ঢাকা ০৬:৩৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

আমরা কাউকে বলিনি, ব্রিকসের সদস্যপদ এখনই দিতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৫:০২:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ অগাস্ট ২০২৩
  • / ৫০০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ব্রিকস যখন প্রতিষ্ঠা হয়, তখন থেকেই পাঁচটি উদ্যোক্তা দেশের সরকার ও রাষ্ট্র প্রধানের সঙ্গে আমার ভালো যোগাযোগ ছিল। বাংলাদেশ কিছু চেয়ে পাবে না, এটা ঠিক না। আমরা কাউকে কিন্তু বলিনি—আমাদের ব্রিকসের সদস্যপদ এখনই দিতে হবে। আমরা জানি, বিএনপি বা বিরোধীরা এটি নিয়ে বেশ উল্লাস করবে যে, আমরা ব্রিকসের সদস্যপদ পাইনি।

আজ মঙ্গলবার (২৯ আগস্ট) প্রধানমন্ত্রীর তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর সাম্প্রতিক দক্ষিণ আফ্রিকা সফর সম্পর্কে গণমাধ্যমকে অবহিত করতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত রয়েছেন জাতীয় সংসদ উপনেতা ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মতিয়া চৌধুরী, প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ সেলিম, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

বিএনপির কড়া সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি তো ভিক্ষার ঝুলি নিয়ে বিদেশে যেত। আমরা বাংলাদেশকে বিশ্বের একটি সম্মান ও মর্যাদার জায়গায় নিয়ে যেতে পারেছি।

ব্রিকস সম্মেলনে অংশগ্রহণকে অত্যন্ত ফলপ্রসূ হিসেবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের ব্রিকস সম্মেলনে অংশগ্রহণ করাটা ছিল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ সম্মেলনে অংশ নেওয়ায় আমাদের জন্য দুনিয়ার দুয়ার খুলে গেছে। সম্মেলনের বিভিন্ন পর্যায়ে অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিশ্ব নেতাদের সঙ্গে আমার বৈঠক হয়।

সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী ব্রিকস সম্মেলনে অংশ নেওয়ার প্রেক্ষাপট তুলে ধরে বলেন, আমরা নিষেধাজ্ঞা ও পাল্টা নিষেধাজ্ঞা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। এ বিষয়গুলো আমি সম্মেলনে তুলে ধরেছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন করেছি। মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়েছে সেই সঙ্গে মানুষের গড় আয়ুও বেড়েছে আমাদের সরকারের আমলে। আমরা উন্নয়নের মাধ্যমে দেশের মানুষকে অভিশাপমুক্ত করেছি।

দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাপোসার আমন্ত্রণে ২২ থেকে ২৪ আগস্ট জোহানেসবার্গে অনুষ্ঠিত ১৫তম ব্রিকস শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী। সম্মেলনে শেষে গত রোববার তিনি দেশে ফিরেন।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত আছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, জাতীয় সংসদের উপনেতা ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মতিয়া চৌধুরী, প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আমরা কাউকে বলিনি, ব্রিকসের সদস্যপদ এখনই দিতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৫:০২:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ অগাস্ট ২০২৩

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ব্রিকস যখন প্রতিষ্ঠা হয়, তখন থেকেই পাঁচটি উদ্যোক্তা দেশের সরকার ও রাষ্ট্র প্রধানের সঙ্গে আমার ভালো যোগাযোগ ছিল। বাংলাদেশ কিছু চেয়ে পাবে না, এটা ঠিক না। আমরা কাউকে কিন্তু বলিনি—আমাদের ব্রিকসের সদস্যপদ এখনই দিতে হবে। আমরা জানি, বিএনপি বা বিরোধীরা এটি নিয়ে বেশ উল্লাস করবে যে, আমরা ব্রিকসের সদস্যপদ পাইনি।

আজ মঙ্গলবার (২৯ আগস্ট) প্রধানমন্ত্রীর তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর সাম্প্রতিক দক্ষিণ আফ্রিকা সফর সম্পর্কে গণমাধ্যমকে অবহিত করতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত রয়েছেন জাতীয় সংসদ উপনেতা ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মতিয়া চৌধুরী, প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ সেলিম, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

বিএনপির কড়া সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি তো ভিক্ষার ঝুলি নিয়ে বিদেশে যেত। আমরা বাংলাদেশকে বিশ্বের একটি সম্মান ও মর্যাদার জায়গায় নিয়ে যেতে পারেছি।

ব্রিকস সম্মেলনে অংশগ্রহণকে অত্যন্ত ফলপ্রসূ হিসেবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের ব্রিকস সম্মেলনে অংশগ্রহণ করাটা ছিল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ সম্মেলনে অংশ নেওয়ায় আমাদের জন্য দুনিয়ার দুয়ার খুলে গেছে। সম্মেলনের বিভিন্ন পর্যায়ে অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিশ্ব নেতাদের সঙ্গে আমার বৈঠক হয়।

সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী ব্রিকস সম্মেলনে অংশ নেওয়ার প্রেক্ষাপট তুলে ধরে বলেন, আমরা নিষেধাজ্ঞা ও পাল্টা নিষেধাজ্ঞা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। এ বিষয়গুলো আমি সম্মেলনে তুলে ধরেছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন করেছি। মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়েছে সেই সঙ্গে মানুষের গড় আয়ুও বেড়েছে আমাদের সরকারের আমলে। আমরা উন্নয়নের মাধ্যমে দেশের মানুষকে অভিশাপমুক্ত করেছি।

দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাপোসার আমন্ত্রণে ২২ থেকে ২৪ আগস্ট জোহানেসবার্গে অনুষ্ঠিত ১৫তম ব্রিকস শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী। সম্মেলনে শেষে গত রোববার তিনি দেশে ফিরেন।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত আছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, জাতীয় সংসদের উপনেতা ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মতিয়া চৌধুরী, প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম প্রমুখ।