ঢাকা ০১:১৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

‘আওয়ামী লীগকে ভবিষ্যতে বিচারের মুখোমুখি করা হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৫:১৩:৪৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৪৫১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

বিএনপির নেতা-কর্মীদের হত্যা ও নির্যাতনের দায়ে আওয়ামী লীগ সরকারকে ভবিষ্যতে বিচারের মুখোমুখি করা হবে হুঁশিয়ারি দিয়েছে বিএনপি।

আজ সোমবার(১২ই ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নিত্যপণ্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধনে দলটির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক এই হুঁশিয়ারি দেন। এসময় তিনি বলেন, জনগণের সরকার না হওয়ায় আওয়ামী লীগ বাজারের অস্থিরতা, দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে না।

তিনি বলেন, অবিলম্বে পদত্যাগ করে মানুষকে বাঁচান। মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের দল হলে এই মুহূর্তে সংসদ ভেঙে দিন। সব গণতান্ত্রিক দলের মতামত নিয়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠন করে সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে ভোট দেওয়ার অধিকার ফিরিয়ে দিন।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

জয়নাল আবেদীন ফারুক বলেন, সংসদ চলছে, আজও চলবে। এটা একটা তেলেসমাতি সংসদ। এই সংসদকে মুরব্বিরা বলে আওয়ামী লীগের এ টিম আর বি টিম। এই সংসদে জনগণ ভোট দিতে পারে নাই, অংশগ্রহণ করে নাই। তবুও এই সরকার ক্ষমতার জোড়ে নির্বাচন কমিশনের কারচুপিতে ক্ষমতায় বসে গত মাসের ১০ তারিখে শপথ নিয়ে সরকার গঠন করেছে।

সাগর-রুনী হত্যাকাণ্ড প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সাগর-রুনীর বিচার হতে আইনমন্ত্রী বলেছে ৫০ বছর লাগবে। যদি আপনার (আইনমন্ত্রী) শরম থাকতো, জনগণের ভোটে নির্বাচিত হতেন তাহলে কোনও দিনও এরকম কথা বলতে পারতেন না। তারপরের দিন, যেদিন ডিআরইউর সামনে সাংবাদিকরা বিক্ষোভ করে সেদিন থেকে আপনার পদত্যাগ করা উচিত ছিল।

তিনি আরও বলেন, সংসদে যে ১১ জনের বিরোধী দল আছে সেটাও বানিয়ে দিয়েছে বর্তমান সরকার প্রধান। ডানে আর বামে ডামি আর ভাই, তারাই সরকার। এই বিরোধী দল দিয়ে বাংলাদেশের সার্বিক সমস্যার সমাধান হবে না।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি এস এম আনিসুর রহমান আনিসের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. আ. গাফফার হোসেন ডিপটির সঞ্চালনায় এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির শিশু বিষয়ক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকীসহ অন্যান্য নেতারা।

অন্যদিকে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কভীর রিজভী বলেন, বিদ্যুৎ খাতসহ সরকারের দুর্নীতি আড়াল করতেই সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের তদন্ত শেষ হচ্ছে না। বিএনপি ক্ষমতায় গেলে এ হত্যাকাণ্ডের বিচার করা হবে বলেও জানান বিএনপির নেতারা।

নিউজটি শেয়ার করুন

‘আওয়ামী লীগকে ভবিষ্যতে বিচারের মুখোমুখি করা হবে’

আপডেট সময় : ০৫:১৩:৪৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

বিএনপির নেতা-কর্মীদের হত্যা ও নির্যাতনের দায়ে আওয়ামী লীগ সরকারকে ভবিষ্যতে বিচারের মুখোমুখি করা হবে হুঁশিয়ারি দিয়েছে বিএনপি।

আজ সোমবার(১২ই ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নিত্যপণ্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধনে দলটির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক এই হুঁশিয়ারি দেন। এসময় তিনি বলেন, জনগণের সরকার না হওয়ায় আওয়ামী লীগ বাজারের অস্থিরতা, দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে না।

তিনি বলেন, অবিলম্বে পদত্যাগ করে মানুষকে বাঁচান। মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের দল হলে এই মুহূর্তে সংসদ ভেঙে দিন। সব গণতান্ত্রিক দলের মতামত নিয়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠন করে সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে ভোট দেওয়ার অধিকার ফিরিয়ে দিন।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

জয়নাল আবেদীন ফারুক বলেন, সংসদ চলছে, আজও চলবে। এটা একটা তেলেসমাতি সংসদ। এই সংসদকে মুরব্বিরা বলে আওয়ামী লীগের এ টিম আর বি টিম। এই সংসদে জনগণ ভোট দিতে পারে নাই, অংশগ্রহণ করে নাই। তবুও এই সরকার ক্ষমতার জোড়ে নির্বাচন কমিশনের কারচুপিতে ক্ষমতায় বসে গত মাসের ১০ তারিখে শপথ নিয়ে সরকার গঠন করেছে।

সাগর-রুনী হত্যাকাণ্ড প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সাগর-রুনীর বিচার হতে আইনমন্ত্রী বলেছে ৫০ বছর লাগবে। যদি আপনার (আইনমন্ত্রী) শরম থাকতো, জনগণের ভোটে নির্বাচিত হতেন তাহলে কোনও দিনও এরকম কথা বলতে পারতেন না। তারপরের দিন, যেদিন ডিআরইউর সামনে সাংবাদিকরা বিক্ষোভ করে সেদিন থেকে আপনার পদত্যাগ করা উচিত ছিল।

তিনি আরও বলেন, সংসদে যে ১১ জনের বিরোধী দল আছে সেটাও বানিয়ে দিয়েছে বর্তমান সরকার প্রধান। ডানে আর বামে ডামি আর ভাই, তারাই সরকার। এই বিরোধী দল দিয়ে বাংলাদেশের সার্বিক সমস্যার সমাধান হবে না।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি এস এম আনিসুর রহমান আনিসের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. আ. গাফফার হোসেন ডিপটির সঞ্চালনায় এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির শিশু বিষয়ক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকীসহ অন্যান্য নেতারা।

অন্যদিকে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কভীর রিজভী বলেন, বিদ্যুৎ খাতসহ সরকারের দুর্নীতি আড়াল করতেই সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের তদন্ত শেষ হচ্ছে না। বিএনপি ক্ষমতায় গেলে এ হত্যাকাণ্ডের বিচার করা হবে বলেও জানান বিএনপির নেতারা।