ঢাকা ০৯:৩২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
ব্রেকিং নিউজ ::
চট্টগ্রামে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের সংঘর্ষে নিহত ২ :: ঢাকা কলেজের সামনে সংঘর্ষে যুবক নিহত :: রংপুরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে বেরোবি শিক্ষার্থী নিহত :: ঢাকা, চট্টগ্রাম, বগুড়া ও রাজশাহীতে বিজিবি মোতায়েন :: রণক্ষেত্র মহাখালী, পুলিশ বক্সের সামনে দুটি মোটরসাইকেলে আগুন :: চার শিক্ষার্থী গুলিবিদ্ধ, উত্তাল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা :: আজও ছাত্রলীগের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষ, রণক্ষেত্র ঢাবি

অষ্টগ্রামে বিদ্যালয়ের গাছ কেটে বাড়ি নেওয়ার অভিযোগ প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে

মো. নজরুল ইসলাম, অষ্টগ্রাম (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৬:২৭:৫৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪
  • / ৪৩৯ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কিশোরগঞ্জের হওর উপজেলা অষ্টগ্রামে অনুমতি ছাড়াই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের গাছ কেটে বাড়ি নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নাছিমা আক্তার ও তার স্বামী অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে। ১ জুলাই (সোমবার) অষ্টগ্রাম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনাটি ঘটে। তাছাড়া চাকুরীর শুরু থেকেই কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া বিদ্যালয়ের একটি ভবন দখল করে বসবাস করার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

সূত্র জানায়, সেদিন প্রধান শিক্ষিকা নাছিমা আক্তার ও তার স্বামী অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই বিদ্যালয়ের লক্ষাধিক টাকা মূল্যের পাঁচটি গাছ কেটে তার নিজ বাড়ি বাঙ্গালপাড়ায় নিয়ে যান। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে গাছগুলি আবার বিদ্যালয়ে ফিরিয়ে আনেন। জানাযায়, বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের জন্য কোন বাস ভবন বরাদ্ধ না থাকলেও চাকুরীর শুরু থেকেই বিধি বাহিভূর্ত ভাবে কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই বিদ্যালয়ের একটি ভবন দখল করে বসবাস করে আসছেন।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নাছিমা আক্তার এক সাক্ষাৎকারে এ প্রতিনিধিকে জানান, তিনি কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়েই বিদ্যালয় ভবনে বসবাস করছেন এবং নিয়মিত ভাড়াও পরিশোধ করছেন। তবে গাছ কাটা ও বাড়ি নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে তিনি কোন কথা বলতে রাজি হননি।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার নূরে আলম এ প্রতিনিধিকে জানান, প্রধান শিক্ষিকা নাছিমা আক্তার ও তার স্বামী অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে অনুমতি ছাড়া বিদ্যালয়ের গাছ কেটে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে আমরা একটি অভিযোগ পেয়েছি।

বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি বলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নাছিমা আক্তার বিদ্যালয় ভবনে বসবাস করেন এটা জানি কিন্তু কর্তৃপক্ষের অনুমতি আছে কিনা বা ভাড়া পরিশোধ করেন কিনা তা আমার জানা নেই। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলশাদ জাহান এ প্রতিনিধিকে জানান, বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ও সহকারী প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ পেয়েছি। কারণ দর্শানোর নোটিশও দেওয়া হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

অষ্টগ্রামে বিদ্যালয়ের গাছ কেটে বাড়ি নেওয়ার অভিযোগ প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে

আপডেট সময় : ০৬:২৭:৫৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪

কিশোরগঞ্জের হওর উপজেলা অষ্টগ্রামে অনুমতি ছাড়াই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের গাছ কেটে বাড়ি নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নাছিমা আক্তার ও তার স্বামী অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে। ১ জুলাই (সোমবার) অষ্টগ্রাম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনাটি ঘটে। তাছাড়া চাকুরীর শুরু থেকেই কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া বিদ্যালয়ের একটি ভবন দখল করে বসবাস করার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

সূত্র জানায়, সেদিন প্রধান শিক্ষিকা নাছিমা আক্তার ও তার স্বামী অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই বিদ্যালয়ের লক্ষাধিক টাকা মূল্যের পাঁচটি গাছ কেটে তার নিজ বাড়ি বাঙ্গালপাড়ায় নিয়ে যান। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে গাছগুলি আবার বিদ্যালয়ে ফিরিয়ে আনেন। জানাযায়, বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের জন্য কোন বাস ভবন বরাদ্ধ না থাকলেও চাকুরীর শুরু থেকেই বিধি বাহিভূর্ত ভাবে কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই বিদ্যালয়ের একটি ভবন দখল করে বসবাস করে আসছেন।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নাছিমা আক্তার এক সাক্ষাৎকারে এ প্রতিনিধিকে জানান, তিনি কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়েই বিদ্যালয় ভবনে বসবাস করছেন এবং নিয়মিত ভাড়াও পরিশোধ করছেন। তবে গাছ কাটা ও বাড়ি নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে তিনি কোন কথা বলতে রাজি হননি।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার নূরে আলম এ প্রতিনিধিকে জানান, প্রধান শিক্ষিকা নাছিমা আক্তার ও তার স্বামী অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে অনুমতি ছাড়া বিদ্যালয়ের গাছ কেটে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে আমরা একটি অভিযোগ পেয়েছি।

বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি বলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নাছিমা আক্তার বিদ্যালয় ভবনে বসবাস করেন এটা জানি কিন্তু কর্তৃপক্ষের অনুমতি আছে কিনা বা ভাড়া পরিশোধ করেন কিনা তা আমার জানা নেই। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলশাদ জাহান এ প্রতিনিধিকে জানান, বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ও সহকারী প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ পেয়েছি। কারণ দর্শানোর নোটিশও দেওয়া হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

বাখ//আর