ঢাকা ০১:১০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

আবারও বাংলাদেশে ঢুকে পড়ল মিয়ানমার সেনাবাহিনী

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০২:৩৪:৩২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩০ মার্চ ২০২৪
  • / ৪৩০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মিয়ানমারের অভ্যন্তরে সংঘাতের জেরে বাংলাদেশে আবারও পালিয়ে এসেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ৩ সদস্য। শনিবার (৩০ মার্চ) এ তথ্য জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

জানা গেছে, শনিবার (৩০ মার্চ) ভোরে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুমের তুমব্রু সীমান্ত দিয়ে এই ৩ সদস্য পালিয়ে আসে। পরে বিজিবি সদস্যরা গিয়ে তাদের সঙ্গে থাকা অস্ত্র জমা নেয়ার পর তাদের নাইক্ষ্যংছড়ি ব্যাটালিয়নে নিয়ে যায়। টহলরত ১১ বিজিবি জোয়ানরা তুমব্রু বিওপিতে নিয়ে যান তাদেরকে।

এই সীমান্তে দায়িত্ব পালন করা ৩৪ বিজিবি অধিনায়কের ব্যবস্থাপনায় তাদের ১১ বিজিবির অধীনে নাইক্ষ্যংছড়ির সদরের বর্ডার গার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মিয়ানমার জান্তার আগের ১৭৭ সদস্যের সঙ্গে রাখা হয়েছে। এতে পালিয়ে আসা জান্তা সদস্যের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৮০।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানায়, ১৭৭ জনকে আগামী ৫ এপ্রিল বা ৭ এপ্রিলের মধ্যে ফেরত পাঠানোর যে তোড়জোড় শুরু করা হয়েছিল, পালিয়ে আসা নতুন এই তিন সেনার কারণে সেই প্রক্রিয়ায় কিছুটা জটিলতা সৃষ্টি হয়ে গেছে।

বান্দরবানের জেলা প্রশাসক মো. মুজাহিদ উদ্দিন বলেন, তারা তিনজনই সেনাসদস্য বলে জানা গেছে। আগের ১৭৭ জনের সঙ্গে নাইক্ষ্যংছড়ি বর্ডার গার্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তাদের রাখা হয়েছে। তবে তাদেরকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর বিষয়টি পরে জানা যাবে বলে জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আবারও বাংলাদেশে ঢুকে পড়ল মিয়ানমার সেনাবাহিনী

আপডেট সময় : ০২:৩৪:৩২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩০ মার্চ ২০২৪

মিয়ানমারের অভ্যন্তরে সংঘাতের জেরে বাংলাদেশে আবারও পালিয়ে এসেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ৩ সদস্য। শনিবার (৩০ মার্চ) এ তথ্য জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

জানা গেছে, শনিবার (৩০ মার্চ) ভোরে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুমের তুমব্রু সীমান্ত দিয়ে এই ৩ সদস্য পালিয়ে আসে। পরে বিজিবি সদস্যরা গিয়ে তাদের সঙ্গে থাকা অস্ত্র জমা নেয়ার পর তাদের নাইক্ষ্যংছড়ি ব্যাটালিয়নে নিয়ে যায়। টহলরত ১১ বিজিবি জোয়ানরা তুমব্রু বিওপিতে নিয়ে যান তাদেরকে।

এই সীমান্তে দায়িত্ব পালন করা ৩৪ বিজিবি অধিনায়কের ব্যবস্থাপনায় তাদের ১১ বিজিবির অধীনে নাইক্ষ্যংছড়ির সদরের বর্ডার গার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মিয়ানমার জান্তার আগের ১৭৭ সদস্যের সঙ্গে রাখা হয়েছে। এতে পালিয়ে আসা জান্তা সদস্যের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৮০।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানায়, ১৭৭ জনকে আগামী ৫ এপ্রিল বা ৭ এপ্রিলের মধ্যে ফেরত পাঠানোর যে তোড়জোড় শুরু করা হয়েছিল, পালিয়ে আসা নতুন এই তিন সেনার কারণে সেই প্রক্রিয়ায় কিছুটা জটিলতা সৃষ্টি হয়ে গেছে।

বান্দরবানের জেলা প্রশাসক মো. মুজাহিদ উদ্দিন বলেন, তারা তিনজনই সেনাসদস্য বলে জানা গেছে। আগের ১৭৭ জনের সঙ্গে নাইক্ষ্যংছড়ি বর্ডার গার্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তাদের রাখা হয়েছে। তবে তাদেরকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর বিষয়টি পরে জানা যাবে বলে জানান তিনি।