : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সফরে আসছে ভারত

ইমরানকে দেখতে ৬ বছর পর পাকিস্তানে তার দুই ছেলে

ইমরানকে দেখতে ৬ বছর পর পাকিস্তানে তার দুই ছেলে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 
ইসলামাবাদ অভিমুখে লংমার্চে গুলিবিদ্ধ ইমরান খানকে দেখতে পাকিস্তানে এসেছেন তার দুই ছেলে সুলেমান খান ও কাসিম খান। বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) যুক্তরাজ্য থেকে তারা লাহোর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান।

সংবাদমাধ্যমের খবরে জানা যায়, ইমরান খানের দুই ছেলেকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানান পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রাদেশিক সরকারের মন্ত্রী মিঞা আসলাম ইকবাল। গুলিবিদ্ধ ইমরান খানকে দেখতে দীর্ঘ ছয় বছর পর পাকিস্তানে পা রাখলেন সুলেমান খান ও কাসিম খান। সর্বশেষ ২০১৬ সালে পাকিস্তানে এসেছিলেন তারা।

আগাম নির্বাচনের দাবিতে গত ২৮ অক্টোবর লাহোর থেকে ইসলামাবাদের উদ্দেশে লংমার্চ শুরু করেছিলেন ইমরান খান। লংমার্চ শান্তিপূর্ণভাবে চললেও গত ৩ নভেম্বর পাঞ্জাবের ওয়াজিরাবাদে পৌঁছালে ইমরানের ওপর হামলা হয়। তার পায়ে গুলি লাগে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকাবস্থায় স্থগিত ছিল লংমার্চ। এক সপ্তাহের ব্যবধানে সেখান থেকেই আবারও সরকারবিরোধী আন্দোলন শুরু করেছেন তিনি। ৪ নভেম্বর ইসলামাবাদের রাওয়াত এলাকায় সমাবেশের মাধ্যমে এই লংমার্চ শেষ হওয়ার কথা ছিল।

ইমরান খানের পায়ে গুলি লেগেছিল। গুলিবিদ্ধ হওয়ার পরপরই তাকে লাহোরের শওকত খানম হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। এখনও সেখানেই চিকিৎসাধীন তিনি।

ইমরান-জেমিমা দম্পতির দুই সন্তান সুলেমান খান ও কাসিম খান। জেমিমা গোল্ডস্মিথ ইমরান খানের প্রথম স্ত্রী।

১৯৯৫ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন এই যুগল। নয় বছর পর ২০০৪ সালে তাদের বিচ্ছেদ ঘটে।
এর পর ইমরান খান বিয়ে করেন বিবিসির সাংবাদিক রেহাম খানকে। কিন্তু তার এক বছরের মধ্যেই ২০১৫ সালে রেহামের সঙ্গে বিচ্ছেদ ঘটে ইমরান খানের। তারপর ২০১৮ সালে বুশরা বিবি নামে এক নারীকে বিয়ে করেন ইমরান।

জানা যায়, বিচ্ছেদের পর জেমিমা গোল্ডস্মিথ পাকিস্তান থেকে নিজের দেশ ইংল্যান্ডে ফিরে গিয়ে পেশাদার লেখালিখি, চলচ্চিত্র ও তথ্যচিত্র নির্মাণে মন দেন। এই দম্পতির দুই সন্তান তাদের মায়ের সঙ্গেই বসবাস করছিলেন।
ইমরান খান গুলিবিদ্ধ হওয়ার পরপরই এক টুইটবার্তায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন জেমিমা। ইমরান খানের জীবন আশঙ্কামুক্ত হওয়ায় স্বস্তিও প্রকাশ করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) যুক্তরাজ্যের সাংবাদিক পিয়ার্স মর্গানকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ইমরান খান বলেছিলেন, তার দুই ছেলে তাকে দেখার জন্য অধীর হয়ে উঠেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *