ঢাকা ০৬:০১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

আওয়ামী লীগের লজ্জা কমে গেছে : নজরুল

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:০৮:২৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ নভেম্বর ২০২২
  • / ৪৫৮ বার পড়া হয়েছে

ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক : 
আওয়ামী লীগের লজ্জা কমে গেছে। তাদের অপরাধ কর্মকাণ্ডের কারণেই এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। অথচ সরকারের বিরুদ্ধে মাঠে নামলে হুমকি দেয়া হচ্ছে। সরকার জনগণের ক্রোধকে ভয় পায় বলেই হুমকির মাধ্যমে ক্রোধকে দমিয়ে রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

মঙ্গলবার (১ নভেম্বর) সকালে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় বাংলাদেশ লেবার পার্টির ৪৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের জনসমর্থন নেই আমরা কখনও বলিনি উল্লেখ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, আমরা বলেছি তাদের জনসমর্থন দ্রুত নেমে যাচ্ছে। রাষ্ট্র পরিচালনায় তাদের অদক্ষতার কারণে, জনগণের সমস্যার সমাধানের অক্ষমতার কারণে জনসমর্থনের পারদ দ্রুত নেমে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, যতই দিন যাচ্ছে সরকারের গণতন্ত্র বিরোধী চেহারা ততই পরিষ্কার হচ্ছে। সভা-সমাবেশ করতে গেলে প্রত্যক্ষভাবে বাধা দিচ্ছে সরকার।

বিএনপির সমাবেশের আগে সরকার বাস, মিনিবাস, লঞ্চ, এমনকি রিকশা পর্যন্ত বন্ধ করে দিচ্ছে দাবি করে নজরুল ইসলাম বলেন, তারপরও জনতার স্রোত বন্ধ করা যাচ্ছে না। সরকার যতই বাধা দিচ্ছে, সমাবেশের আকার আরও বাড়ছে, জনগণের অংশগ্রহণ বাড়ছে।

বিএনপির জনসভায় লোকসমাগম দেখে সরকার ভয় পেয়ে গেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অথচ সরকারি দলের সমাবেশে চেয়ার খালি থাকছে। অন্যদিকে বিএনপির সমাবেশে গাড়িঘোড়া বন্ধ করে দেয়া হয়, তবু বিএনপির চেয়ে বেশি লোক দেখাতে পারেনি আওয়ামী লীগ।

অস্তিত্ব রক্ষায় সরকার ভয় পেয়ে গেছে উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, এজন্য তারা আবোল-তাবোল বলছে। সেসব কথা তাদেরকে মানুষের কাছে হাস্যকর হিসেবে পরিগণিত করছে।

লড়াই করা সহজ নয় উল্লেখ করে এই শ্রমিক নেতা বলেন, সরকার এতো দুর্নীতি, অন্যায়, গুম, খুন করেছে, এত মিথ্যে মামলা দিয়ে মানুষকে হয়রানি করেছে, এসব অপরাধের কারণে এখন তারা ভয় পায়। আরও বেশি ভয় পায় যে তারা এত টাকা পয়সা লুট করেছে, বিদেশে পাচার করেছে দেশের সর্বনাশ করেছে।

সরকারকে বিদায় করতে লড়াইকে বেগবান করতে হবে মন্তব্য করে বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকার পতনের আগে আত্মরক্ষার চেষ্টা করবে, তাদের সেই চেষ্টা ভেঙে ফেলতে হবে। দেশকে গণতান্ত্রিক রূপ দিতে লড়াইকে বেগবান করতে নেতাকর্মীদের আরও সক্রিয় হতে হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল হায়দার, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আওয়ামী লীগের লজ্জা কমে গেছে : নজরুল

আপডেট সময় : ০৪:০৮:২৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ নভেম্বর ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক : 
আওয়ামী লীগের লজ্জা কমে গেছে। তাদের অপরাধ কর্মকাণ্ডের কারণেই এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। অথচ সরকারের বিরুদ্ধে মাঠে নামলে হুমকি দেয়া হচ্ছে। সরকার জনগণের ক্রোধকে ভয় পায় বলেই হুমকির মাধ্যমে ক্রোধকে দমিয়ে রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

মঙ্গলবার (১ নভেম্বর) সকালে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় বাংলাদেশ লেবার পার্টির ৪৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের জনসমর্থন নেই আমরা কখনও বলিনি উল্লেখ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, আমরা বলেছি তাদের জনসমর্থন দ্রুত নেমে যাচ্ছে। রাষ্ট্র পরিচালনায় তাদের অদক্ষতার কারণে, জনগণের সমস্যার সমাধানের অক্ষমতার কারণে জনসমর্থনের পারদ দ্রুত নেমে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, যতই দিন যাচ্ছে সরকারের গণতন্ত্র বিরোধী চেহারা ততই পরিষ্কার হচ্ছে। সভা-সমাবেশ করতে গেলে প্রত্যক্ষভাবে বাধা দিচ্ছে সরকার।

বিএনপির সমাবেশের আগে সরকার বাস, মিনিবাস, লঞ্চ, এমনকি রিকশা পর্যন্ত বন্ধ করে দিচ্ছে দাবি করে নজরুল ইসলাম বলেন, তারপরও জনতার স্রোত বন্ধ করা যাচ্ছে না। সরকার যতই বাধা দিচ্ছে, সমাবেশের আকার আরও বাড়ছে, জনগণের অংশগ্রহণ বাড়ছে।

বিএনপির জনসভায় লোকসমাগম দেখে সরকার ভয় পেয়ে গেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অথচ সরকারি দলের সমাবেশে চেয়ার খালি থাকছে। অন্যদিকে বিএনপির সমাবেশে গাড়িঘোড়া বন্ধ করে দেয়া হয়, তবু বিএনপির চেয়ে বেশি লোক দেখাতে পারেনি আওয়ামী লীগ।

অস্তিত্ব রক্ষায় সরকার ভয় পেয়ে গেছে উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, এজন্য তারা আবোল-তাবোল বলছে। সেসব কথা তাদেরকে মানুষের কাছে হাস্যকর হিসেবে পরিগণিত করছে।

লড়াই করা সহজ নয় উল্লেখ করে এই শ্রমিক নেতা বলেন, সরকার এতো দুর্নীতি, অন্যায়, গুম, খুন করেছে, এত মিথ্যে মামলা দিয়ে মানুষকে হয়রানি করেছে, এসব অপরাধের কারণে এখন তারা ভয় পায়। আরও বেশি ভয় পায় যে তারা এত টাকা পয়সা লুট করেছে, বিদেশে পাচার করেছে দেশের সর্বনাশ করেছে।

সরকারকে বিদায় করতে লড়াইকে বেগবান করতে হবে মন্তব্য করে বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকার পতনের আগে আত্মরক্ষার চেষ্টা করবে, তাদের সেই চেষ্টা ভেঙে ফেলতে হবে। দেশকে গণতান্ত্রিক রূপ দিতে লড়াইকে বেগবান করতে নেতাকর্মীদের আরও সক্রিয় হতে হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল হায়দার, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান প্রমুখ।