ঢাকা ০৫:৪১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

আবারো গানে ফিরতে চায় নওগাঁর রিংকু

শামীম আনসারী, নওগাঁ থেকে
  • আপডেট সময় : ০৯:০৭:২১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ মে ২০২৪
  • / ৪৮০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
এক সময় স্টেজ শো, অ্যালবাম প্রকাশ,পথে-প্রান্তরে ছুঁটে বেড়িয়েছেন গান ভালোবেসে, নিজের কন্ঠে শ্রোতাদের মুগ্ধ করতে। কিন্তু এখন পুরোপুরি অবসরে রিংকু ! নেই আগের মত কোনো ব্যস্ততা।
ক্লোজআপ ওয়ান প্রতিযোগিতায় বাজিমাতের মাধ্যমে সংগীত জগতে নিজের জায়গা করে নেন রিংকু। ব্যস্ত হয়ে পড়েন স্টেজ শো ও অ্যালবাম প্রকাশে। ‘পাগলা ঘণ্টা’, ‘বাউল মন’ ও ‘জগৎ বন্ধু’ নামের তিনটি অডিও অ্যালবাম বের করেছিলেন। গানের মাধ্যমে শ্রোতাদের মনে যায়গা করে জনপ্রিয়তার শীর্ষে গিয়েছেন । কিন্তু এতো জনপ্রিয়তা অর্জন করার পড়েও রিংকু এখন পুরোপুরি অবসরে আগের মতো নেই ব্যস্ততা, অসুস্থ হওয়ার কারণে গানের জগৎ থেকে এখন দূরেই রয়েছেন এই শিল্পী। ২০১৬ সালে ইতালিতে শো করার সময় প্রথমবার স্ট্রোক করেন। এরপর দেশে এসে চিকিৎসা নিয়ে গানে ফিরেছিলেন। কিন্তু ২০১৮ সালে আবারও স্ট্রোক করেন। এরপর ২০২০ সালে পরপর দুইবার স্ট্রোক করেছেন।
নওগাঁর আত্রাই উপজেলার বড় সাওতা গ্রামের মহসীন আলী মৃধার ছেলে মশিউর রহমান রিংকু। ২০০৫ সালে ক্লোজআপ ওয়ান সংগীত প্রতিযোগিতার মাধ্যমে তিনি নজর কাড়েন দেশজুড়ে এমনকি জায়গা করে নিয়েছিলেন সেরা পাঁচে। তাঁর কণ্ঠে লোকগান ও বাউলগান শ্রোতামহলে ব্যাপক জনপ্রিয়।  বর্তমানে আগের চেয়ে কিছুটা সুস্থ হয়ে উঠেছেন রিংকু। আবারও ফিরতে চান গানের ভু্বনে।
 তিনি বলেন, একটা সময় স্টেজ মাতিয়েছি। নতুন নতুন গান করেছি। কিন্তু এখন সব বন্ধ। আমাকে অনেকেই ডাকেন গানের জন্য। কিন্তু এ অবস্থায় গাইতে পারি না দেখে যাই না।
আবারও গানে ফেরার ইচ্ছে প্রকাশ করে রিংকু বলেন, আমি যে গানগুলো গেয়েছি, আমার কণ্ঠের গান যারা পছন্দ করেন—তারা সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন, যাতে আগের মতো গাইতে পারি। কিন্তু আগের মতো গাওয়া সম্ভব নয়, তারপরও চেষ্টা করব।
রিংকুর কণ্ঠে বাউল মন অ্যালবামের ‘নারী হয় লজ্জাতে লাল’ গানটি জনপ্রিয়তা পায়। সে সময়ে এটি ছড়িয়ে পড়েছিল দেশজুড়ে।
স্থানীয় এলাকাবাসীদের সাথে কথা হলে তারা জানান, যদি এই গুনী শিল্পীকে বিদেশে নিয়ে উন্নত চিকিৎসা করানো যেত, তাহলে সুস্থ হয়ে উঠতেন তিনি এবং আবারো গানের জগতে ফিরতেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আবারো গানে ফিরতে চায় নওগাঁর রিংকু

