ঢাকা ১১:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

আজিজ-বেনজিরের মতো অনেক রূপকথার কাহিনী আছে : রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ১১:২১:৫৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪
  • / ৪২০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, দেশ থেকে লক্ষ কোটি টাকা পাচার ও লুট হচ্ছে, ব্যাংক শূন্য হচ্ছে। আমরা তো শুধু দুজনের কথা শুনেছি, সাবেক সেনাপ্রধান এবং পুলিশ প্রধান। এটা তো শুধু তাদের রূপকথার কাহিনী। এদের মতো আরও যারা সরকারকে নানাভাবে সাহায্য করেছে, গুম-খুনে লিপ্ত ছিলেন তাদের কাহিনী তো আমরা জানি না। আমরা না জানলেও কথাগুলো মানুষের কাছে আছে।

আজ (মঙ্গলবার) জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয়তাবাদী প্রকাশনা পরিষদের উদ্যোগে আহবাব চৌধুরী খোকনের সম্পাদনায় ‘জিয়াউর রহমান অনন্য রাষ্ট্রনায়ক’ গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ এবং সাবেক পুলিশ প্রধান বেনজির আহমেদ যে এতকিছু করেছে এটা কি প্রধানমন্ত্রী জানতেন না? আওয়ামী লীগ সরকার কি কিছু জানতো না? রাষ্ট্রের যারা গোয়েন্দা বাহিনী রয়েছে তারা তো প্রধানমন্ত্রীর কব্জায়। শেখ হাসিনা যদি আমেরিকায় যায় সেখানে আন্দোলন হলে সেই ছবিগুলো তুলে রাখা হয় এবং পরবর্তীকালে সে আন্দোলনকারী বাংলাদেশে এলে এয়ারপোর্টে গ্রেফতার করে।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা লন্ডনে গিয়েছিলেন, সেখানে তার বিরুদ্ধে আন্দোলন হয়েছে। সেই ছবিগুলো গোয়েন্দাদের কাছে দেওয়া হয়েছে, আন্দোলনকারীরা যখনই বাড়িতে আসেন তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হুমকি দিয়েছে। গ্রেফতারও করেছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী। সাবেক ছাত্রনেতা ডা. তৌহিদুর রহমান আউয়ালের সঞ্চালনায় এতে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরফত আলী সপু, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আজিজ-বেনজিরের মতো অনেক রূপকথার কাহিনী আছে : রিজভী

আপডেট সময় : ১১:২১:৫৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, দেশ থেকে লক্ষ কোটি টাকা পাচার ও লুট হচ্ছে, ব্যাংক শূন্য হচ্ছে। আমরা তো শুধু দুজনের কথা শুনেছি, সাবেক সেনাপ্রধান এবং পুলিশ প্রধান। এটা তো শুধু তাদের রূপকথার কাহিনী। এদের মতো আরও যারা সরকারকে নানাভাবে সাহায্য করেছে, গুম-খুনে লিপ্ত ছিলেন তাদের কাহিনী তো আমরা জানি না। আমরা না জানলেও কথাগুলো মানুষের কাছে আছে।

আজ (মঙ্গলবার) জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয়তাবাদী প্রকাশনা পরিষদের উদ্যোগে আহবাব চৌধুরী খোকনের সম্পাদনায় ‘জিয়াউর রহমান অনন্য রাষ্ট্রনায়ক’ গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ এবং সাবেক পুলিশ প্রধান বেনজির আহমেদ যে এতকিছু করেছে এটা কি প্রধানমন্ত্রী জানতেন না? আওয়ামী লীগ সরকার কি কিছু জানতো না? রাষ্ট্রের যারা গোয়েন্দা বাহিনী রয়েছে তারা তো প্রধানমন্ত্রীর কব্জায়। শেখ হাসিনা যদি আমেরিকায় যায় সেখানে আন্দোলন হলে সেই ছবিগুলো তুলে রাখা হয় এবং পরবর্তীকালে সে আন্দোলনকারী বাংলাদেশে এলে এয়ারপোর্টে গ্রেফতার করে।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা লন্ডনে গিয়েছিলেন, সেখানে তার বিরুদ্ধে আন্দোলন হয়েছে। সেই ছবিগুলো গোয়েন্দাদের কাছে দেওয়া হয়েছে, আন্দোলনকারীরা যখনই বাড়িতে আসেন তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হুমকি দিয়েছে। গ্রেফতারও করেছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী। সাবেক ছাত্রনেতা ডা. তৌহিদুর রহমান আউয়ালের সঞ্চালনায় এতে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরফত আলী সপু, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।