আপডেট সময় : ০৯:০৭:২১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ মে ২০২৪
এক সময় স্টেজ শো, অ্যালবাম প্রকাশ,পথে-প্রান্তরে ছুঁটে বেড়িয়েছেন গান ভালোবেসে, নিজের কন্ঠে শ্রোতাদের মুগ্ধ করতে। কিন্তু এখন পুরোপুরি অবসরে রিংকু ! নেই আগের মত কোনো ব্যস্ততা।
ক্লোজআপ ওয়ান প্রতিযোগিতায় বাজিমাতের মাধ্যমে সংগীত জগতে নিজের জায়গা করে নেন রিংকু। ব্যস্ত হয়ে পড়েন স্টেজ শো ও অ্যালবাম প্রকাশে। ‘পাগলা ঘণ্টা’, ‘বাউল মন’ ও ‘জগৎ বন্ধু’ নামের তিনটি অডিও অ্যালবাম বের করেছিলেন। গানের মাধ্যমে শ্রোতাদের মনে যায়গা করে জনপ্রিয়তার শীর্ষে গিয়েছেন । কিন্তু এতো জনপ্রিয়তা অর্জন করার পড়েও রিংকু এখন পুরোপুরি অবসরে আগের মতো নেই ব্যস্ততা, অসুস্থ হওয়ার কারণে গানের জগৎ থেকে এখন দূরেই রয়েছেন এই শিল্পী। ২০১৬ সালে ইতালিতে শো করার সময় প্রথমবার স্ট্রোক করেন। এরপর দেশে এসে চিকিৎসা নিয়ে গানে ফিরেছিলেন। কিন্তু ২০১৮ সালে আবারও স্ট্রোক করেন। এরপর ২০২০ সালে পরপর দুইবার স্ট্রোক করেছেন।
নওগাঁর আত্রাই উপজেলার বড় সাওতা গ্রামের মহসীন আলী মৃধার ছেলে মশিউর রহমান রিংকু। ২০০৫ সালে ক্লোজআপ ওয়ান সংগীত প্রতিযোগিতার মাধ্যমে তিনি নজর কাড়েন দেশজুড়ে এমনকি জায়গা করে নিয়েছিলেন সেরা পাঁচে। তাঁর কণ্ঠে লোকগান ও বাউলগান শ্রোতামহলে ব্যাপক জনপ্রিয়।  বর্তমানে আগের চেয়ে কিছুটা সুস্থ হয়ে উঠেছেন রিংকু। আবারও ফিরতে চান গানের ভু্বনে।
 তিনি বলেন, একটা সময় স্টেজ মাতিয়েছি। নতুন নতুন গান করেছি। কিন্তু এখন সব বন্ধ। আমাকে অনেকেই ডাকেন গানের জন্য। কিন্তু এ অবস্থায় গাইতে পারি না দেখে যাই না।
আবারও গানে ফেরার ইচ্ছে প্রকাশ করে রিংকু বলেন, আমি যে গানগুলো গেয়েছি, আমার কণ্ঠের গান যারা পছন্দ করেন—তারা সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন, যাতে আগের মতো গাইতে পারি। কিন্তু আগের মতো গাওয়া সম্ভব নয়, তারপরও চেষ্টা করব।
রিংকুর কণ্ঠে বাউল মন অ্যালবামের ‘নারী হয় লজ্জাতে লাল’ গানটি জনপ্রিয়তা পায়। সে সময়ে এটি ছড়িয়ে পড়েছিল দেশজুড়ে।
স্থানীয় এলাকাবাসীদের সাথে কথা হলে তারা জানান, যদি এই গুনী শিল্পীকে বিদেশে নিয়ে উন্নত চিকিৎসা করানো যেত, তাহলে সুস্থ হয়ে উঠতেন তিনি এবং আবারো গানের জগতে ফিরতেন তিনি।